বাংলাদেশ ১২:৫৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে

যশোরে চাকরি গেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষিকার

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:২০:০৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • ১৬৩০ বার পড়া হয়েছে
স্বীকৃতি বিশ্বাস, যশোরঃ
যশোর জেলার  চৌগাছা উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষিকা কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করায় চাকরি থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩১ আগস্ট) উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার অফিসে ওই বরখাস্তের আদেশ এসে পৌঁছায়।
চাকুরি থেকে বরখাস্ত হওয়া শিক্ষিকরা হলেন- বিধি বর্হিভূতভাবে মেডিকেল ছুটি নিয়ে চীনে অবস্থান করা চৌগাছার মাজালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শারমিন সুলতানা জিনিয়া, মেডিকেল ছুটি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা উপজেলার বড়খানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিশাত মুনাওয়ারা ও উপজেলার কংশারীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফারহানা সাত্তার।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, বিধি অমান্য করায় তাদেরকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। উপজেলার বড়খানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিশাত মুনাওয়ারার বরখাস্তের চিঠি বৃহস্পতিবার উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে এসে পৌঁছায়। তিনি ২০২২ সালের ১ ডিসেম্বর চিকিৎসা ছুটির আবেদন করে কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমতিতে যুক্তরাষ্ট্রে চলে গিয়ে বসবাস করছেন। এ বিষয়ে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় নিউজ প্রকাশিত হয়। এরপর ১৬ মার্চ তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন। সব প্রক্রিয়া সম্পন্নের পর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালাম তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করেন।
২ আগস্ট চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয় কংশারীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিক ফারহানা সাত্তারকে। তিনি ২০২২ সালে যশোর পিটিআইএ শিক্ষক প্রশিক্ষণে ভর্তি হন। একই বছরের ১২ মে থেকে ২২ মে পর্যন্ত প্রশিক্ষণে বিনা অনুমতিতে অনুপস্থিত থাকেন। এরপর পিটিআইএর সুপার তার ভর্তি বাতিল করেন। কিন্তু তিনি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেননি। তিনি বিদ্যালয়েও যোগ দেননি। পরে ৪ এপ্রিল তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে তাকেও ৩১ আগস্ট চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়।
এছাড়া উপজেলার মাজালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শারমিন সুলতানা জিনিয়া চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি বিদ্যালয়ে যোগ দি‌য়ে একমাস কর্মরত ছিলেন। ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই চীনে লেখাপড়া করতে চলে যান। অভিযুক্ত শিক্ষিকা চীন থেকে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করে চাকুরি থেকে অব্যহতির আবেদন করেন। তার আবেদনে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সুপারিশে গত ৩১ আগস্ট তাকে চাকরি থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়। পরে ওই পদটি শূন্য ঘোষণা করেন যশোর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালাম।
এ বিষয়ে চৌগাছা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ওই তিন শিক্ষক কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত ছিলেন। বিষয়টি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানানো হয়। পরে চাকরি থেকে বরখাস্তের সুপারিশ করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা ও কারণ দর্শানোর নোটিশ করেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা।
সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে তিন জনের মধ্যে একজনের আবেদনের ভিত্তিতে চাকরি থেকে অব্যহতি ও দুজনকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।
জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

যশোরে চাকরি গেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষিকার

আপডেট সময় ০৬:২০:০৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২৩
স্বীকৃতি বিশ্বাস, যশোরঃ
যশোর জেলার  চৌগাছা উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষিকা কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করায় চাকরি থেকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩১ আগস্ট) উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার অফিসে ওই বরখাস্তের আদেশ এসে পৌঁছায়।
চাকুরি থেকে বরখাস্ত হওয়া শিক্ষিকরা হলেন- বিধি বর্হিভূতভাবে মেডিকেল ছুটি নিয়ে চীনে অবস্থান করা চৌগাছার মাজালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শারমিন সুলতানা জিনিয়া, মেডিকেল ছুটি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা উপজেলার বড়খানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিশাত মুনাওয়ারা ও উপজেলার কংশারীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফারহানা সাত্তার।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, বিধি অমান্য করায় তাদেরকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। উপজেলার বড়খানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিশাত মুনাওয়ারার বরখাস্তের চিঠি বৃহস্পতিবার উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে এসে পৌঁছায়। তিনি ২০২২ সালের ১ ডিসেম্বর চিকিৎসা ছুটির আবেদন করে কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমতিতে যুক্তরাষ্ট্রে চলে গিয়ে বসবাস করছেন। এ বিষয়ে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় নিউজ প্রকাশিত হয়। এরপর ১৬ মার্চ তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন। সব প্রক্রিয়া সম্পন্নের পর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালাম তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করেন।
২ আগস্ট চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয় কংশারীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিক ফারহানা সাত্তারকে। তিনি ২০২২ সালে যশোর পিটিআইএ শিক্ষক প্রশিক্ষণে ভর্তি হন। একই বছরের ১২ মে থেকে ২২ মে পর্যন্ত প্রশিক্ষণে বিনা অনুমতিতে অনুপস্থিত থাকেন। এরপর পিটিআইএর সুপার তার ভর্তি বাতিল করেন। কিন্তু তিনি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেননি। তিনি বিদ্যালয়েও যোগ দেননি। পরে ৪ এপ্রিল তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে তাকেও ৩১ আগস্ট চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়।
এছাড়া উপজেলার মাজালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শারমিন সুলতানা জিনিয়া চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি বিদ্যালয়ে যোগ দি‌য়ে একমাস কর্মরত ছিলেন। ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই চীনে লেখাপড়া করতে চলে যান। অভিযুক্ত শিক্ষিকা চীন থেকে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করে চাকুরি থেকে অব্যহতির আবেদন করেন। তার আবেদনে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সুপারিশে গত ৩১ আগস্ট তাকে চাকরি থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়। পরে ওই পদটি শূন্য ঘোষণা করেন যশোর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালাম।
এ বিষয়ে চৌগাছা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ওই তিন শিক্ষক কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত ছিলেন। বিষয়টি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানানো হয়। পরে চাকরি থেকে বরখাস্তের সুপারিশ করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা ও কারণ দর্শানোর নোটিশ করেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা।
সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে তিন জনের মধ্যে একজনের আবেদনের ভিত্তিতে চাকরি থেকে অব্যহতি ও দুজনকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।