বাংলাদেশ ০৭:২০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
গোদাগাড়ীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান কর্তন বেপরোয়া গতিতে চলমান রাইদা পরিবহনের বাসের চাপায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যুর ঘটনায় ঘাতক বাস ড্রাইভার গ্রেফতার।  হত্যা মামলার ০১ জন পলাতক আসামীকে ০৬ দিনের মধ্যে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। চট্টগ্রামে বিয়ের নামে ফাঁদ, একাধিক পুরুষকে নিঃস্ব করেছেন সুন্দরী টুম্পা কষ্টিপাথরের নন্দী মূর্তি-সংঘবদ্ধ পাচারকারীচক্রের মূলহোতা সহ ০২জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ভান্ডারিয়ায় আলতাফ হোসেন স্মৃতি সংসদের শুভ উদ্বোধন করলেন শিক্ষানুরাগী ফজলুল করিম মিঠু মিয়া বদলগাছীতে মটর সাইকেল ভুটভুটি সংঘর্ষে ঝরে গেল তাজা একটি প্রান। শতাধিক রোভার সহচরকে দীক্ষা দিলো জবি রোভার স্কাউট গ্রুপ  হত্যা মামলার পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাক্টরচাপায় অটোরিকশা যাত্রী নিহত ১৫ দিনের ঈদযাত্রায় ২৯৪ প্রাণের মৃত্যুমিছিল : সেভ দ্য রোড অতিরিক্ত টোল আদায়, গোনায় ধরছে না কাউকে ইজারাদার ভালুকায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর ধর্ষন মামলা স্বামী কারাগারে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা যশোরে তীব্র তাপদাহে পুড়ছে মানুষ  মাধবপুরে তরুণের বিরুদ্ধে বাবা মা ও ভাইকে নির্যাতনের অভিযোগ

নিজের বন্ধু শিকার হয়ে ছিলো শারীরিক নির্যাতনের

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:৩৮:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২
  • ১৭২২ বার পড়া হয়েছে

