বাংলাদেশ ১০:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
হবিগঞ্জের মাধবপুরের তিন নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু পাষন্ড দুই সন্তানের হাতে মার খেয়ে মায়ের ঠাই হলো মাদ্রাসায় নাজিরপুরে ট্রাক চাপায় ভ্যান চালকের মৃত্যু রাজশাহী মহানগরীতে গ্রেফতার ৩জন ছিনতাইকারী দেবীগঞ্জে যৌতুকের বলি শাহনাজ হত্যার ৫দিন পর আদালতে মামলা মহানগরীতে ৮টি মামলার সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী রবিউল গ্রেফতার ত্রিশালে শুভেচ্ছা ও গণসংযোগে মাজহারুল ইসলাম জুয়েল পিরোজপুরে তিন উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ১০ প্রার্থীর মনোয়নপত্র দাখিল বাঙ্গালহালিয়া ধলিয়াপাড়া শিক্ষা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ রায়গঞ্জের হাটপাঙ্গাসীতে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ ব্রাহ্মণপাড়া ভগবান সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮৯ ব্যাচের ঈদ পূণর্মিলনী অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কাউনিয়ায় ১৩ প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল বগুড়া-নন্দীগ্রাম (উত্তর-কচুগাড়ী) গ্রামে ১৬ প্রহর ব্যাপী হরিবাসর অনুষ্ঠিত..!! হরিপুর চেয়ারম্যান পদে ৫ জনসহ ৯ জনের মনোনয়ন দাখিল

ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে এমপি একরামের কটূক্তি প্রতিবাদে নিন্দা প্রস্তাব ও মানববন্ধন

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৯:৫১:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১২ মার্চ ২০২২
  • ১৭৩৭ বার পড়া হয়েছে

ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে এমপি একরামের কটূক্তি প্রতিবাদে নিন্দা প্রস্তাব ও মানববন্ধন

 

 

নোয়াখালী প্রতিনিধি
নোয়াখালীর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সম্প্রতি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে লাইভে এসে নোয়াখালী-৪ (সদর-সুবর্ণচর) আসনের সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীর কটূক্তির প্রতিবাদে নিন্দা জানিয়ে সর্বসম্মতিক্রমে নিন্দা প্রস্তাব আনা হয়েছে।

শনিবার (১২ মার্চ) বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক খায়রুল আলম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন। তিনি বলেন,লাইভে এসে এমপি একরামের দেওয়া বক্তব্যের নিন্দা প্রস্তাব সর্বসম্মতিক্রমে আনা হয়। সভার প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপিও একরামের বক্তব্যের নিন্দা জানান। এমপি একরামের বিষয়ে তিনি আরও বলেন, ওনার বিরুদ্ধে সিন্ধান্ত আমাদের আগেই নেওয়া আছে। ওই সিন্ধান্ত রেজুলেশন করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। ওই বিষয়টা আজকের সভায় আবার কনফার্ম করা হয়েছে।

 

 

এছাড়া নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রায় ৫শতাধিক নেতাকর্মি মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে। মানববন্ধন থেকে নেতাকর্মিরা এমপি একরামকে তাঁর বিতর্কিত কর্মকান্ডের জন্য আজীবনের জন্য দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান। জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে। তার আগে সকল উপজেলা,ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে সম্মেলন শেষ করার জন্য প্রত্যেকটা উপজেলায় একটা সমন্বয় কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। তারাই সব সম্মেলন গুলো সমাপ্ত করবে।

 

অপরদিকে, এমপি একরামুল করিম চৌধুরীর পক্ষে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের একাংশ জেলা আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে প্রধান সড়কে বিক্ষোভ করে এবং এমপির পক্ষের স্লোগান দেয়। এসময়ে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং দু পক্ষকে সরিয়ে দেয়। এসময়ে একরাম সমর্থীতরা কাদের মির্জার বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়। এসময়ে জেলা আওয়ামী লীগের কার্য্যলয়ে বর্ধিত সভা চলে।

 

বিকাল সাড়ে তিনটা থেকে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে জেলা আ.লীগ কার্যালয়ের সামনে জড় হয় নেতাকর্মীরা। পরে শহরের প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে তারা। এক পর্যায়ে জেলা আ.লীগ কার্যালয় সামনে মানববন্ধনে মিলিত হয়। এতে শহরে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

 

এর আগে দুপুর তিনটায় সাংসদ একরাম সমর্থীতরা শহরে একরামুল করিম চৌধুরীর পক্ষে মিছিল করে। পরে তারা শহরের জামে মসজিদ মোড়ে জড়ো হলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এতে দু পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয় পরে পুলিশ ধাওয়া করে।

