বাংলাদেশ ০৮:১১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
গলাচিপায় এক সন্তানের জননীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধর সিংগাইরে আল ইহসান সমবায় সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে গ্রাহকদের লাখ লাখ টাকা আত্নসাতের অভিযোগ সালথার জয়ঝাফ উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা । ত্রিশাল পৌরসভার উপ-নির্বাচনে প্রচারণায় ব্যস্ত মেয়র প্রার্থী আমিন সরকার  পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে ছিল নানান আয়োজন, আজ বেশিভাগ ধর্মপ্রাণ মানুষেরা রোজা রেখেছেন ভর্তি পরীক্ষা : গুচ্ছভুক্ত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়ের আবেদনের সময় বাড়ল মোটরসাইকেলের জন্য ওয়ার্কসপ কর্মচারী নাহিদকে হত্যা, গ্রেপ্তার ৫। কাউনিয়ায় দৈনিক যুগান্তরের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  কাউখালীতে অটো টেম্পু মালিক সমিতির সদস্যর মৃত্যুতে স্মরণসভা অনুষ্ঠিত। মধ্যপাড়া খনিজ শিল্পাঞ্চলে যুব সংঘের বিরুদ্ধে বিভ্রান্তীমূলক অপপ্রচারের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা  জাতির পিতার সমাধিতে নেত্রকোনা-১ এবং ময়মনসিংহ- ১০ আসনের সংসদ সদস্যদের শ্রদ্ধা নিবেদন। কাউখালীতে ব্রীজ নির্মান কাজ ৫ বছরে শেষ না হওয়ায় জনগনের ভোগান্তি চরমে। টাকার বিনিময়ে সরকারী চাকুরী প্রলোভনকারী প্রতারক চক্রের মূলহোতাসহ ০২ জন প্রতারককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১। গলা কেটে মাথা বিচ্ছিন্ন করে নৃশংসভাবে হত্যার চাঞ্চল্যকর ঘটনায় অন্যতম প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৩। দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয় ও পরিদর্শন শাখার শিক্ষক- কর্মকর্তাগণ পদোন্নতি বঞ্চিত, শিক্ষকদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ!

ব্রাহ্মণপাড়ায় ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মাটি কাটা কর্মসূচীর শ্রমিকদের মজুরি আত্মসাতের অভিযোগ।

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৯:১৫:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ এপ্রিল ২০২২
  • ১৬৭২ বার পড়া হয়েছে
মোঃ অপু খান চৌধুরী।।
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার চান্দলা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান এর বিরুদ্ধে ৪০ দিনের মাটি কাটা কর্মসূচীর সংশ্লিষ্ট শ্রমিকদের মজুরির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগীরা।
ভুক্তভোগী ও অভিযোগপত্র সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চান্দলা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান। তার এলাকায় দৈনিক ৪ শত টাকা বেতনে মাটি কাটা ৪০ দিনের একটি সরকারি কর্মসূচীর কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এই কর্মসূচীতে ইউপি সদস্যের অধীনে ৩৬ জন শ্রমিক কাজ করছে। প্রথম ধাপে প্রতি শ্রমিকের মোবাইলে ৮ হাজার টাকা করে বেতনের টাকা আসে। এই টাকা থেকে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান প্রত্যেক শ্রমিকের কাছ থেকে ৩ হাজার ৫ শত টাকা করে নিয়ে যায়। এসময় ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান শ্রমিকদের বলেন, “টিএনও, উপজেলা চেয়ারম্যান, পিআইও স্যার, থানার ওসি, ইউপি চেয়ারম্যান এবং এমপি মহোদয় কে এই টাকার অংশ দিতে হবে।” ইউপি সদস্য আরও বলেন, “এই টাকাগুলো ৯টি ভাগ হবে।” শ্রমিকেরা তার কথায় বিশ্বাস করে তার নিকট টাকা জমা দেয়।
পরের ধাপে আবারও শ্রমিকদের মোবাইলে ৮ হাজার টাকা করে আসলে  ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান শ্রমিকদের ডেকে জনপ্রতি ১ হাজার করে রেখে বাকি ৭ হাজার টাকা তার নিকট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন। কিছু শ্রমিক টাকা ফেরত দিতে অনীহা প্রকাশ করলে তাদেরকে পুলিশের ভয় দেখান ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান। কিছু শ্রমিক টাকা ফেরত না দিলে স্থানীয় সর্দারদের দিয়ে তাদেরকে হুমকিধামকি দেন অভিযুক্ত ইউপি সদস্য আতাউর। পরে উপায়ান্তর না দেখে টাকা ফেরত না দেওয়া শ্রমিকরা চান্দলা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ধলগ্রামের বাসিন্দা নুরজাহান বেগম,নসু মিয়া,জলিল মিয়া,হোসেনা বেগম, ও মোশাররফ হোসেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেন।
এব্যাপারে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান বলেন, চান্দলা ইউপি চেয়ারম্যান জনাব ওমর ফারুক আমাকে বলেছেন যার যার টাকা তাকে তাকে ফেরত দিয়ে বিষয়টির নিষ্পত্তি করতে। আমি খুব শীঘ্রই সবার টাকা ফেরত দিয়ে বিষয়টি সমাধান করবো।
এ ব্যপারে চান্দলা ইউপি চেয়ারম্যান ওমর ফারুক বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি।তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়েছি। অভিযুক্ত ইউপি সদস্যকে বঞ্চিত শ্রমিকদের টাকা ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। অন্যথায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
এ ব্যপারে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল রানা বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। এব্যাপারে ভুক্তভোগীরা বাদী হয়ে আমার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছে। আমি বিষয়টির তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

