বাংলাদেশ ১০:০৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুক্তিযোদ্বা প্রজন্ম লীগ সভাপতিকে কুপিয়ে জখমকে কেন্দ্র করে পিরোজপুর শহরে উত্তেজনা রাবিতে চাঁদপুর পরিবারের নেতৃত্বে ইমন-রাহিম ঝালকাঠিতে ৮টি গাঁজাগাছ ও ১৫পিস ইয়াবাসহ আটক-২ ঝালকাঠির নবগ্রামের শতবর্ষী রেইন্ট্রি গাছ নিয়ে গুনাই বিবি নাটকের রূপ কথার গল্প চার শিশুর জন্ম দিল এক মা। শিশুরা সবাই সুস্থ আছেন। ভান্ডারিয়ায় ৯৬ হাজার স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণে শুভ উদ্বোধন বিপুল পরিমাণে গাঁজাসহ ০২ জন মাদক কারবারী কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪: মাদক পরিবহণে ব্যবহৃত পিকআপ জব্দ। ওয়াশিংটনে পিঠা উৎসব ও বসন্ত বরণে রাবিয়ানদের মিলন মেলা অতিথি পাখির অভ্যায়রণ্য রানীশংকেলের রামরাই দিঘি তানোরে জিয়ারুল হত্যার ঘটনায় ১৫ জনের নামে মামলা তানোরে পূর্বশত্রুতার জের ধরে ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় রাস্তা থেকে উদ্ধার হলো মরদেহ বরুন হত্যা মামলার পলাতক আসামীকে গ্রেফতার এলাকার উন্নয়ন আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে করব: মহিউদ্দিন মহারাজ এমপি। জগন্নাথপুরে কিশোরীকে নিয়ে পলায়ন, ১৮ দিন পর ফিরে প্রেমিক কারাগারে ভালুকায় বাজারের ইজারা নিয়ে মারামারির ঘটনায় আটক- ১

লালমোহনে ইলিশ ধরা বন্ধ, জেলেদের দুর্দিন

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৮:২১:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১১ মার্চ ২০২২
  • ১৭০০ বার পড়া হয়েছে

লালমোহনে ইলিশ ধরা বন্ধ, জেলেদের দুর্দিন

মনজুরুল আলম, লালমোহন (ভোলা)
মার্চ-এপ্রিল দুই মাস ইলিশ ধরা বন্ধ থাকায় বেকার হয়ে পড়েছেন লালমোহনের ২৩ হাজার জেলে। নিষেধাজ্ঞা থাকায় নদীতে যেতে না পারায় তারা পরিবার-পরিজন নিয়ে পড়েছেন চরম বিপাকে। অভাব-অনাটন আর অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটছে তাদের।
জেলে পুর্নঃ বাসনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে চাল বরাদ্দ দেয়া হলেও সেই চাল এখনও পৌঁছায়নি জেলেদের কাছে। এতে কস্টে আছেন জেলেরা। উপজেলা মৎস্য অফিস থেকে জানা যায়, লালমোহন উপজেলায় ২৩ হাজার জেলে থাকলেও এবার চাল বরাদ্দ আসছে ১১ হাজার জেলে নামে। এতে ১২ হাজার জেলে পূর্নবাসনের চাল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। মাছের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতি বছরের মত এ বছরও ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার এলাকায় ইলিশ সহ সকল ধরনের মাছ ধরা বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে।
প্রশাসনের নির্দেশ মানতে নদীতে যেতে পারছেন না জেলেরা। জাল-নৌকা তুলে ঘাটে নিয়ে রেখেছেন। কেউ বা বিকল্প পেশা খুজছেন। তবে পেটর টানে কিছু সংখ্যক জেলে নদীতে নামলেও তাদের আটক হয়ে জেল-জরিমানা গুনতে হচ্ছে হচ্ছে।
লালমোহনের বাতির খাল মৎস্য ঘাটের মোঃ আলমগীর মাঝি জানান,আমার নৌকার ১৮ জন নিয়ে নদীতে মাছ ধরা থেকে বিরত আছি।মাছ ধরা বন্ধ থাকায় আমরা ধরা দেনা থাকায় আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে কষ্ট দিন কাটছে।এখনো জেলে পূর্নবাসনের চাল পাইনি।
আরেক জেলের মতো সিরাজ ও মোঃ রিপন জানান, মাছ ধরা বন্ধ থাকায় আমরা জাল বুনে দিন পার করছি।কবে থেকে জেলে পুর্নবাসনের চাল পাবো তা এখনও অনিশ্চিত। সরকারে কাছে আমাদের দাবী আমরা যেন দূরত্ব চাল পাই সে ব্যবস্থা করে দেয়।
এ ব্যাপারে লালমোহন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রুহুল কুদ্দুস জানিয়েছেন, আগামী তিন-চার দিনের ভিতরে জেলেদের চাউল বিতরণ করা হবে। তখন জেলেদের এই সমস্যা আর থাকবে না।
তিনি আরো জানান, যে পরিমাণ চাল বরাদ্দ আছে।তা পরিমানের ছাড়াও কম। ২৩ হাজারোও বেশি জেলে আছে।বরাদ্দ আসছে ১১ হাজারের।যদি পরবর্তীতে বরাদ্দ আসে, তাহলে বাকি জেলেদেরকে দেয়া হবে। আর যদি না আসে তাহলে মৎস্য অফিস কি ভাবে দিবো।
জনপ্রিয় সংবাদ

