বাংলাদেশ ০৭:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
সালথার জয়ঝাফ উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা । পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে ছিল নানান আয়োজন, আজ বেশিভাগ ধর্মপ্রাণ মানুষেরা রোজা রেখেছেন জাতির পিতার সমাধিতে নেত্রকোনা-১ এবং ময়মনসিংহ- ১০ আসনের সংসদ সদস্যদের শ্রদ্ধা নিবেদন। কাউখালীতে ব্রীজ নির্মান কাজ ৫ বছরে শেষ না হওয়ায় জনগনের ভোগান্তি চরমে। টাকার বিনিময়ে সরকারী চাকুরী প্রলোভনকারী প্রতারক চক্রের মূলহোতাসহ ০২ জন প্রতারককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১। গলা কেটে মাথা বিচ্ছিন্ন করে নৃশংসভাবে হত্যার চাঞ্চল্যকর ঘটনায় অন্যতম প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৩। দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয় ও পরিদর্শন শাখার শিক্ষক- কর্মকর্তাগণ পদোন্নতি বঞ্চিত, শিক্ষকদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ! বানারীপাড়ায় প্রেসক্লাবের সম্পাদক সুজন মোল্লার বড় বোনের ইন্তেকাল বরিশাল জেলা বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি শফিক শাহিন সম্পাদক মনিরুজ্জামান শেষ ঠিকানার কারিগর মনু মিয়া। বিপুল পরিমাণ ট্রেনের টিকেটসহ ০৫ জন টিকেট কালোবাজারিকে গ্রেফতার নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক সমিতি নির্বাচন কিশোরী গণধর্ষণের মূল হোতা ফাহিম হাসান দিহান কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১। অসাধু সিন্ডিকেটের কারনে রমজানের আগেই হুরহুর করে বাড়ছে নিত্যপন্যের দাম!  শত বছরের ঐতিহ্য ধরে রেখেছে সিরাজদীখানের”পাতক্ষীর”

মুক্তিযোদ্ধা দাবি করা জিয়া ছিল বঙ্গবন্ধু হত্যার মুলহোতা: সাবেক সাংসদ মাহমুদুর রহমান বেলায়েত

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৭:৩৫:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ মার্চ ২০২২
  • ১৬৬৫ বার পড়া হয়েছে

মুক্তিযোদ্ধা দাবি করা জিয়া ছিল বঙ্গবন্ধু হত্যার মুলহোতা: সাবেক সাংসদ মাহমুদুর রহমান বেলায়েত

  নোয়াখালী প্রতিনিধি
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধকালীন বৃহত্তর নোয়াখালীর মুজিব বাহিনীর কমান্ডার ও সাবেক সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহমুদুর রহমান বেলায়েত বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ধারণাই ছিলনা, তিনি আমাকে বললেন বঙ্গবন্ধুকে তো বাঁচাতে পারলেন না। এটা পরিস্কার ছিল বঙ্গবন্ধু হত্যার মুলহোতা দুইজন। একজন খন্দকার মোস্তাক, আরেকজন হলো যে আমাদের মুক্তিযোদ্ধা দাবি করে সেই জিয়াউর রহমান। তারা অনেক বারই বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরিকল্পনা করে।

মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) বিকালে নোয়াখালী জিলা স্কুল মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

জনসভায় নোয়াখালীর অপরাজনীতির বিষয়ে কথা বলেন স্থানীয় বক্তারা। তাাঁরা বলেন, এখানকার সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী দলের পদ-পদবীতে বলিয়ান হয়ে দলীয় প্রতীকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে অপরাজনীতির চর্চা করেছেন। দলের ভিতরে স্থান দিয়ে বিএনপি-জামায়াত এবং হাইব্রিডদের অর্থশালী করেছেন। অবমূল্যায়ন করেছেন দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের। জেলায় টেন্ডার বাণিজ্য, নিয়োগ বাণিজ্যসহ নানা দুর্ণীতিতে নিজের বলয় গড়ে তুলেছেন। শুধু তাই নয়, দলীয় সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে তাদের সম্মান হানি করছেন। তার এইসব অপকর্মের কারণে দলীয় ফোরামে সর্বসম্মতিতে তাকে জেলা আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার করে চুড়ান্তভাবে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রের কাছে রেজুলেশনের মাধ্যমে সুপারিশ করা হয়েছে।