নিজের বন্ধু শিকার হয়ে ছিলো শারীরিক নির্যাতনের,

নিজের বন্ধু শিকার হয়ে ছিলো শারীরিক নির্যাতনের, পরেই নিজ জেলায় নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ প্রতিরোধে বন্ধু গড়ে তোলে STOP Harassment
১ বছর আগে একটি লম্বা সময় ধরে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছিলো তার প্রিয় বন্ধু সেটির বিচার এর জন্য প্রশাসনের বিভিন্ন দ্বার প্রান্তে ঘুরে যখন সঠিক বিচার পায়নি তখন অনাকাঙ্ক্ষিত এ দুর্ঘটনায় জর্জরিত হয়ে গিয়েছিল আব্দুর রহমান ঈশান তীব্র ক্ষোভ আর হতাশায় পৃথিবীটাকে তখন মনে হয়েছিল নরক। সেই থেকে একটি প্রত্যয় নিয়ে মাঠে নামেন আব্দুর রহমান ঈশান। আর কোনো বন্ধু/বোন যেন এ রকম দুর্ঘটনার শিকার না হন তাই ধর্ষণের ও নারী নির্যাতন  এরবিরুদ্ধে ঘোষণা করেন যুদ্ধ। শুরু করেন STOP Harassment নামক একটি সংগঠন।
STOP Harassment এর প্রতিষ্ঠাতা আব্দুর রহমান ঈশান বলেন, এক বছর আগে যখন তার বন্ধু এ নির্যাতনের শিকার হয় তখন তাকে বলেছিল তুই এত ভালো ভালো কাজ করিস শিশুদের ও নারীদের  নিয়ে তবে তো নিজের জেলায় কোন কিছু করতে পারিস না  তখন এটা আমার কানে লাগে। ওইদিন রাতেই আমি সিদ্ধান্ত নেই এই নারী নির্যাতন বন্ধে কোন একটি কাজ করতে হবে তার সাথে সাথেই স্টপ হ্যারাসমেন্ট এর কথা মাথায় আসে এবং নিজ জেলায় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ করতে একটি সংগঠন খোলার চিন্তা-ধারা আসে
একমাত্র সমাজের মানুষ এগিয়ে আসলেই ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন ঠেকানো সম্ভব।  এবং তাদের এগিয়ে আসার পূর্বে অবশ্যই হতে হবে সচেতন কারণ দেখা গিয়েছে ধর্ষণ কিংবা নারী নির্যাতনের মতো ঘটনা গুলো তে প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ করাটাই উত্তম সেই প্রতিরোধ করা অর্থাৎ সকলকে সচেতন করাসেটি নিয়ে কাজ করার জন্য স্টপ হ্যারাসমেন্ট এর প্রতিষ্ঠাতা নিজ জেলা তে সংগঠনের কাজটি শুরু করে সংগঠনের।
নিজে সতর্ক থাকি অন্যকে সতর্ক রাখি এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখেই কাজ শুরু করে সংগঠনটি যার মূল কাজটি হচ্ছে নারী নির্যাতন এবং ধর্ষণ প্রতিরোধে মানুষকে সচেতন করা অনলাইন অফলাইন বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে তারা মানুষকে সচেতন করছে প্রতিটি স্কুলে টিম গঠন করে স্কুলে কর্মশালা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংগঠনটি পক্ষ থেকে
দেখা গিয়েছে একটি মেয়ে নির্যাতিত হওয়ার পর সে কি করবে সেটি বুঝে উঠতে পারেনা যার ফলে অপরাধীর অপরাধ ঢাকা পড়ে থাকে তারই জন্যে সর্তক থাকা বাধ্যতামূলক এছাড়াও অনেকেই সঠিক পথ জানে না বিধায় বিচার চাইতে গেলে শিকার হতে হয় নানা হয়রানির এইসব বিষয়গুলোকে মাথায় রেখেই স্টপ হ্যারাসমেন্ট তাদের কার্যক্রম গুলো গুছিয়েছে একটি মেয়ে নির্যাতিত হলে কি করবে নির্যাতনের শিকার যাতে না হতে হয় চিঠির জন্য কি করবে সর্বোপরি কিভাবে সে সতর্ক থাকবে সেটি নিশ্চিত করতে সবাইকে সচেতন করতেই মূলত কাজ করবে স্টপ হ্যারাসমেন্ট।
তাছাড়া বাল্যবিবাহ রোধে মানুষকে সচেতন করা, প্রশাসন কে অবগত করার মতো কাজ গুলো করে থাকে এই সংগঠনটি৷ সমাজের কিছু সম্ভ্রান্ত মুখ সংগঠনটির পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার করেছে।তারা এই সংগঠন এর কাজের ধরনের প্রশংসা করেছেন এবং আশ্বস্ত করেছেন সকল প্রকার সহোযোগিতার।
জনপ্রিয় সংবাদ

