বাংলাদেশ ০২:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
জবিতে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও প্রজন্মের নতুন কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ  মুলাদীতে নিজস্ব অর্থায়নে সামাজিক উন্নয়ন করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন ইউপি সদস্য ইরান হোসেন॥ ভালুকায় প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ সাংবাদিক জিগারুল ইসলাম রাঙ্গুনিয়ার মদিনাতুল উলুম মাদ্রাসার সভাপতি নির্বাচিত। পার্বতীপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে বিশিষ্ট সাংবাদিক আতিকুর রহমান আতিকের জোর তৎপরতা॥ ফুলবাড়ীতে কুকুরের কামড়ে ৮টি ছাগলে মৃত্যু বদলগাছীতে অভিনব কায়দায় লুকায়িত ৭২ কেজি গাঁজা উদ্ধার গ্রেফতার-১  ভালুকায় যুবলীগ নেতাকে ফাসানোর চেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত  রাবির ভোলা জেলা ছাত্রকল্যাণ সমিতির নেতৃত্বে জুলিয়া-মমিন বুড়িচংয়ে আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা  শিক্ষার্থীদের অনলাইন সেবা দিতে আমতলী সোনালী ব্যাংকের চুক্তিপত্র স্বাক্ষর রাবি ফটোগ্রাফিক ক্লাবের সভাপতি রেজওয়ান, সম্পাদক নাজমুল কার মদদে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ ট্রলি?রামগঞ্জে নিষিদ্ধ ট্রাক্টরের দাপট বিলিন হচ্ছে ফসলি জমি প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক ভূষিত হলেন গলাচিপা থানার ওসি ফেরদৌস খান গৌরীপুর উপজেলা সিপিবি’র সম্মেলনে নতুন কমিটি গঠন

লিচুর মুকুলে ছেয়ে গেছে মঙ্গলবাড়িয়া

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১০:১০:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ মার্চ ২০২২
  • ১৬৯১ বার পড়া হয়েছে

লিচুর মুকুলে ছেয়ে গেছে মঙ্গলবাড়িয়া

মাহফুজ রাজা, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ;
“লিচু কয় আমি লিচু,
আমার গুণ আছে কিছু,
সারারাত্রি বাদুড় দৌড়ায় আমার পিছু পিছু”
কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার পাকুন্দিয়া পৌরসভার  ছোট্ট একটি গ্রামের নাম মঙ্গলবাড়িয়া। এ গ্রামের এমন কোনো কৃষকের বাড়ি নেই যেখানে অত্যন্ত চার পাঁচটি লিচু গাছ নেই। লিচুর চাষ করে এখানকার চাষীদের আর্থিক সচ্ছলতা এসেছে।
জেলা সদর থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে মঙ্গলবাড়িয়া গ্রাম। এই গ্রামে লিচু চাষের প্রচলন ঠিক কত বছর আগে এবং কীভাবে শুরু হয়, এর সঠিক তথ্য নেই। স্থানীয়দের ধারণা, অন্তত শত বছর আগে এখানে লিচু চাষ শুরু হয়। আর এখানকার লিচু আসলে কোন জাতের তাও কেউ জানে না। গ্রামের নাম অনুসারে নামকরণ হয়েছে ‘মঙ্গলবাড়িয়া লিচু’।
মঙ্গলবাড়িয়ার লিচুর সুখ্যাতি রয়েছে এই অঞ্চলে। এই লিচু অত্যান্ত মিষ্ট এবং সুস্বাধু এই লিচু অন্যান্য লিচু থেকে সম্পর্ণ আলাদা কারণ তা বিছি একদম ছোট। পরিপূষ্ট মাংশাল থাকে এবং অনেক ছোট গাছে অতি তারা তারি লিচু আসে। দেশে বিদেশে এই লিচুর ভাল কদর রয়েছে।  এই এলাকার লোকজন লিচু বাগান বেশি করে লিচু ফলন খুবই ভাল হয়। বাড়ীর আঙ্গিনায় ক্ষেতের আইলে সব জায়গায় লিচু জন্মে। লিচুর সময় এই এলকায় আত্মীয় স্বজনের আনাগুনা বেড়ে যায়।
আনিস আহমেদ শিবলী বলেন,লিচু চাষ করে দেশে পরিচিতি পেয়েছে আমাদের এই মঙ্গলবাড়িয়া গ্রাম। চলতি মৌসুমে এই গ্রামের হাজার হাজার গাছে লিচুর ভালো ফুল হয়েছে। আবহাওয়া ভালো থাকলে ভালো ফলন হবে।
এই গ্রামের অনেক চাষি লিচু বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা আয় করছেন।
মঙ্গলবাড়িয়া গ্রামের লিচু প্রতি একশত লিচু ৪০০-৫০০ টাকায় বিক্রি হয় গাছের সব লিচু বিক্রি শেষ হওয়ার পর আবার গাছ পরিচর্যায় ব্যস্ত হতে হবে।
জেলা ‍কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার বলেন, মঙ্গলবাড়ি জাতের লিচু মানে ভালো। গ্রামের কৃষকরা এই জাতের লিচু চাষ করে স্বাবলম্বী হয়েছে।
জনপ্রিয় সংবাদ