গলাচিপায় এক সন্তানের জননীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধর

ব্রাহ্মণপাড়ায় ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মাটি কাটা কর্মসূচীর শ্রমিকদের মজুরি আত্মসাতের অভিযোগ।

আপডেট সময় ০৯:১৫:৫৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ এপ্রিল ২০২২
মোঃ অপু খান চৌধুরী।।
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার চান্দলা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান এর বিরুদ্ধে ৪০ দিনের মাটি কাটা কর্মসূচীর সংশ্লিষ্ট শ্রমিকদের মজুরির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগীরা।
ভুক্তভোগী ও অভিযোগপত্র সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চান্দলা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান। তার এলাকায় দৈনিক ৪ শত টাকা বেতনে মাটি কাটা ৪০ দিনের একটি সরকারি কর্মসূচীর কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এই কর্মসূচীতে ইউপি সদস্যের অধীনে ৩৬ জন শ্রমিক কাজ করছে। প্রথম ধাপে প্রতি শ্রমিকের মোবাইলে ৮ হাজার টাকা করে বেতনের টাকা আসে। এই টাকা থেকে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান প্রত্যেক শ্রমিকের কাছ থেকে ৩ হাজার ৫ শত টাকা করে নিয়ে যায়। এসময় ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান শ্রমিকদের বলেন, “টিএনও, উপজেলা চেয়ারম্যান, পিআইও স্যার, থানার ওসি, ইউপি চেয়ারম্যান এবং এমপি মহোদয় কে এই টাকার অংশ দিতে হবে।” ইউপি সদস্য আরও বলেন, “এই টাকাগুলো ৯টি ভাগ হবে।” শ্রমিকেরা তার কথায় বিশ্বাস করে তার নিকট টাকা জমা দেয়।
পরের ধাপে আবারও শ্রমিকদের মোবাইলে ৮ হাজার টাকা করে আসলে  ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান শ্রমিকদের ডেকে জনপ্রতি ১ হাজার করে রেখে বাকি ৭ হাজার টাকা তার নিকট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন। কিছু শ্রমিক টাকা ফেরত দিতে অনীহা প্রকাশ করলে তাদেরকে পুলিশের ভয় দেখান ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান। কিছু শ্রমিক টাকা ফেরত না দিলে স্থানীয় সর্দারদের দিয়ে তাদেরকে হুমকিধামকি দেন অভিযুক্ত ইউপি সদস্য আতাউর। পরে উপায়ান্তর না দেখে টাকা ফেরত না দেওয়া শ্রমিকরা চান্দলা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ধলগ্রামের বাসিন্দা নুরজাহান বেগম,নসু মিয়া,জলিল মিয়া,হোসেনা বেগম, ও মোশাররফ হোসেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেন।
এব্যাপারে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মোঃ আতাউর রহমান বলেন, চান্দলা ইউপি চেয়ারম্যান জনাব ওমর ফারুক আমাকে বলেছেন যার যার টাকা তাকে তাকে ফেরত দিয়ে বিষয়টির নিষ্পত্তি করতে। আমি খুব শীঘ্রই সবার টাকা ফেরত দিয়ে বিষয়টি সমাধান করবো।
এ ব্যপারে চান্দলা ইউপি চেয়ারম্যান ওমর ফারুক বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি।তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়েছি। অভিযুক্ত ইউপি সদস্যকে বঞ্চিত শ্রমিকদের টাকা ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। অন্যথায় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
এ ব্যপারে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল রানা বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। এব্যাপারে ভুক্তভোগীরা বাদী হয়ে আমার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছে। আমি বিষয়টির তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।