বাংলাদেশ ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে
ছোট একটি কুড়েঘর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার -একাধিকবার আবেদন করে মেলেনি প্রধানমন্ত্রীর উপহার!!

ছোট একটি কুড়েঘর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার -একাধিকবার আবেদন করে মেলেনি প্রধানমন্ত্রীর উপহার!!

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:০১:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২২
  • ১৭৭৯ বার পড়া হয়েছে

ছোট একটি কুড়েঘর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার -একাধিকবার আবেদন করে মেলেনি প্রধানমন্ত্রীর উপহার!!

 

 

 

মোঃ ছায়েদ হোসেন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতাঃ 

ছোট একটি কুড়েঘর, দরজাসহ চারপাশের বেড়াগুলি ভাঙ্গাচুরা, উপরের টিনগুলিও বিভিন্ন স্থানে ছিদ্র। অরক্ষিত ও জরার্জীন এ ঘরে ঝুকিপূর্ণভাবে বসবাস করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম নুরুল ইসলামের পরিবার। রামগঞ্জ উপজেলা মধ্যবিঘা গ্রামের নেছার বাড়িতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় এমন দৃশ্য। এ সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের বৃদ্ধ স্ত্রী ফাতেমা বেগম বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা ক্যাটাগরিতে একটি বসতঘরের জন্য একাধিকবার উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের নিকট আবেদন করেছি, এমপির কাছেও গিয়েছি, সবাই আশস্ত করেছেন।

 

 

কিন্তু মমতাময়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য দেওয়া একটি ঘর এখনো পায়নি। অথচয় অনেক স্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধারা ঘর পেয়েছেন। তিনি আরো জানান, তাঁর স্বামী নুরুল ইসলাম অবসরপ্রাপ্ত সেনা অফিসার ছিলেন, ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহন করেন। তাঁর মুক্তিযোদ্ধা বেসামরিক গেজেটে ৬১১। তিনি দীর্ঘদিন অসুস্থ অবস্থায় থেকে ১৯৯৮ সালে মারা যান। তাঁর স্বামীর এ ঘর, এ ঘর ভিটির জমি ছাড়া আর কোন সম্পত্তি নেই। ১ ছেলে ও ২ মেয়ে । ছেলেটি শারিরিক প্রতিবন্ধী । তাদের একমাত্র আয়ের উৎস মুক্তিযোদ্ধা ভাতা। তা দিয়ে চিকিৎসা, ঔষধ,ও ভরন-পোষনে খুব কষ্টের মাঝে দিন কাটছেন।

 

 

এ অবস্থায় একটি ঘর করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই তিনি একটি ঘরের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেন। উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আনোয়ার হোসেন বলেন, মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা বেগমের আবেদন পেয়ে উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের ডেপুটি কমান্ডার সালেহ আহমেদসহ ওই বাড়িতে গিয়েছি। বাস্তবিক তিনি অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ঘর পাওয়ার যোগ্য। সামনে বরাদ্দ আসলে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে একটি ঘর বরাদ্ধ দেওয়া হবে।

 

 

 

 

জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

ছোট একটি কুড়েঘর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার -একাধিকবার আবেদন করে মেলেনি প্রধানমন্ত্রীর উপহার!!

ছোট একটি কুড়েঘর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার -একাধিকবার আবেদন করে মেলেনি প্রধানমন্ত্রীর উপহার!!

আপডেট সময় ০৫:০১:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২২

 

 

 

মোঃ ছায়েদ হোসেন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতাঃ 

ছোট একটি কুড়েঘর, দরজাসহ চারপাশের বেড়াগুলি ভাঙ্গাচুরা, উপরের টিনগুলিও বিভিন্ন স্থানে ছিদ্র। অরক্ষিত ও জরার্জীন এ ঘরে ঝুকিপূর্ণভাবে বসবাস করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম নুরুল ইসলামের পরিবার। রামগঞ্জ উপজেলা মধ্যবিঘা গ্রামের নেছার বাড়িতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় এমন দৃশ্য। এ সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের বৃদ্ধ স্ত্রী ফাতেমা বেগম বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা ক্যাটাগরিতে একটি বসতঘরের জন্য একাধিকবার উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের নিকট আবেদন করেছি, এমপির কাছেও গিয়েছি, সবাই আশস্ত করেছেন।

 

 

কিন্তু মমতাময়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য দেওয়া একটি ঘর এখনো পায়নি। অথচয় অনেক স্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধারা ঘর পেয়েছেন। তিনি আরো জানান, তাঁর স্বামী নুরুল ইসলাম অবসরপ্রাপ্ত সেনা অফিসার ছিলেন, ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহন করেন। তাঁর মুক্তিযোদ্ধা বেসামরিক গেজেটে ৬১১। তিনি দীর্ঘদিন অসুস্থ অবস্থায় থেকে ১৯৯৮ সালে মারা যান। তাঁর স্বামীর এ ঘর, এ ঘর ভিটির জমি ছাড়া আর কোন সম্পত্তি নেই। ১ ছেলে ও ২ মেয়ে । ছেলেটি শারিরিক প্রতিবন্ধী । তাদের একমাত্র আয়ের উৎস মুক্তিযোদ্ধা ভাতা। তা দিয়ে চিকিৎসা, ঔষধ,ও ভরন-পোষনে খুব কষ্টের মাঝে দিন কাটছেন।

 

 

এ অবস্থায় একটি ঘর করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই তিনি একটি ঘরের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করেন। উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আনোয়ার হোসেন বলেন, মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা বেগমের আবেদন পেয়ে উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের ডেপুটি কমান্ডার সালেহ আহমেদসহ ওই বাড়িতে গিয়েছি। বাস্তবিক তিনি অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ঘর পাওয়ার যোগ্য। সামনে বরাদ্দ আসলে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে একটি ঘর বরাদ্ধ দেওয়া হবে।