জবিতে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও প্রজন্মের নতুন কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ 

লিচুর মুকুলে ছেয়ে গেছে মঙ্গলবাড়িয়া

আপডেট সময় ১০:১০:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ মার্চ ২০২২
মাহফুজ রাজা, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ;
“লিচু কয় আমি লিচু,
আমার গুণ আছে কিছু,
সারারাত্রি বাদুড় দৌড়ায় আমার পিছু পিছু”
কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার পাকুন্দিয়া পৌরসভার  ছোট্ট একটি গ্রামের নাম মঙ্গলবাড়িয়া। এ গ্রামের এমন কোনো কৃষকের বাড়ি নেই যেখানে অত্যন্ত চার পাঁচটি লিচু গাছ নেই। লিচুর চাষ করে এখানকার চাষীদের আর্থিক সচ্ছলতা এসেছে।
জেলা সদর থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে মঙ্গলবাড়িয়া গ্রাম। এই গ্রামে লিচু চাষের প্রচলন ঠিক কত বছর আগে এবং কীভাবে শুরু হয়, এর সঠিক তথ্য নেই। স্থানীয়দের ধারণা, অন্তত শত বছর আগে এখানে লিচু চাষ শুরু হয়। আর এখানকার লিচু আসলে কোন জাতের তাও কেউ জানে না। গ্রামের নাম অনুসারে নামকরণ হয়েছে ‘মঙ্গলবাড়িয়া লিচু’।
মঙ্গলবাড়িয়ার লিচুর সুখ্যাতি রয়েছে এই অঞ্চলে। এই লিচু অত্যান্ত মিষ্ট এবং সুস্বাধু এই লিচু অন্যান্য লিচু থেকে সম্পর্ণ আলাদা কারণ তা বিছি একদম ছোট। পরিপূষ্ট মাংশাল থাকে এবং অনেক ছোট গাছে অতি তারা তারি লিচু আসে। দেশে বিদেশে এই লিচুর ভাল কদর রয়েছে।  এই এলাকার লোকজন লিচু বাগান বেশি করে লিচু ফলন খুবই ভাল হয়। বাড়ীর আঙ্গিনায় ক্ষেতের আইলে সব জায়গায় লিচু জন্মে। লিচুর সময় এই এলকায় আত্মীয় স্বজনের আনাগুনা বেড়ে যায়।
আনিস আহমেদ শিবলী বলেন,লিচু চাষ করে দেশে পরিচিতি পেয়েছে আমাদের এই মঙ্গলবাড়িয়া গ্রাম। চলতি মৌসুমে এই গ্রামের হাজার হাজার গাছে লিচুর ভালো ফুল হয়েছে। আবহাওয়া ভালো থাকলে ভালো ফলন হবে।
এই গ্রামের অনেক চাষি লিচু বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা আয় করছেন।
মঙ্গলবাড়িয়া গ্রামের লিচু প্রতি একশত লিচু ৪০০-৫০০ টাকায় বিক্রি হয় গাছের সব লিচু বিক্রি শেষ হওয়ার পর আবার গাছ পরিচর্যায় ব্যস্ত হতে হবে।
জেলা ‍কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার বলেন, মঙ্গলবাড়ি জাতের লিচু মানে ভালো। গ্রামের কৃষকরা এই জাতের লিচু চাষ করে স্বাবলম্বী হয়েছে।