বাংলাদেশ ০২:০১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে
উলিপুর ০১ নং থেতরাই ইউনিয়নের ইউপি পরিষদের আসবাবপত্র ভাংচুর

উলিপুর ০১ নং থেতরাই ইউনিয়নের ইউপি পরিষদের আসবাবপত্র ভাংচুর

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৭:৪১:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২২
  • ১৮৯৩ বার পড়া হয়েছে

উলিপুর ০১ নং থেতরাই ইউনিয়নের ইউপি পরিষদের আসবাবপত্র ভাংচুর

 

 

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি।

কুড়িগ্রামের উলিপুরে উপজেলার ১নং থেতরাই ইউনিয়নের ইউপি পরিষদের ভিতরে থাকা আসবাবপত্র ভেংগে ফেলেছেন অত্র ইউনিয়নের খামার গ্রামের সেকেন্দার আলীর পুত্র মোঃ সালাহ উদ্দিন (৪০)।

জানা যায়, রবিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে। উক্ত ইউনিয়নের সচিব জনাব রাসেল ফরহাদ বলেন আমরা প্রতিদিনের ন্যায় অফিসে বসে কাজ করিতেছি হঠাৎ চেয়ারম্যানের অফিস কক্ষের ভিতরে ভাংচুর চলতেছে। আমার কক্ষ থেকে গিয়ে দেখি সালাহ উদ্দিন নামের এক ছেলে অফিস কক্ষের আসবাব পত্র ভেংগে ফেলতেছে। সঙ্গে সঙ্গে উপজেলা প্রশাসন স্যার কে এবং থানায় অবগত করি। উলিপুর থানা থেকে আসা এ এস আই জনাব রুহুল আমীন ঘটনাস্থল সরেজমিনে পরিদর্শন করেন এবং ভাংচুরের সত্যতা পান।

 

ঘটনা স্থলে থাকা গ্রাম পুলিশ ফুলবাবু, আকবর, এমদাদুল, নাজমুল,মলিন, হাফিজুর এবং দাপাদার শাহালম বলেন, সালাহ উদ্দিন ইউপি পরিষদের সামনে এসে বলে চেয়ারম্যান কোথায় উনি নাকি আমার পা ভেঙ্গে দিবে। তারা উত্তরে বলেছে এখন তো চেয়ারম্যান উপস্থিত নেই আসলে দেখা যাবে কি হয়েছে। ওই সময় চেয়ারম্যানের ভাতিজা হাবিবুল্লাহ (২৩) বলেন আপনি তো চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ফেছবুকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রকম স্টাটাস দেন যা ভালো মানায় না। এ সব কথা বলতেই কথা কাটাকাটির এক পর্যায় মারামারি শুরু হয়। পরে তাকে ইউপি পরিষদের ভিতরে আটকিয়ে রাখে যে চেয়ারম্যান না আসা পর্যন্ত ছেড়ে দেয়া হবেনা। পরে এক পর্যায় একই গ্রামের গোলাম রব্বানি মেম্বারের ছেলে মোঃ ওবাইদুল ইসলাম (৪০) সালাহ উদ্দদিন কে উদ্ধার করতে আসলে সালাহ উদ্দিন উত্তেজিত হয়ে পরিষদের ভিতরে থাকা আসবাব পত্র ভেঙ্গে ফেলেন। যানা যায়, ছালাহ উদ্দিন বর্তমান বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে চাকুরি করেন।

 

এ বিষয়ে উক্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব আতাউর রহমান আতা বলেন, আমি ইউপি অফিস কক্ষে ছিলাম না। আমি এ সব ঘটনা থানায় জানিয়েছি ওসি মহোদয় ব্যাবস্থা গ্রহন করবেন।

 

এ বিষয়ে উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির বলেন আমি ঘটনা স্থলে তদন্তের জন্য পুলিশ পাঠিয়েছি। তদন্ত শেষে জানতে পারব।

 

 

 

জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

উলিপুর ০১ নং থেতরাই ইউনিয়নের ইউপি পরিষদের আসবাবপত্র ভাংচুর

উলিপুর ০১ নং থেতরাই ইউনিয়নের ইউপি পরিষদের আসবাবপত্র ভাংচুর

আপডেট সময় ০৭:৪১:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২২

 

 

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি।

কুড়িগ্রামের উলিপুরে উপজেলার ১নং থেতরাই ইউনিয়নের ইউপি পরিষদের ভিতরে থাকা আসবাবপত্র ভেংগে ফেলেছেন অত্র ইউনিয়নের খামার গ্রামের সেকেন্দার আলীর পুত্র মোঃ সালাহ উদ্দিন (৪০)।

জানা যায়, রবিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে। উক্ত ইউনিয়নের সচিব জনাব রাসেল ফরহাদ বলেন আমরা প্রতিদিনের ন্যায় অফিসে বসে কাজ করিতেছি হঠাৎ চেয়ারম্যানের অফিস কক্ষের ভিতরে ভাংচুর চলতেছে। আমার কক্ষ থেকে গিয়ে দেখি সালাহ উদ্দিন নামের এক ছেলে অফিস কক্ষের আসবাব পত্র ভেংগে ফেলতেছে। সঙ্গে সঙ্গে উপজেলা প্রশাসন স্যার কে এবং থানায় অবগত করি। উলিপুর থানা থেকে আসা এ এস আই জনাব রুহুল আমীন ঘটনাস্থল সরেজমিনে পরিদর্শন করেন এবং ভাংচুরের সত্যতা পান।

 

ঘটনা স্থলে থাকা গ্রাম পুলিশ ফুলবাবু, আকবর, এমদাদুল, নাজমুল,মলিন, হাফিজুর এবং দাপাদার শাহালম বলেন, সালাহ উদ্দিন ইউপি পরিষদের সামনে এসে বলে চেয়ারম্যান কোথায় উনি নাকি আমার পা ভেঙ্গে দিবে। তারা উত্তরে বলেছে এখন তো চেয়ারম্যান উপস্থিত নেই আসলে দেখা যাবে কি হয়েছে। ওই সময় চেয়ারম্যানের ভাতিজা হাবিবুল্লাহ (২৩) বলেন আপনি তো চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ফেছবুকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রকম স্টাটাস দেন যা ভালো মানায় না। এ সব কথা বলতেই কথা কাটাকাটির এক পর্যায় মারামারি শুরু হয়। পরে তাকে ইউপি পরিষদের ভিতরে আটকিয়ে রাখে যে চেয়ারম্যান না আসা পর্যন্ত ছেড়ে দেয়া হবেনা। পরে এক পর্যায় একই গ্রামের গোলাম রব্বানি মেম্বারের ছেলে মোঃ ওবাইদুল ইসলাম (৪০) সালাহ উদ্দদিন কে উদ্ধার করতে আসলে সালাহ উদ্দিন উত্তেজিত হয়ে পরিষদের ভিতরে থাকা আসবাব পত্র ভেঙ্গে ফেলেন। যানা যায়, ছালাহ উদ্দিন বর্তমান বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে চাকুরি করেন।

 

এ বিষয়ে উক্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব আতাউর রহমান আতা বলেন, আমি ইউপি অফিস কক্ষে ছিলাম না। আমি এ সব ঘটনা থানায় জানিয়েছি ওসি মহোদয় ব্যাবস্থা গ্রহন করবেন।

 

এ বিষয়ে উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির বলেন আমি ঘটনা স্থলে তদন্তের জন্য পুলিশ পাঠিয়েছি। তদন্ত শেষে জানতে পারব।