বর্ধিত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী-১ আসনের সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম এমপি, নোয়াখালী-২ আসনের সংসদ মোরশেদ আলম এমপি, নোয়াখালী-৩ আসনের সংসদ মামুনুুর রশীদ কিরণ এমপি, নোয়াখালী – ৬ আসনের সংসদ আয়েশা ফেরদৌসী। সংরক্ষিত আসনের এমপি ফরিদুর নাহার লাইলী এমপি, কেন্দ্র্যীয় আওয়ামী লীগের বিঞ্জান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইন্জিনিয়ার আবদুস সবুর, হাতিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী সাবেক এমপি, জেলা আহবায়ক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক পৌর মেয়র শহীদ উল্যা খান সোহেল, এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন।

 

 

 

জনপ্রিয় সংবাদ

হবিগঞ্জের মাধবপুরের তিন নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে এমপি একরামের কটূক্তি প্রতিবাদে নিন্দা প্রস্তাব ও মানববন্ধন

আপডেট সময় ০৯:৫১:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১২ মার্চ ২০২২

 

 

নোয়াখালী প্রতিনিধি
নোয়াখালীর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সম্প্রতি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে লাইভে এসে নোয়াখালী-৪ (সদর-সুবর্ণচর) আসনের সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীর কটূক্তির প্রতিবাদে নিন্দা জানিয়ে সর্বসম্মতিক্রমে নিন্দা প্রস্তাব আনা হয়েছে।

শনিবার (১২ মার্চ) বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক খায়রুল আলম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন। তিনি বলেন,লাইভে এসে এমপি একরামের দেওয়া বক্তব্যের নিন্দা প্রস্তাব সর্বসম্মতিক্রমে আনা হয়। সভার প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপিও একরামের বক্তব্যের নিন্দা জানান। এমপি একরামের বিষয়ে তিনি আরও বলেন, ওনার বিরুদ্ধে সিন্ধান্ত আমাদের আগেই নেওয়া আছে। ওই সিন্ধান্ত রেজুলেশন করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। ওই বিষয়টা আজকের সভায় আবার কনফার্ম করা হয়েছে।

 

 

এছাড়া নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রায় ৫শতাধিক নেতাকর্মি মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে। মানববন্ধন থেকে নেতাকর্মিরা এমপি একরামকে তাঁর বিতর্কিত কর্মকান্ডের জন্য আজীবনের জন্য দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান। জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে। তার আগে সকল উপজেলা,ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে সম্মেলন শেষ করার জন্য প্রত্যেকটা উপজেলায় একটা সমন্বয় কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। তারাই সব সম্মেলন গুলো সমাপ্ত করবে।

 

অপরদিকে, এমপি একরামুল করিম চৌধুরীর পক্ষে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের একাংশ জেলা আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে প্রধান সড়কে বিক্ষোভ করে এবং এমপির পক্ষের স্লোগান দেয়। এসময়ে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং দু পক্ষকে সরিয়ে দেয়। এসময়ে একরাম সমর্থীতরা কাদের মির্জার বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়। এসময়ে জেলা আওয়ামী লীগের কার্য্যলয়ে বর্ধিত সভা চলে।

 

বিকাল সাড়ে তিনটা থেকে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে জেলা আ.লীগ কার্যালয়ের সামনে জড় হয় নেতাকর্মীরা। পরে শহরের প্রধান সড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে তারা। এক পর্যায়ে জেলা আ.লীগ কার্যালয় সামনে মানববন্ধনে মিলিত হয়। এতে শহরে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

 

এর আগে দুপুর তিনটায় সাংসদ একরাম সমর্থীতরা শহরে একরামুল করিম চৌধুরীর পক্ষে মিছিল করে। পরে তারা শহরের জামে মসজিদ মোড়ে জড়ো হলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এতে দু পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয় পরে পুলিশ ধাওয়া করে।

বর্ধিত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী-১ আসনের সদস্য এইচ এম ইব্রাহিম এমপি, নোয়াখালী-২ আসনের সংসদ মোরশেদ আলম এমপি, নোয়াখালী-৩ আসনের সংসদ মামুনুুর রশীদ কিরণ এমপি, নোয়াখালী – ৬ আসনের সংসদ আয়েশা ফেরদৌসী। সংরক্ষিত আসনের এমপি ফরিদুর নাহার লাইলী এমপি, কেন্দ্র্যীয় আওয়ামী লীগের বিঞ্জান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইন্জিনিয়ার আবদুস সবুর, হাতিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী সাবেক এমপি, জেলা আহবায়ক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক পৌর মেয়র শহীদ উল্যা খান সোহেল, এডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীন, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন।