বাংলাদেশ ১২:০২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মাগুরা প্রতারক চঞ্চল ও তার সহযোগীদের প্রতারণার শিকার জেড এম রাইচ এন্ড কনজুমার লিমিটেড এর এমডি বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানা পুলিশ কর্তৃক প্রায় ১০কেজি গাঁজাসহ মাদক কারবারি আটক পটুয়াখালীতে খাদ্য ও পুষ্টি মেলা অনুষ্ঠিত স্থানীয় কাউন্সিলর তোফায়েল আহমদ সেপুলের কোনো সম্পৃক্ততা ছিল না। মাধ্যমিক শিক্ষা ও শিক্ষকের বর্তমান অবস্থা: উন্নয়নে করণীয়। বেইলী রোডের কাচ্চিভাই নামক রেস্টুরেন্টে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সাহসী ভূমিকা পালন করছে র‌্যাব-৩। অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা মিজানুর রহমানকে জনতা ব্যাংকের নির্বাহী কর্মকর্তা হওয়ায় বেইলি রোডে একটি রেস্টুরেন্টে লাগা আগুন ফায়ার সার্ভিসের ১৩ টি ইউনিটের চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে। বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এপর্যন্ত ৬৮ জন জীবিত উদ্ধার, বদলগাছী উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত।  ভোটের সার্বিক কার্যক্রম কমিশন থেকে মনিটরিং ইসি সচিব জাহাঙ্গীর আলম কিশোর গ্যাং আমির গ্রুপের লীডার আমির সহ ০৯ সদস্য গ্রেফতার। নলছিটি তালতলা বাজার থেকে ৫ কেজি গাজা সহ গোশত ব্যবসায়ি ফারুক আটক বঙ্গবন্ধু মুক্তির সংগ্রাম বলতে অর্থনৈতিক মুক্তি বুঝিয়েছেন: কাজী খলীকুজ্জমান প্রায় অর্ধ কোটি টাকার অবৈধ মাদকদ্রব্য উদ্ধার: বিপুল পরিমান ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ০৩ জন বড় মাদক ব্যবসায়ী আটক এবং মাদক পরিবহনকারী গাড়ী জব্দ। জবিতে ‘আমরা তোমাদের ভুলবো না’ শীর্ষক অনুষ্ঠান আয়োজিত 

খানসামায় বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ, শয্যা শঙ্কট হাসপাতালে

খানসামায় বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ, শয্যা শঙ্কট হাসপাতালে

মোঃ নুরনবী ইসলাম, খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় হঠাৎ করেই বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ। গত ২৪ ঘণ্টায় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে অন্তত ২২ জন রোগী। এদের মধ্যে সবেচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে শিশুরা। ৫১ শয্যার এ হাসপাতালে মোট ৮৫ জন রোগী ভর্তি থাকায় শয্যা শঙ্কট দেখা যাওয়ায় অধিকাংশ রোগীদের হাসপাতালের মেঝে ও করিডোরে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও সম্প্রতি আউটডোরে প্রতিদিন কমপক্ষে দেড় শতাধিক রোগী ডায়রিয়ার প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে যাচ্ছে।

সরেজমিনে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে প্রায় ১৬ জন রোগী নির্ধারিত বেড ছাড়াও মেঝে ও করিডোরে শুয়ে বসে রয়েছেন। এদের মধ্যে শিশু রোগীর সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি।

খামারপাড়ার আবু মুসা নামে এক ব্যক্তি তার ভাগ্নেকে নিয়ে এসেছেন হাসপাতালে। তিনি জানান, হঠাৎ করে জ্বর-সর্দি ও কাশি হওয়ার পর পাতলা পায়খানা শুরু হয়। বাড়িতে কোনো সমাধান না হওয়ায় হাসপাতালে আসতে হয়েছে।

আঙ্গারপাড়া গ্রাম থেকে আসা আয়েশা বেগম জানান, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত তার স্বামীকে বাড়িতে রেখে দু’দিন চিকিৎসা দেওয়ার পর কোনো কাজ না হওয়ায় অবশেষে হাসপাতালে তারা এসেছেন। এখানেই তিনদিন ধরে চিকিৎসা চলছে তার।

