বাংলাদেশ ০৯:৩৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
জণগণের পাশে ছিলাম, আছি এবং আজীবন থাকবো-অ্যাড. অরুনাংশু দত্ত টিটো দোকানের বাকির টাকা দিতে দেরি করায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে যখম, থানায় অভিযোগ।  সকল দলের মানুষের সেবক হিসেবে পাশে থাকতে চাই- অধ্যক্ষ সইদুল হক  পিরোজপুরে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা টিভি’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ঘোড়া মার্কার প্রার্থীকে জরিমানা রায়গঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় গাছে গাছে শোভা পাচ্ছে জামরুল ফল বিদেশী মদসহ ০৩ জন কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। সরকারের অনিচ্ছাতেই উচ্চ শিক্ষায় স্বদেশি ভাষা চালু হয়নি: ড. সলিমুল্লাহ খান রাজশাহীতে ৩০ ছাত্রকে বলাৎকার করে ভিডিও ধারণ করেন শিক্ষক ওয়াকেল ঠাকুরগাঁওয়ে উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে জেলা আওয়ামী রাজনীতিতে বিভক্তি হওয়ার আশঙ্কা রাজশাহীর পুঠিয়ায় তিন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে সম্পদশালী মাসুদ পুঠিয়া উপজেলায় নির্বাচন: চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীদের কার সম্পদ কত? রাজশাহী মহানগরীতে চেকপোস্টে দুই পুলিশ পিটিয়ে আহত! দুইভাই আটক কাউনিয়ায় লিগ্যাল এইড সার্ভিসেস ট্রাস্ট এর সভা অনুষ্ঠিত ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি মামলার আসামী নাজিবুল ইসলাম নাজিমকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। উল্লাপাড়ায় সড়ক দূর্ঘনায় ১ জনের মৃত্যু 

ভোলার চরফ্যাশনে ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধর আটক ২

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১১:০৪:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ মার্চ ২০২২
  • ১৭১০ বার পড়া হয়েছে

ভোলার চরফ্যাশনে ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধর আটক ২

 

 

ভোলা প্রতিনিধি॥

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদারকে মারধর করা হয়েছে। এ ঘটনায় চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদার বাদি হয়ে ৮ জনকে আসামী করে চরফ্যাশন থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ মামলার এজাহারভূক্ত আসামী আদম শফিউল্যাহ ও ফেরদাউসকে আটক করেছেন। আটক দুই আসামীকে বুধবার চরফ্যাশন আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। চরফ্যাসন থানার সেকেন্ড অফিসার নাজমুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

 

মামলা এজাহার সূত্রে জানা গেছে, চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদারের বড় ভাই মোসলে উদ্দিনের সঙ্গে জমি নিয়ে আসামী আদম হাওলাদারদের বিরোধ চলছে। ওই বিরোধের জের ধরে উপজেলা পরিষদের সামনে বারেক হাওলাদারের ছেলে ফেরদাউসের নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক সেলিম চেয়ারম্যানের উপর চড়াও হয়ে তাকে মারধর এবং শ্বাস রোধে হত্যার চেষ্টা করে।

 

 

এঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদার বাদী হয়ে ৮ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। অপরদিকে মামলার আসামী আদম হাওলাদারের বাবা বারেক হাওলাদার অভিযোগ করেন, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সোমবার রাতে সেলিম হাওলাদারের বড় ভাই মোসলে উদ্দিন হাওলাদার তার ছোট ছেলে আদমকে চেয়ারম্যান বাজারে মারধর করে।

 

 

মঙ্গলবার দুপুরে এ বিষয়ে তার বড় ছেলে ফেরদাউস চেয়ারম্যান’র কাছে বিচার দিলে তিনি উত্তেজিত হন এবং কথা কাটির জের ধরে তার ছেলেকে আটক করে থানায় সোপর্দ করেন। পরে চেয়ারম্যানের ভাই মোসলেউদ্দিন হাওলাদারের নেতৃত্বে ২০-৩০জন লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বারেক হাওলাদারের বাড়ি ঘর ভাংচুর করে। চেয়ারম্যানের ভাই মোসলেউদ্দিন বলেন, বারেক হাওলাদারের ছেলে আদম হাওলাদার তার পুকুর থেকে প্রায় ৭-৮ হাজার টাকার মাছ বিক্রি করেন।

