বাংলাদেশ ০৮:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে

হোসেনপুরে কর্মচারীর বাড়ীতে সৌদি মালিকের অবতরণ, উৎসুক জনতার ভিড়।

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১২:৫৫:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩
  • ১৬৯৪ বার পড়া হয়েছে

হোসেনপুরে কর্মচারীর বাড়ীতে সৌদি মালিকের অবতরণ, উৎসুক জনতার ভিড়।

মাহফুজ রাজা, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:
কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার সাহেবের চর  গ্রামের তিন সহোদর খাইরুল ইসলাম (৪০) আব্দুল হামিদ (৩৫) ও সারোয়ার হোসেন সাহিদ (৩০)চাকরি করেন সৌদি আরবের দাম্মাম আল হাচা শহরে। সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দা সামিম আহমেদ হলিবির প্রতিষ্ঠানে।খাইরুল ২০ বছর মাজ্রা (বাগানে) হামিদ ৭ বছর মাজ্রায় ও সাহিদ ৭ বছর ধরে গাড়ী চালকের কাজ করছেন সেখানে। তিন জনই উপজেলার সিদলা ইউনিয়নের সাহেবের চর গ্রামের মৃত. চান মিয়ার ছেলে। দীর্ঘদিন একই প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সুবাদে কপিল (মালিক) সামিম আহমেদ হলিবির সঙ্গে একটা সখ্যতা গড়ে উঠে তাদের। অর্জন করেছেন সৌদি মালিকের আস্থা ও ভালবাসা। সন্তানের ন্যায় যত্ন করেন তাদের। তাইতো সেই সম্পর্কের টানে বাংলার সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য সম্পর্কে জানার আগ্রহ নিয়ে কর্মচারীদের বাড়ী। ছুটে এসেছেন বাংলাদেশে।
গত সোমবার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় সৌদি আরবের একটি ফ্লাইটে করে হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন ভোর ৪ টায়। সৌদি নাগরিক সামিম আহমেদ হলিবি ও তার ছেলে আব্দুল লিলা হলিবি এবং সাথে ছিলেন বাংলাদেশি কর্মচারী খাইরুল।
পরে মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) সকালে সেখান থেকে হেলিকপ্টারে চড়ে উপজেলার পৌর এলাকার ঢেকিয়া খেলার মাঠে এসে নামেন তারা সকাল ১০ টায়। সেখানে সৌদি মালিক ও তার ছেলেকে দেখতে ভিড় করেন উৎসুক জনতা। ফুলের মালা দিয়ে অভিনন্দন জানান গ্রামবাসী। পরে প্রাইভেট কারে চড়ে কর্মচারীদের পৌর এলার বাসায় যান। তিন দিন থেকে ঘুরে ঘুরে দেখবেন বাংলাদেশের গ্রাম গুলি।
বাংলাদেশে এসে কেমন লাগলো এমন প্রশ্নে সামিম আহমেদ হলিবি বলেন, আমার খুবই ভালো লেগেছে। বাংলাদেশে আসতে পেরে আমি সবচেয়ে খুশি। তারা (খাইরুল, হামিদ, সাহিদ) শুধু আমার কর্মচারী না আমার সন্তানের মতো।
তিনি আরও বলেন, সততা ও বিনয়ীর জন্য এবং আমার প্রতিষ্ঠানের সম্মান বজায় রাখার জন্য তাদের ওপর আমি অনেক বেশি নির্ভরশীল।
প্রবাসী কর্মচারী আব্দুল হামিদ বলেন, আমাদের বাড়ীতে আমাদের কপিল (মালিক) আসছে আমরা আনন্দিত। উনারা (মালিক ও তার ছেলে) কয়েকদিন থেকে আমাদের গ্রাম শহর ঘুরে দেখবেন, আমাদের দেশীয় কৃষ্টি -সংস্কৃতি সম্পর্কে জানবে, বাঙগালী খাবারেরর স্বাদ নিতে চান। আমি এক সপ্তাহ আগে দেশে আসছি, আমার বড় ভাই আসছে সৌদি মেহমানদের সাথে।
আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