জনসভায় উপস্থিত জেলা, উপজেলা পর্যায়ের দলীয় নেতা এবং কর্মী-সমর্থকরা একরামুল করিম চৌধুরীকে দলীয় পদ থেকে চুড়ান্তভাবে বহিষ্কারের জন্য গণদাবি তোলেন।

জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর।

জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক অধ্যক্ষ এ.এইচ.এম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিমের সভাপতিত্বে ও শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ পিন্টুর সঞ্চালনায় জনসভায় জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, সহিদ উল্যাহ খান সোহেলসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

 

জনসভাকে ঘিরে সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে দলীয় নেতাকর্মীরা জড়ো হয় জেলা শহর মাইজদীতে। জনসভায় অর্ধলক্ষাধিক আওয়ামী লীগ, যুব লীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী অংশ নেয়।

 

 

আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

সালথার জয়ঝাফ উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ।

মুক্তিযোদ্ধা দাবি করা জিয়া ছিল বঙ্গবন্ধু হত্যার মুলহোতা: সাবেক সাংসদ মাহমুদুর রহমান বেলায়েত

আপডেট সময় ০৭:৩৫:৫৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ মার্চ ২০২২

  নোয়াখালী প্রতিনিধি
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধকালীন বৃহত্তর নোয়াখালীর মুজিব বাহিনীর কমান্ডার ও সাবেক সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহমুদুর রহমান বেলায়েত বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ধারণাই ছিলনা, তিনি আমাকে বললেন বঙ্গবন্ধুকে তো বাঁচাতে পারলেন না। এটা পরিস্কার ছিল বঙ্গবন্ধু হত্যার মুলহোতা দুইজন। একজন খন্দকার মোস্তাক, আরেকজন হলো যে আমাদের মুক্তিযোদ্ধা দাবি করে সেই জিয়াউর রহমান। তারা অনেক বারই বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরিকল্পনা করে।

মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) বিকালে নোয়াখালী জিলা স্কুল মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

জনসভায় নোয়াখালীর অপরাজনীতির বিষয়ে কথা বলেন স্থানীয় বক্তারা। তাাঁরা বলেন, এখানকার সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী দলের পদ-পদবীতে বলিয়ান হয়ে দলীয় প্রতীকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে অপরাজনীতির চর্চা করেছেন। দলের ভিতরে স্থান দিয়ে বিএনপি-জামায়াত এবং হাইব্রিডদের অর্থশালী করেছেন। অবমূল্যায়ন করেছেন দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের। জেলায় টেন্ডার বাণিজ্য, নিয়োগ বাণিজ্যসহ নানা দুর্ণীতিতে নিজের বলয় গড়ে তুলেছেন। শুধু তাই নয়, দলীয় সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে তাদের সম্মান হানি করছেন। তার এইসব অপকর্মের কারণে দলীয় ফোরামে সর্বসম্মতিতে তাকে জেলা আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার করে চুড়ান্তভাবে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রের কাছে রেজুলেশনের মাধ্যমে সুপারিশ করা হয়েছে।

জনসভায় উপস্থিত জেলা, উপজেলা পর্যায়ের দলীয় নেতা এবং কর্মী-সমর্থকরা একরামুল করিম চৌধুরীকে দলীয় পদ থেকে চুড়ান্তভাবে বহিষ্কারের জন্য গণদাবি তোলেন।

জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর।

জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক অধ্যক্ষ এ.এইচ.এম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিমের সভাপতিত্বে ও শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ পিন্টুর সঞ্চালনায় জনসভায় জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, সহিদ উল্যাহ খান সোহেলসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

 

জনসভাকে ঘিরে সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে দলীয় নেতাকর্মীরা জড়ো হয় জেলা শহর মাইজদীতে। জনসভায় অর্ধলক্ষাধিক আওয়ামী লীগ, যুব লীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী অংশ নেয়।