বাংলাদেশ ০৭:৩০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
১৫ দিনের ঈদযাত্রায় ২৯৪ প্রাণের মৃত্যুমিছিল : সেভ দ্য রোড উপজেলা নির্বাচনে এমপি-মন্ত্রীদের স্বজনদের প্রার্থীতা প্রত্যাহারের নির্দেশ কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ীর আজহারুল কে ফেন্সিডিল ও ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ফুলবাড়ীতে তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির স্মরণসভা শ্যালিকার সঙ্গে পরকীয়ার জেরে দুলাভাইকে নৃশংসভাবে হত্যার মামলার আসামি আশারুল তার প্রধান সহযোগী ইলিয়াস ও খায়রুল কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। পঞ্চগড়ে কৃষিভিত্তিক কারখানায়, দূর হচ্ছে বেকারত্ব হত্যা মামলার মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মামুনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। নাটোরে বাগাতিপাড়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা! মধুপুরে অবৈধভাবে মাটিকাটার অপরাধে ১লক্ষ টাকা জরিমানা  পেকুয়ায় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত শের-ই- বাংলা পাবলিক লাইব্রেরীতে পিরোজপুর সাহিত্য পরিষদের ঈদপূনর্মিলনী অনুষ্ঠিত সিংড়া উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী’কে শোকজ করল আ.লীগ যশোরে তিনদিন ব্যাপী চিত্র প্রদর্শনী শুরু  এক পিস ডাবের দাম ১৮০ টাকা! সার্বজনীন পেনশন স্কিম নিবন্ধনে ‘রাজশাহী’ এগিয়ে

টাঙ্গাইলে দুই যুদ্ধাপরাধী গ্রেফতার 

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:৩৭:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৪ মার্চ ২০২২
  • ১৬৯৪ বার পড়া হয়েছে

টাঙ্গাইলে দুই যুদ্ধাপরাধী গ্রেফতার 

 প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল 
একাত্তরে বুদ্ধিজীবী হত্যা ও গণহত্যার অভিযোগে টাঙ্গাইলের গোপালপুরের দুই যুদ্ধাপরাধীকে গ্রেফতার করা করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- উপজেলার ঝাওয়াইল ইউনিয়নের বেড়াডাকুরি গ্রামের মৃত সবুর মাস্টারের ছেলে মনিরুজ্জামান কোহিনূর এবং চাতুটিয়া গ্রামের মৃত শফি উদ্দীনের ছেলে আলমগীর হোসেন তালুকদার।
বৃহস্পতিবার গোপালপুর থেকে আলমগীর হোসেন ও নারায়ণগঞ্জ জেলা থেকে মনিরুজ্জামান কোহিনূরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর আগে তাদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।
এদিকে এই দুই যুদ্ধাপরাধীকে গ্রেফতারের খবরে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের ফাঁসির দাবিতে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের উদ্যোগে গোপালপুর পৌরশহরে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিল শেষে থানা ব্রিজ চত্বরে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
মামলার বিবরণে বলা হয়- গ্রেফতার হওয়া দুজনই একাত্তর সালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সহযোগী এবং রাজাকার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। একাত্তর সালের ৩০ জুন মনিরুজ্জামান কোহিনূর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে ঝাওয়াইল বাজারে হামলা চালান এবং ঝাওয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্পাদক, সুরেন্দ্রবালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বিশিষ্ট লেখক মসলিম উদ্দীনকে আটক করে গোপালপুর ক্যাম্পে নিয়ে আসেন। সেখানে তাকে টানা এক সপ্তাহ অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। তারপর তাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করা হয়। তার পরিবার মসলিম উদ্দীনের লাশের কোনো সন্ধান পায়নি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ মল্লিক বলেন, তাদের বিরুদ্ধে বুদ্ধিজীবী মসলিম উদ্দীনকে গুম এবং মাহমুদপুরে গণহত্যার অভিযোগ রয়েছে। দীর্ঘ তদন্ত শেষে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল থেকে তাদের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। পরে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
জনপ্রিয় সংবাদ

১৫ দিনের ঈদযাত্রায় ২৯৪ প্রাণের মৃত্যুমিছিল : সেভ দ্য রোড

টাঙ্গাইলে দুই যুদ্ধাপরাধী গ্রেফতার 

আপডেট সময় ০৬:৩৭:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৪ মার্চ ২০২২
 প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল 
একাত্তরে বুদ্ধিজীবী হত্যা ও গণহত্যার অভিযোগে টাঙ্গাইলের গোপালপুরের দুই যুদ্ধাপরাধীকে গ্রেফতার করা করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- উপজেলার ঝাওয়াইল ইউনিয়নের বেড়াডাকুরি গ্রামের মৃত সবুর মাস্টারের ছেলে মনিরুজ্জামান কোহিনূর এবং চাতুটিয়া গ্রামের মৃত শফি উদ্দীনের ছেলে আলমগীর হোসেন তালুকদার।
বৃহস্পতিবার গোপালপুর থেকে আলমগীর হোসেন ও নারায়ণগঞ্জ জেলা থেকে মনিরুজ্জামান কোহিনূরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর আগে তাদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।
এদিকে এই দুই যুদ্ধাপরাধীকে গ্রেফতারের খবরে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের ফাঁসির দাবিতে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের উদ্যোগে গোপালপুর পৌরশহরে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিল শেষে থানা ব্রিজ চত্বরে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
মামলার বিবরণে বলা হয়- গ্রেফতার হওয়া দুজনই একাত্তর সালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সহযোগী এবং রাজাকার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। একাত্তর সালের ৩০ জুন মনিরুজ্জামান কোহিনূর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে ঝাওয়াইল বাজারে হামলা চালান এবং ঝাওয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্পাদক, সুরেন্দ্রবালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বিশিষ্ট লেখক মসলিম উদ্দীনকে আটক করে গোপালপুর ক্যাম্পে নিয়ে আসেন। সেখানে তাকে টানা এক সপ্তাহ অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। তারপর তাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করা হয়। তার পরিবার মসলিম উদ্দীনের লাশের কোনো সন্ধান পায়নি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ মল্লিক বলেন, তাদের বিরুদ্ধে বুদ্ধিজীবী মসলিম উদ্দীনকে গুম এবং মাহমুদপুরে গণহত্যার অভিযোগ রয়েছে। দীর্ঘ তদন্ত শেষে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল থেকে তাদের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। পরে তাদের গ্রেফতার করা হয়।