হোসেনপুরে কর্মচারীর বাড়ীতে সৌদি মালিকের অবতরণ, উৎসুক জনতার ভিড়।

আপডেট সময় ১২:৫৫:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩
মাহফুজ রাজা, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:
কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার সাহেবের চর  গ্রামের তিন সহোদর খাইরুল ইসলাম (৪০) আব্দুল হামিদ (৩৫) ও সারোয়ার হোসেন সাহিদ (৩০)চাকরি করেন সৌদি আরবের দাম্মাম আল হাচা শহরে। সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দা সামিম আহমেদ হলিবির প্রতিষ্ঠানে।খাইরুল ২০ বছর মাজ্রা (বাগানে) হামিদ ৭ বছর মাজ্রায় ও সাহিদ ৭ বছর ধরে গাড়ী চালকের কাজ করছেন সেখানে। তিন জনই উপজেলার সিদলা ইউনিয়নের সাহেবের চর গ্রামের মৃত. চান মিয়ার ছেলে। দীর্ঘদিন একই প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সুবাদে কপিল (মালিক) সামিম আহমেদ হলিবির সঙ্গে একটা সখ্যতা গড়ে উঠে তাদের। অর্জন করেছেন সৌদি মালিকের আস্থা ও ভালবাসা। সন্তানের ন্যায় যত্ন করেন তাদের। তাইতো সেই সম্পর্কের টানে বাংলার সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য সম্পর্কে জানার আগ্রহ নিয়ে কর্মচারীদের বাড়ী। ছুটে এসেছেন বাংলাদেশে।
গত সোমবার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় সৌদি আরবের একটি ফ্লাইটে করে হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন ভোর ৪ টায়। সৌদি নাগরিক সামিম আহমেদ হলিবি ও তার ছেলে আব্দুল লিলা হলিবি এবং সাথে ছিলেন বাংলাদেশি কর্মচারী খাইরুল।
পরে মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) সকালে সেখান থেকে হেলিকপ্টারে চড়ে উপজেলার পৌর এলাকার ঢেকিয়া খেলার মাঠে এসে নামেন তারা সকাল ১০ টায়। সেখানে সৌদি মালিক ও তার ছেলেকে দেখতে ভিড় করেন উৎসুক জনতা। ফুলের মালা দিয়ে অভিনন্দন জানান গ্রামবাসী। পরে প্রাইভেট কারে চড়ে কর্মচারীদের পৌর এলার বাসায় যান। তিন দিন থেকে ঘুরে ঘুরে দেখবেন বাংলাদেশের গ্রাম গুলি।
বাংলাদেশে এসে কেমন লাগলো এমন প্রশ্নে সামিম আহমেদ হলিবি বলেন, আমার খুবই ভালো লেগেছে। বাংলাদেশে আসতে পেরে আমি সবচেয়ে খুশি। তারা (খাইরুল, হামিদ, সাহিদ) শুধু আমার কর্মচারী না আমার সন্তানের মতো।
তিনি আরও বলেন, সততা ও বিনয়ীর জন্য এবং আমার প্রতিষ্ঠানের সম্মান বজায় রাখার জন্য তাদের ওপর আমি অনেক বেশি নির্ভরশীল।
প্রবাসী কর্মচারী আব্দুল হামিদ বলেন, আমাদের বাড়ীতে আমাদের কপিল (মালিক) আসছে আমরা আনন্দিত। উনারা (মালিক ও তার ছেলে) কয়েকদিন থেকে আমাদের গ্রাম শহর ঘুরে দেখবেন, আমাদের দেশীয় কৃষ্টি -সংস্কৃতি সম্পর্কে জানবে, বাঙগালী খাবারেরর স্বাদ নিতে চান। আমি এক সপ্তাহ আগে দেশে আসছি, আমার বড় ভাই আসছে সৌদি মেহমানদের সাথে।