চকসাকোয়া গ্রামের রহিমা খাতুন জানান, রাতে খাওয়ার পর ঘুমিয়ে যাই। সকালে উঠে দেখি দুই তিনবার পাতলা পায়খানা হচ্ছে। মনে করেছি ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু সুস্থ না হওয়ার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ আসিফ জাহান পিয়াস খান বলেন, আবহাওয়া পরিবর্তনজনিত কারনেই এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। সুস্থ থাকতে বিশুদ্ধ পানি পানের পাশাপাশি বাসি খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। খাওয়ার পূর্বে ও টয়লেট থেকে বের হওয়ার পর ভাল ভাবে সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। প্রয়োজনে স্যালাইন খেতে হবে।

আবাসিক মেডিকেল অফিসার শামসুদ্দোহা মুকুল বলেন, শীতের শেষে গরম আবহাওয়ার কারণেই হঠাৎ করে ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়ে গেছে। তবে একটু সতর্কতার সঙ্গে শিশুদের খাবার খাওয়ানোর পাশাপাশি নিজেদেরও সতর্ক থাকতে হবে। হাসপাতালে রোগীর চাপ বাড়লেও তাদের সেবা দিতে রয়েছে পর্যাপ্ত ঔষধ ও স্যালাইন।

জনপ্রিয় সংবাদ

মাগুরা প্রতারক চঞ্চল ও তার সহযোগীদের প্রতারণার শিকার জেড এম রাইচ এন্ড কনজুমার লিমিটেড এর এমডি

খানসামায় বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ, শয্যা শঙ্কট হাসপাতালে

আপডেট সময় ১২:৪০:৩৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ মার্চ ২০২২

মোঃ নুরনবী ইসলাম, খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় হঠাৎ করেই বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ। গত ২৪ ঘণ্টায় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে অন্তত ২২ জন রোগী। এদের মধ্যে সবেচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে শিশুরা। ৫১ শয্যার এ হাসপাতালে মোট ৮৫ জন রোগী ভর্তি থাকায় শয্যা শঙ্কট দেখা যাওয়ায় অধিকাংশ রোগীদের হাসপাতালের মেঝে ও করিডোরে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও সম্প্রতি আউটডোরে প্রতিদিন কমপক্ষে দেড় শতাধিক রোগী ডায়রিয়ার প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে যাচ্ছে।

সরেজমিনে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে প্রায় ১৬ জন রোগী নির্ধারিত বেড ছাড়াও মেঝে ও করিডোরে শুয়ে বসে রয়েছেন। এদের মধ্যে শিশু রোগীর সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি।

খামারপাড়ার আবু মুসা নামে এক ব্যক্তি তার ভাগ্নেকে নিয়ে এসেছেন হাসপাতালে। তিনি জানান, হঠাৎ করে জ্বর-সর্দি ও কাশি হওয়ার পর পাতলা পায়খানা শুরু হয়। বাড়িতে কোনো সমাধান না হওয়ায় হাসপাতালে আসতে হয়েছে।

আঙ্গারপাড়া গ্রাম থেকে আসা আয়েশা বেগম জানান, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত তার স্বামীকে বাড়িতে রেখে দু’দিন চিকিৎসা দেওয়ার পর কোনো কাজ না হওয়ায় অবশেষে হাসপাতালে তারা এসেছেন। এখানেই তিনদিন ধরে চিকিৎসা চলছে তার।

চকসাকোয়া গ্রামের রহিমা খাতুন জানান, রাতে খাওয়ার পর ঘুমিয়ে যাই। সকালে উঠে দেখি দুই তিনবার পাতলা পায়খানা হচ্ছে। মনে করেছি ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু সুস্থ না হওয়ার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ আসিফ জাহান পিয়াস খান বলেন, আবহাওয়া পরিবর্তনজনিত কারনেই এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। সুস্থ থাকতে বিশুদ্ধ পানি পানের পাশাপাশি বাসি খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। খাওয়ার পূর্বে ও টয়লেট থেকে বের হওয়ার পর ভাল ভাবে সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। প্রয়োজনে স্যালাইন খেতে হবে।

আবাসিক মেডিকেল অফিসার শামসুদ্দোহা মুকুল বলেন, শীতের শেষে গরম আবহাওয়ার কারণেই হঠাৎ করে ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়ে গেছে। তবে একটু সতর্কতার সঙ্গে শিশুদের খাবার খাওয়ানোর পাশাপাশি নিজেদেরও সতর্ক থাকতে হবে। হাসপাতালে রোগীর চাপ বাড়লেও তাদের সেবা দিতে রয়েছে পর্যাপ্ত ঔষধ ও স্যালাইন।