 

 

তিনি ওই পুকুরের সেচ মেশিন বন্ধ করে দেয়ায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে ভাই চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদারকে মারধর এবং গলাটিপে হত্যার চেষ্টা করেন এবং নিজেদের ঘর নিজেরা ভাংচুর করে আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। চরফ্যাসন থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই নাজমুল ইসলাম জানান, চেয়ারম্যানকে হত্যার চেষ্টা এবং মরধরের অভিযোগে মামলা হয়েছে। মামলার এজারহার ভূক্ত দুই আসামীকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 

 

 

জনপ্রিয় সংবাদ

জণগণের পাশে ছিলাম, আছি এবং আজীবন থাকবো-অ্যাড. অরুনাংশু দত্ত টিটো

ভোলার চরফ্যাশনে ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধর আটক ২

আপডেট সময় ১১:০৪:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ মার্চ ২০২২

 

 

ভোলা প্রতিনিধি॥

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদারকে মারধর করা হয়েছে। এ ঘটনায় চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদার বাদি হয়ে ৮ জনকে আসামী করে চরফ্যাশন থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ মামলার এজাহারভূক্ত আসামী আদম শফিউল্যাহ ও ফেরদাউসকে আটক করেছেন। আটক দুই আসামীকে বুধবার চরফ্যাশন আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। চরফ্যাসন থানার সেকেন্ড অফিসার নাজমুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

 

মামলা এজাহার সূত্রে জানা গেছে, চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদারের বড় ভাই মোসলে উদ্দিনের সঙ্গে জমি নিয়ে আসামী আদম হাওলাদারদের বিরোধ চলছে। ওই বিরোধের জের ধরে উপজেলা পরিষদের সামনে বারেক হাওলাদারের ছেলে ফেরদাউসের নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক সেলিম চেয়ারম্যানের উপর চড়াও হয়ে তাকে মারধর এবং শ্বাস রোধে হত্যার চেষ্টা করে।

 

 

এঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদার বাদী হয়ে ৮ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। অপরদিকে মামলার আসামী আদম হাওলাদারের বাবা বারেক হাওলাদার অভিযোগ করেন, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সোমবার রাতে সেলিম হাওলাদারের বড় ভাই মোসলে উদ্দিন হাওলাদার তার ছোট ছেলে আদমকে চেয়ারম্যান বাজারে মারধর করে।

 

 

মঙ্গলবার দুপুরে এ বিষয়ে তার বড় ছেলে ফেরদাউস চেয়ারম্যান’র কাছে বিচার দিলে তিনি উত্তেজিত হন এবং কথা কাটির জের ধরে তার ছেলেকে আটক করে থানায় সোপর্দ করেন। পরে চেয়ারম্যানের ভাই মোসলেউদ্দিন হাওলাদারের নেতৃত্বে ২০-৩০জন লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বারেক হাওলাদারের বাড়ি ঘর ভাংচুর করে। চেয়ারম্যানের ভাই মোসলেউদ্দিন বলেন, বারেক হাওলাদারের ছেলে আদম হাওলাদার তার পুকুর থেকে প্রায় ৭-৮ হাজার টাকার মাছ বিক্রি করেন।

 

 

তিনি ওই পুকুরের সেচ মেশিন বন্ধ করে দেয়ায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে ভাই চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদারকে মারধর এবং গলাটিপে হত্যার চেষ্টা করেন এবং নিজেদের ঘর নিজেরা ভাংচুর করে আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। চরফ্যাসন থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই নাজমুল ইসলাম জানান, চেয়ারম্যানকে হত্যার চেষ্টা এবং মরধরের অভিযোগে মামলা হয়েছে। মামলার এজারহার ভূক্ত দুই আসামীকে আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।