গোদাগাড়ীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান কর্তন

নিজের বন্ধু শিকার হয়ে ছিলো শারীরিক নির্যাতনের

আপডেট সময় ০৩:৩৮:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২
নিজের বন্ধু শিকার হয়ে ছিলো শারীরিক নির্যাতনের, পরেই নিজ জেলায় নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ প্রতিরোধে বন্ধু গড়ে তোলে STOP Harassment
১ বছর আগে একটি লম্বা সময় ধরে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছিলো তার প্রিয় বন্ধু সেটির বিচার এর জন্য প্রশাসনের বিভিন্ন দ্বার প্রান্তে ঘুরে যখন সঠিক বিচার পায়নি তখন অনাকাঙ্ক্ষিত এ দুর্ঘটনায় জর্জরিত হয়ে গিয়েছিল আব্দুর রহমান ঈশান তীব্র ক্ষোভ আর হতাশায় পৃথিবীটাকে তখন মনে হয়েছিল নরক। সেই থেকে একটি প্রত্যয় নিয়ে মাঠে নামেন আব্দুর রহমান ঈশান। আর কোনো বন্ধু/বোন যেন এ রকম দুর্ঘটনার শিকার না হন তাই ধর্ষণের ও নারী নির্যাতন  এরবিরুদ্ধে ঘোষণা করেন যুদ্ধ। শুরু করেন STOP Harassment নামক একটি সংগঠন।
STOP Harassment এর প্রতিষ্ঠাতা আব্দুর রহমান ঈশান বলেন, এক বছর আগে যখন তার বন্ধু এ নির্যাতনের শিকার হয় তখন তাকে বলেছিল তুই এত ভালো ভালো কাজ করিস শিশুদের ও নারীদের  নিয়ে তবে তো নিজের জেলায় কোন কিছু করতে পারিস না  তখন এটা আমার কানে লাগে। ওইদিন রাতেই আমি সিদ্ধান্ত নেই এই নারী নির্যাতন বন্ধে কোন একটি কাজ করতে হবে তার সাথে সাথেই স্টপ হ্যারাসমেন্ট এর কথা মাথায় আসে এবং নিজ জেলায় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ করতে একটি সংগঠন খোলার চিন্তা-ধারা আসে
একমাত্র সমাজের মানুষ এগিয়ে আসলেই ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন ঠেকানো সম্ভব।  এবং তাদের এগিয়ে আসার পূর্বে অবশ্যই হতে হবে সচেতন কারণ দেখা গিয়েছে ধর্ষণ কিংবা নারী নির্যাতনের মতো ঘটনা গুলো তে প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ করাটাই উত্তম সেই প্রতিরোধ করা অর্থাৎ সকলকে সচেতন করাসেটি নিয়ে কাজ করার জন্য স্টপ হ্যারাসমেন্ট এর প্রতিষ্ঠাতা নিজ জেলা তে সংগঠনের কাজটি শুরু করে সংগঠনের।
নিজে সতর্ক থাকি অন্যকে সতর্ক রাখি এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখেই কাজ শুরু করে সংগঠনটি যার মূল কাজটি হচ্ছে নারী নির্যাতন এবং ধর্ষণ প্রতিরোধে মানুষকে সচেতন করা অনলাইন অফলাইন বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে তারা মানুষকে সচেতন করছে প্রতিটি স্কুলে টিম গঠন করে স্কুলে কর্মশালা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংগঠনটি পক্ষ থেকে
দেখা গিয়েছে একটি মেয়ে নির্যাতিত হওয়ার পর সে কি করবে সেটি বুঝে উঠতে পারেনা যার ফলে অপরাধীর অপরাধ ঢাকা পড়ে থাকে তারই জন্যে সর্তক থাকা বাধ্যতামূলক এছাড়াও অনেকেই সঠিক পথ জানে না বিধায় বিচার চাইতে গেলে শিকার হতে হয় নানা হয়রানির এইসব বিষয়গুলোকে মাথায় রেখেই স্টপ হ্যারাসমেন্ট তাদের কার্যক্রম গুলো গুছিয়েছে একটি মেয়ে নির্যাতিত হলে কি করবে নির্যাতনের শিকার যাতে না হতে হয় চিঠির জন্য কি করবে সর্বোপরি কিভাবে সে সতর্ক থাকবে সেটি নিশ্চিত করতে সবাইকে সচেতন করতেই মূলত কাজ করবে স্টপ হ্যারাসমেন্ট।
তাছাড়া বাল্যবিবাহ রোধে মানুষকে সচেতন করা, প্রশাসন কে অবগত করার মতো কাজ গুলো করে থাকে এই সংগঠনটি৷ সমাজের কিছু সম্ভ্রান্ত মুখ সংগঠনটির পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার করেছে।তারা এই সংগঠন এর কাজের ধরনের প্রশংসা করেছেন এবং আশ্বস্ত করেছেন সকল প্রকার সহোযোগিতার।