বাংলাদেশ ১২:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
রাজশাহী মহানগরীতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই! দুই ভুয়া ডিবি গ্রেফতার পটুয়াখালী মহিপুর ইয়াবাসহ একজন গ্রেফতার। চন্দ্রকোনায় অনুষ্ঠিত হয়ে গেল এক ব্যতিক্রমী চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা। আজ শেরপুর জেলার জন্মদিন অবৈধ গ্যাস সংযোগ উচ্ছেদ অভিযান শুরু মুহম্মদ ফয়সল আকন্দের ‘চন্দ্রপুর’ গ্রন্থের পাঠ উন্মোচন সভা অনুষ্ঠিত  বর্তমান সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য অনেক কিছু করেছে : আমু মতলব ব্রহ্মানন্দ যোগাশ্রমে শ্রী শ্রী বিশ্ব শান্তি গীতা যজ্ঞ ও সনাতন ধর্ম সম্মেলন ২৪ ফেব্রুয়ারী রাজশাহীতে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজের ডিজিটাল বুথের উদ্বোধন রাজশাহী পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত জবিতে শুরু হচ্ছে ৬ দিন ব্যাপি সিনেশো ব্যরিস্টার শাহজাহান ওমরের বিকল্পে জামালকে মূল্যায়ন পিরোজপুরের নেছারাবাদে দুই দিনে পাগলা কুকুরের কামড়ে নারী শিশু, বৃদ্ধসহ ১৭ জন আহত নলছিটি বন্দর স্কুলের নতুন ভবন নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন আমির হোসেন আমু বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হলেন রফিকুল ইসলাম জামাল 

তাড়াশে মাদক সম্রাট আটক হওয়ায় জনমনে স্বস্তি

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:৩৩:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ মার্চ ২০২২
  • ১৬৫৫ বার পড়া হয়েছে

তাড়াশে মাদক সম্রাট আটক হওয়ায় জনমনে স্বস্তি

 

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে চিহ্নিত মাদক সম্রাট হেলাল হোসেন (৫২) ও তার সহযোগী সোবাহান (২২) র‍্যাবের হাতে আটক হওয়ায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছেন এলাকাবাসী। সোমবার সকালে হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কের মহিষলুটি বাজারে ওই আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেন এলাকার সূধীজন। জানা যায়, গত বুধবার সন্ধায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে উল্লাপাড়া উপজেলার ধোপাকান্দি এলাকায় হানিফ হাইওয়ে রেস্টুরেন্ট এর সামনে থেকে হেলাল হোসেন ও তার সহযোগী সোবাহানকে ১৩৮ গ্রাম হেরোইন ও ২৯ পিচ ইয়াবাসহ আটক করে র‍্যাব-১২।

 

 

ওই সময় র‍্যাব-১২ আটককৃতদের নিকট থেকে ১ টি প্রাইভেট কার, ৩ টি মোবাইল ফোন ও নগদ ৪৭ হাজার টাকা জব্দ করে। হেলাল হোসেন তাড়াশ উপজেলার মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়নের ঘরগ্রাম পূর্বপাড়া এলাকার মৃত মোজাম্মেল হকের ছেলে ও তার সহযোগী সোবাহান ওই একই গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে। আটককৃত হেলাল দীর্ঘদিন যাবত মাদক ও সুদের ব্যবসার সাথে সাথে জড়িত। এদিকে মাদক কারবারি হেলাল হোসেনের আটকের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে। এবং আইনশৃংখলা বাহিনী র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-১২ কে সাধুুবাদ জানান। এলাকাবাসীর অভিযোগ হেলাল মাদক, জুয়া ও সুদ কারবার করে রাতারাতি অঢেল সম্পদের পাহাড় গড়েছেন।

 

 

অপরদিকে ১০ থেকে ১৫ কোটি টাকার চেক মামলা করে নিঃস্ব করেছে শতাধিক পরিবার। সে মহিষলুটি তিনতলা অফিস বানিয়ে নিজেকে বড় ক্ষমতাধর প্রচার করে সেখান থেকে নানান অপকর্ম পরিচালনা করে আসছিল। স্থানীয় ভুক্তভোগী মাসুদ রানা কান্না জড়িতকণ্ঠে অভিযোগ করে বলেন, হেলালের কাছ থেকে পারিবারিক প্রয়োজনে এক বছর পূর্বে ১০ লক্ষ টাকা নিয়েছিলাম। তিনি আমার কাছ থেকে চারটি ফাঁকা চেক নিয়েছিলো। ২০ লক্ষ টাকা আমি দিলেও সে ইচ্ছে মতো টাকার অঙ্ক বসিয়ে মোট ১ কোটি ৯০ লক্ষ ১০ হাজার ৫’শ টাকার মামলা দায়ের করেছে। র‍্যাব তাকে আটক করায় আমরা স্বস্তি পেয়েছি। আমরা চাই প্রত্যেক অপরাধীর বিচার হোক।

 

 