মুক্তিযোদ্বা প্রজন্ম লীগ সভাপতিকে কুপিয়ে জখমকে কেন্দ্র করে পিরোজপুর শহরে উত্তেজনা

লালমোহনে ইলিশ ধরা বন্ধ, জেলেদের দুর্দিন

আপডেট সময় ০৮:২১:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১১ মার্চ ২০২২
মনজুরুল আলম, লালমোহন (ভোলা)
মার্চ-এপ্রিল দুই মাস ইলিশ ধরা বন্ধ থাকায় বেকার হয়ে পড়েছেন লালমোহনের ২৩ হাজার জেলে। নিষেধাজ্ঞা থাকায় নদীতে যেতে না পারায় তারা পরিবার-পরিজন নিয়ে পড়েছেন চরম বিপাকে। অভাব-অনাটন আর অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটছে তাদের।
জেলে পুর্নঃ বাসনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে চাল বরাদ্দ দেয়া হলেও সেই চাল এখনও পৌঁছায়নি জেলেদের কাছে। এতে কস্টে আছেন জেলেরা। উপজেলা মৎস্য অফিস থেকে জানা যায়, লালমোহন উপজেলায় ২৩ হাজার জেলে থাকলেও এবার চাল বরাদ্দ আসছে ১১ হাজার জেলে নামে। এতে ১২ হাজার জেলে পূর্নবাসনের চাল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। মাছের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতি বছরের মত এ বছরও ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার এলাকায় ইলিশ সহ সকল ধরনের মাছ ধরা বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে।
প্রশাসনের নির্দেশ মানতে নদীতে যেতে পারছেন না জেলেরা। জাল-নৌকা তুলে ঘাটে নিয়ে রেখেছেন। কেউ বা বিকল্প পেশা খুজছেন। তবে পেটর টানে কিছু সংখ্যক জেলে নদীতে নামলেও তাদের আটক হয়ে জেল-জরিমানা গুনতে হচ্ছে হচ্ছে।
লালমোহনের বাতির খাল মৎস্য ঘাটের মোঃ আলমগীর মাঝি জানান,আমার নৌকার ১৮ জন নিয়ে নদীতে মাছ ধরা থেকে বিরত আছি।মাছ ধরা বন্ধ থাকায় আমরা ধরা দেনা থাকায় আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে কষ্ট দিন কাটছে।এখনো জেলে পূর্নবাসনের চাল পাইনি।
আরেক জেলের মতো সিরাজ ও মোঃ রিপন জানান, মাছ ধরা বন্ধ থাকায় আমরা জাল বুনে দিন পার করছি।কবে থেকে জেলে পুর্নবাসনের চাল পাবো তা এখনও অনিশ্চিত। সরকারে কাছে আমাদের দাবী আমরা যেন দূরত্ব চাল পাই সে ব্যবস্থা করে দেয়।
এ ব্যাপারে লালমোহন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রুহুল কুদ্দুস জানিয়েছেন, আগামী তিন-চার দিনের ভিতরে জেলেদের চাউল বিতরণ করা হবে। তখন জেলেদের এই সমস্যা আর থাকবে না।
তিনি আরো জানান, যে পরিমাণ চাল বরাদ্দ আছে।তা পরিমানের ছাড়াও কম। ২৩ হাজারোও বেশি জেলে আছে।বরাদ্দ আসছে ১১ হাজারের।যদি পরবর্তীতে বরাদ্দ আসে, তাহলে বাকি জেলেদেরকে দেয়া হবে। আর যদি না আসে তাহলে মৎস্য অফিস কি ভাবে দিবো।