বাংলাদেশ ১২:১৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ ও হত্যার পলাতক আসামী গ্রেফতার।  তালতলীর খালাকে হত্যার পর কানের রিং বিক্রি করে খুনিকে টাকা দেয় ভাগ্নে কলাপাড়ায় এক সন্তানের জননীকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ নতুন কারিকুলাম বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সুপারিশ রাঙ্গাবালীতে মৎস্য ব্যবসায়ী রাসাদ হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন। পিঠা উৎসব ও বসন্ত বরনকে কেন্দ্র করে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মিলন মেলায় পরিনত  নাটোরের বড়াইগ্রামে বর্ণিল আয়োজনে পিঠা উৎসব ও বসন্ত বরণ। পঞ্চগড়ের বোদায় ট্যাপেন্ডাডল ট্যাবলেটসহ ২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। রায়গঞ্জের বিভিন্ন গাছে গাছে দেখা যাচ্ছে আমের মুকুল মুক্তিযোদ্বা প্রজন্ম লীগ সভাপতিকে কুপিয়ে জখমকে কেন্দ্র করে পিরোজপুর শহরে উত্তেজনা রাবিতে চাঁদপুর পরিবারের নেতৃত্বে ইমন-রাহিম ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ইঞ্জিঃ পিলাব মল্লিক (গোল্ডেন) -এর সংবাদ  সম্মেলন    ঝালকাঠিতে ৮টি গাঁজাগাছ ও ১৫পিস ইয়াবাসহ আটক-২ ঝালকাঠির নবগ্রামের শতবর্ষী রেইন্ট্রি গাছ নিয়ে গুনাই বিবি নাটকের রূপ কথার গল্প চার শিশুর জন্ম দিল এক মা। শিশুরা সবাই সুস্থ আছেন।

নারী নির্যাতন মামলা করায় বাদীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ 

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১২:৩৭:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩
  • ১৬০৩ বার পড়া হয়েছে

নারী নির্যাতন মামলা করায় বাদীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ 

স্টাফ রিপোর্টার: 

ভোলায় নারী নির্যাতন এর মামলা করায় বাদীর বিরুদ্ধে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে বাদীর স্বামী হাসনাইন আহমেদ এর চাচাতো ভাই জাহিদ আহমেদ আকিব এর বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ভোলার বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের মামলার বাদী মুসফিকা নাজনীন ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে এই মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির করার অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী মুসফিকা নাজনীন।

ভুক্তভোগীদের ও নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার বাদী সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ নভেম্বর ভোলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল এর বিচারক আনোয়ারুল হক এর কোর্টে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বাদী মুসফিকা নাজনীন তার স্বামী হাসনাইন আহমেদ কে প্রধান আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলা করায় আসামি পক্ষ ক্ষিপ্ত হয়ে বাদী ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে হয়রানি করার উদ্দেশ্যে অহেতুক মিথ্যা মামলা দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগী মুসফিকা নাজনীন অভিযোগ করে বলেন, আমাকে আমার স্বামী যৌতুকের জন্য অমানুষিক করতো। সেই নির্যাতন সইতে না পেরে আদালতে একটি যৌতুক মামলা করি। সে মামলা থেকে জামিন নিয়ে আমার স্বামী হাসনাইন আহমেদ ও তার পরিবারের লোকজন আমার ওপর অমানবিক নির্যাতন করে, রাস্তায় ফেলে আমাকে মারধর করে।

আমার ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে আমাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। সেই নির্যাতনের বিচার চাইতে গিয়ে আমি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে নারী নির্যাতন মামলা করি। সেই মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি হলে তারা আমার পরিবারকে সমাধানের জন্য প্রস্তাব দেয়।

সমাধানে বসার দিন তারা গোপনে আমি ও আমার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা করেন। কেন আমিও আমার পরিবারের বিরুদ্ধে এই মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বানোয়াট মামলা দেওয়া হয়েছে আমি এর সঠিক বিচার দাবি করছি।

জনপ্রিয় সংবাদ

স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ ও হত্যার পলাতক আসামী গ্রেফতার। 

নারী নির্যাতন মামলা করায় বাদীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ 

আপডেট সময় ১২:৩৭:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার: 

ভোলায় নারী নির্যাতন এর মামলা করায় বাদীর বিরুদ্ধে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইনে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে বাদীর স্বামী হাসনাইন আহমেদ এর চাচাতো ভাই জাহিদ আহমেদ আকিব এর বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ভোলার বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের মামলার বাদী মুসফিকা নাজনীন ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে এই মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির করার অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী মুসফিকা নাজনীন।

ভুক্তভোগীদের ও নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার বাদী সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ নভেম্বর ভোলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল এর বিচারক আনোয়ারুল হক এর কোর্টে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বাদী মুসফিকা নাজনীন তার স্বামী হাসনাইন আহমেদ কে প্রধান আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলা করায় আসামি পক্ষ ক্ষিপ্ত হয়ে বাদী ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে হয়রানি করার উদ্দেশ্যে অহেতুক মিথ্যা মামলা দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগী মুসফিকা নাজনীন অভিযোগ করে বলেন, আমাকে আমার স্বামী যৌতুকের জন্য অমানুষিক করতো। সেই নির্যাতন সইতে না পেরে আদালতে একটি যৌতুক মামলা করি। সে মামলা থেকে জামিন নিয়ে আমার স্বামী হাসনাইন আহমেদ ও তার পরিবারের লোকজন আমার ওপর অমানবিক নির্যাতন করে, রাস্তায় ফেলে আমাকে মারধর করে।

আমার ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে আমাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। সেই নির্যাতনের বিচার চাইতে গিয়ে আমি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে নারী নির্যাতন মামলা করি। সেই মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি হলে তারা আমার পরিবারকে সমাধানের জন্য প্রস্তাব দেয়।

সমাধানে বসার দিন তারা গোপনে আমি ও আমার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা করেন। কেন আমিও আমার পরিবারের বিরুদ্ধে এই মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বানোয়াট মামলা দেওয়া হয়েছে আমি এর সঠিক বিচার দাবি করছি।