একই অভিযোগ তুলে আব্দুল খালেক বিএসসি বলেন, মাদক ও সুদকারবারি হেলাল হোসেনের কাছ থেকে তিন দফায় ৫ লাখ টাকা নেই। বিনিময়ে তিনটি সাক্ষরযুক্ত সাদা চেক দেয়। সুদ আসল মিলে পরিশোধ করলেও আমার বিরুদ্ধে তিনি সিরাজগঞ্জ কোর্টে ২০ লাখ টাকার মামলা করেছে। স্থানীয় আকতার মাস্টার বলেন, হেলাল মাদক ও সুদের ব্যবসা করে অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছে। তাকে র‍্যাব আটক করায় এলাকায় স্বস্থি ফিরেছে। আমরা তার উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি।

 

 

র‍্যাব-১২’র মিডিয়া অফিসার মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, তাদের আটক করার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় তিনি দীর্ঘদিন যাবত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখ ফাঁকি দিয়ে সিরাজগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধনেশা জাতীয় মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল। পরে সলঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয়। এ প্রসঙ্গে সলঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের জিলানী জানান, বৃহস্পতিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

 

 

জনপ্রিয় সংবাদ

রাজশাহী মহানগরীতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই! দুই ভুয়া ডিবি গ্রেফতার

তাড়াশে মাদক সম্রাট আটক হওয়ায় জনমনে স্বস্তি

আপডেট সময় ০৫:৩৩:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ মার্চ ২০২২

 

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে চিহ্নিত মাদক সম্রাট হেলাল হোসেন (৫২) ও তার সহযোগী সোবাহান (২২) র‍্যাবের হাতে আটক হওয়ায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছেন এলাকাবাসী। সোমবার সকালে হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কের মহিষলুটি বাজারে ওই আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেন এলাকার সূধীজন। জানা যায়, গত বুধবার সন্ধায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে উল্লাপাড়া উপজেলার ধোপাকান্দি এলাকায় হানিফ হাইওয়ে রেস্টুরেন্ট এর সামনে থেকে হেলাল হোসেন ও তার সহযোগী সোবাহানকে ১৩৮ গ্রাম হেরোইন ও ২৯ পিচ ইয়াবাসহ আটক করে র‍্যাব-১২।

 

 

ওই সময় র‍্যাব-১২ আটককৃতদের নিকট থেকে ১ টি প্রাইভেট কার, ৩ টি মোবাইল ফোন ও নগদ ৪৭ হাজার টাকা জব্দ করে। হেলাল হোসেন তাড়াশ উপজেলার মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়নের ঘরগ্রাম পূর্বপাড়া এলাকার মৃত মোজাম্মেল হকের ছেলে ও তার সহযোগী সোবাহান ওই একই গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে। আটককৃত হেলাল দীর্ঘদিন যাবত মাদক ও সুদের ব্যবসার সাথে সাথে জড়িত। এদিকে মাদক কারবারি হেলাল হোসেনের আটকের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে। এবং আইনশৃংখলা বাহিনী র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-১২ কে সাধুুবাদ জানান। এলাকাবাসীর অভিযোগ হেলাল মাদক, জুয়া ও সুদ কারবার করে রাতারাতি অঢেল সম্পদের পাহাড় গড়েছেন।

 

 

অপরদিকে ১০ থেকে ১৫ কোটি টাকার চেক মামলা করে নিঃস্ব করেছে শতাধিক পরিবার। সে মহিষলুটি তিনতলা অফিস বানিয়ে নিজেকে বড় ক্ষমতাধর প্রচার করে সেখান থেকে নানান অপকর্ম পরিচালনা করে আসছিল। স্থানীয় ভুক্তভোগী মাসুদ রানা কান্না জড়িতকণ্ঠে অভিযোগ করে বলেন, হেলালের কাছ থেকে পারিবারিক প্রয়োজনে এক বছর পূর্বে ১০ লক্ষ টাকা নিয়েছিলাম। তিনি আমার কাছ থেকে চারটি ফাঁকা চেক নিয়েছিলো। ২০ লক্ষ টাকা আমি দিলেও সে ইচ্ছে মতো টাকার অঙ্ক বসিয়ে মোট ১ কোটি ৯০ লক্ষ ১০ হাজার ৫’শ টাকার মামলা দায়ের করেছে। র‍্যাব তাকে আটক করায় আমরা স্বস্তি পেয়েছি। আমরা চাই প্রত্যেক অপরাধীর বিচার হোক।

 

 

একই অভিযোগ তুলে আব্দুল খালেক বিএসসি বলেন, মাদক ও সুদকারবারি হেলাল হোসেনের কাছ থেকে তিন দফায় ৫ লাখ টাকা নেই। বিনিময়ে তিনটি সাক্ষরযুক্ত সাদা চেক দেয়। সুদ আসল মিলে পরিশোধ করলেও আমার বিরুদ্ধে তিনি সিরাজগঞ্জ কোর্টে ২০ লাখ টাকার মামলা করেছে। স্থানীয় আকতার মাস্টার বলেন, হেলাল মাদক ও সুদের ব্যবসা করে অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছে। তাকে র‍্যাব আটক করায় এলাকায় স্বস্থি ফিরেছে। আমরা তার উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি।

 

 

র‍্যাব-১২’র মিডিয়া অফিসার মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, তাদের আটক করার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় তিনি দীর্ঘদিন যাবত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখ ফাঁকি দিয়ে সিরাজগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধনেশা জাতীয় মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল। পরে সলঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয়। এ প্রসঙ্গে সলঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের জিলানী জানান, বৃহস্পতিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।