বাংলাদেশ ১১:৪৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মাদারীপুরের কালকিনিতে নববর্ষ উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রা মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে নতুন বছরকে বরণ করলো কুবি মানবতার হাত ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ও নগদ অর্থ প্রদান  ভান্ডারিয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় স্বামী-স্ত্রী সহ আহত ৫ আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক দল নেই দেউলিয়া হয়ে গেছে-মহাসচিব মির্জা ফখরুল পিরোজপুরে দোকানের কর্মচারীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে মালিকের বিরুদ্ধে হাটপাঙ্গাসীতে নতুন আঙ্গিকে ঐতিহ্যবাহী গরু-ছাগলের হাট উদ্বোধন মণিরামপুরে নানা আয়োজনে পহেলা বৈশাখ পালিত বর্ণাঢ্য আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত কালকিনিতে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে ঘুড়ি উড়ানো প্রতিযোগিতা নাইক্ষ্যংছড়িতে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বাংলা নববর্ষের বর্ণাঢ্য আয়োজন-পাহাড়িদের বৈশাখী শুরু কচুয়ায় নাস্তিক মুরাদের ফাঁসির দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত। রাজশাহী মহানগরীতে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রা পহেলা বৈশাখ উপলক্ষ্যে আরএমপিতে শুভেচ্ছা বিনিময় ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পদ্মায় গোসলে নেমে দুই শিশু নিখোঁজ

ভালুকায় অবৈধভাবে দখল হচ্ছে বনভুমি বনবিভাগের রহস্যজনক নিরবতা

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:০৩:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৫ মার্চ ২০২২
  • ১৬৮১ বার পড়া হয়েছে

ভালুকায় অবৈধভাবে দখল হচ্ছে বনভুমি বনবিভাগের রহস্যজনক নিরবতা

ওমর ফারুক তালুকদার, ভালুকাঃ-
ময়মনসিংহের ভালুকায় অবৈধ ভাবে বনভুমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে। অধিক পরিমান বনভুমি জবর দখল হচ্ছে উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়নে। বনভুমি রক্ষায় স্থানীয় বন বিভাগ কতটুকু সোচ্চার সেটা নিয়েই উঠেছে প্রশ্ন। সম্প্রতি হবিরবাড়ী রেঞ্জ কার্যালয় থেকে মাত্র ৫শ গজ দক্ষিনে হবিরবাড়ী মৌজার ১৫৪ নং দাগে অবৈধ ভাবে বনভুমি জবর দখল হচ্ছে। জানা যায় ১৫৪ নং দাগে অবৈধ ভাবে মাটি ভরাট করে জায়গাটা দখলে নেন জনৈক নজরুল ইসলাম। তারপর তিনি বনভুমির জায়গাটা বিক্রি করেন জনৈক জহিরুল ইসলাম কাছে। সেখানে জহিরুল ইসলাম জমিটি জবর দখলের উদ্বেশ্যে সেখানে ঘর নির্মানের কাজ শুরু করে। বিষয়টি এলাকাবাসির নজরে এলে তারা স্থানীয় বন বিভাগকে অবহিত করার পর বন বিভাগ নির্মানাধিন ঘরটির এক অংশ ভাংচুর করে চলে যায়।
পরে সেখানে আবার ঘর নির্মান কাজ করতে দেখা গেছে। এদিকে একই দাগে হবিরবাড়ী ইউনিয়ন যুবলীগের সদ্য বহিস্কৃত সভাপতি রেজাউল করিম রিপন অবৈধ ভাবে ঘর নির্মান করলেও স্থানীয় বন বিভাগকে রহস্যজনক কারনে নিরবতা পালন করতে দেখা গেছে। স্থানীয়দের অভিযোগ বন বিভাগের লোকজনকে টাকা দিলে সব কাজই বৈধ আর টাকা না দিলেই সব বনের জমি আমরা এ পরিত্রান চাই। এ ব্যপারে ভালুকা রেঞ্জ কর্মকর্তা মহিউদ্দিন জানান জহিরুলের নির্মানাধিন ঘরটি ভেঙ্গে দিয়েছি এবং মামলা প্রকৃয়াধীন। এবং রেজাউল করিম রিপনের নির্মানাধিন ঘরটিতে বিট কর্মকর্তাকে পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করতে নির্দেশ দিয়েছি এবং তাদের কি কাগজপত্র আছে সেগুলা দেখাতে বলেছি। প্রয়োজন হলে তার নামেও মামলা বন আইনে মামলা দেয়া হবে।
জনপ্রিয় সংবাদ

মাদারীপুরের কালকিনিতে নববর্ষ উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রা

ভালুকায় অবৈধভাবে দখল হচ্ছে বনভুমি বনবিভাগের রহস্যজনক নিরবতা

আপডেট সময় ০৫:০৩:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৫ মার্চ ২০২২
ওমর ফারুক তালুকদার, ভালুকাঃ-
ময়মনসিংহের ভালুকায় অবৈধ ভাবে বনভুমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে। অধিক পরিমান বনভুমি জবর দখল হচ্ছে উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়নে। বনভুমি রক্ষায় স্থানীয় বন বিভাগ কতটুকু সোচ্চার সেটা নিয়েই উঠেছে প্রশ্ন। সম্প্রতি হবিরবাড়ী রেঞ্জ কার্যালয় থেকে মাত্র ৫শ গজ দক্ষিনে হবিরবাড়ী মৌজার ১৫৪ নং দাগে অবৈধ ভাবে বনভুমি জবর দখল হচ্ছে। জানা যায় ১৫৪ নং দাগে অবৈধ ভাবে মাটি ভরাট করে জায়গাটা দখলে নেন জনৈক নজরুল ইসলাম। তারপর তিনি বনভুমির জায়গাটা বিক্রি করেন জনৈক জহিরুল ইসলাম কাছে। সেখানে জহিরুল ইসলাম জমিটি জবর দখলের উদ্বেশ্যে সেখানে ঘর নির্মানের কাজ শুরু করে। বিষয়টি এলাকাবাসির নজরে এলে তারা স্থানীয় বন বিভাগকে অবহিত করার পর বন বিভাগ নির্মানাধিন ঘরটির এক অংশ ভাংচুর করে চলে যায়।
পরে সেখানে আবার ঘর নির্মান কাজ করতে দেখা গেছে। এদিকে একই দাগে হবিরবাড়ী ইউনিয়ন যুবলীগের সদ্য বহিস্কৃত সভাপতি রেজাউল করিম রিপন অবৈধ ভাবে ঘর নির্মান করলেও স্থানীয় বন বিভাগকে রহস্যজনক কারনে নিরবতা পালন করতে দেখা গেছে। স্থানীয়দের অভিযোগ বন বিভাগের লোকজনকে টাকা দিলে সব কাজই বৈধ আর টাকা না দিলেই সব বনের জমি আমরা এ পরিত্রান চাই। এ ব্যপারে ভালুকা রেঞ্জ কর্মকর্তা মহিউদ্দিন জানান জহিরুলের নির্মানাধিন ঘরটি ভেঙ্গে দিয়েছি এবং মামলা প্রকৃয়াধীন। এবং রেজাউল করিম রিপনের নির্মানাধিন ঘরটিতে বিট কর্মকর্তাকে পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করতে নির্দেশ দিয়েছি এবং তাদের কি কাগজপত্র আছে সেগুলা দেখাতে বলেছি। প্রয়োজন হলে তার নামেও মামলা বন আইনে মামলা দেয়া হবে।