বাংলাদেশ ০৮:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
ধর্মীয় শিক্ষার অভাবে মানুষ বিপদগামী হচ্ছে — ভান্ডারিয়ায় মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ ফয়জুল করিম নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ করতে যা করার প্রয়োজন তাই করা হবে- নির্বাচন কমিশনার ২৪ এপ্রিল থেকে তিন দিনব্যাপী ঐতিহ্যবাহী জব্বারের বলিখেলা কালুরঘাট ভারী শিল্প এলাকার চার শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করলেন চসিক ভ্রাম্যমান আদালত চলতি বছরেই পঁচিশ শতাংশ ভাটায় ব্লক ইট তৈরী নিশ্চিত করতে হবে — জেলা প্রশাসক নলছিটিতে শেষ হলো মরহুম আঃ সোবাহান চেয়ারম্যান স্মৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। নওগাঁর হাসপাতাল গুলোতে বাড়ছে ডায়রিয়া রুগী  ভান্ডারিয়ায় প্রাণি সম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণপাড়ায় প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী উপলক্ষে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা  ব্রাহ্মণপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে হতদরিদ্রের মাঝে ঘর উপহার  ব্রাহ্মণপাড়া থেকে কুমিল্লায় সিএনজি ভাড়া দ্বিগুণ থেকে তিন গুণ ভোগান্তিতে যাত্রীরা ঘুমন্ত স্বামীর পুরুষাঙ্গ কর্তণের দায়ে স্ত্রী কারাগারে! বাগেরহাটে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী ২০২৪ অনুষ্ঠিত একযুগেরও বেশি সময় পর ঠাকুরগাঁও চেম্বারের নির্বাচন দোকান কর্মচারি, গৃহবধু, ঝাড়ুদার ভোটার। অনিয়মের ছড়াছড়ি তালতলীতে এবার ইউপি চেয়ারম্যানের আপত্তিকর ভিডিও ভাইরাল

সরিষাবাড়ীতে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে বাড়ছে দুর্ঘটনা 

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:২৫:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২২
  • ১৬৯৩ বার পড়া হয়েছে

সরিষাবাড়ীতে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে বাড়ছে দুর্ঘটনা 

 শাকিল আহম্মেদ সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি :
জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে বাড়ছে দুর্ঘটনার আশংকা। ঘটছে প্রাণহানি। এসব অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে নেই কোনো গেটম্যান। রেল সংশ্লিষ্টরা দায় এড়াতে কোন কোন লেভেল ক্রসিংয়ে সতর্কতামূলক সাইনবোর্ড লাগালেও তা আর চোখে পড়েনা। রেলের লাগানো অধিকাংশ সতর্কতামূলক সাইনবোর্ডগুলো নষ্ট হয়ে বিলীন হয়ে গেছে।
সরিষাবাড়ী রেলস্টেশন সূত্রে জানা গেছে, এ উপজেলায় রেলপথে মোট ১৫ টি লেভেল ক্রসিং রয়েছে। এর মধ্যে মাত্র ৯ টিতে গেটম্যান রয়েছে।
বাকি ৬টি লেভেল ক্রসিং অরক্ষিত। নেই কোনো গেটম্যান। এই সব লেভেল ক্রসিংগুলোয় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন। এতে বাড়ছে দুর্ঘটনা। সেই সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যু।
স্থানীয়রা বলছেন, অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে প্রতিনিয়তই বাড়ছে দুর্ঘটনার আশংকা। ঘটছে দুর্ঘটনা। মারা যাচ্ছে মানুষসহ গবাদি প্রাণি। চলতি বছরের গত ১৩ ফেব্রুয়ারি পোগলদিঘা ইউনিয়নের চেঁচিয়াবাধা এলাকার অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে ট্রেনের ধাক্কায় সজিব নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়। ২০২০ সালে আরামনগর আলিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে মোটর সাইকেল যোগে যাওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কায় দুজনের মুত্যু হয়।
২০১৯ সালে লোকোসেড রেল ক্রসিংয়ে বিলকিস আক্তার নামে এক মহিলা ট্রেনে কাটা পড়েন। কিছিুদিন পর তার মৃত্যু হয়। ২০১৮ সালে একটি ট্যাফে ট্রাকটর পৌরসভার বাউসি লেভেল ক্রসিংয়ে উঠে পড়ে। এ সময় ট্রেনের ধাক্কায় ট্রাকটর চালক নিহত হন।
বাকি অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে প্রতিনিয়ত ঘটেছে দুর্ঘটনা। এসব অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে সবাই ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করেন। অথচ কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না রেল কর্তৃপক্ষ।
সরেজমিনে উপজেলার অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, ‘গেটম্যান না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন। অনেকে পায়ে হেঁটে ডান-বাম না তাকিয়েই পার হচ্ছে লেভেল ক্রসিং। রেলের তালিকার বাইরে আরো অনেক লেভেল ক্রসিং থাকলেও রেল কর্তৃপক্ষের কাছে সেগুলোর কোন হিসেব নেই ।
শিমলাপল্লী লেভেল ক্রসিংয়ে রেলের সতর্কতা মুলক সাইনবোর্ড থাকলেও এখন আর তা চোখে পড়েনা। এ লেভেল ক্রসিংয়ে প্রায়ই নানা প্রজাতির গবাদি প্রাণী ট্রেনে কাটা পড়ে মারা যাচ্ছে। স্থানীয় চা দোকানদার খলিল খাঁন ট্রেন চলাচলের সময়ে দুর্ঘটনা এড়াতে রাস্তায় বাঁশ ফেলে গেটম্যানের কাজ করতেন। তখন এ পথে চলাকারিরা নির্ভয়ে চলাচল করতেন।  কিছুদিন আগে তিনি চায়ের ব্যবসা ছেড়ে দিয়েছেন। এ কারনে লেভেল ক্রসিংটি আরো অরক্ষিত হয়ে পড়েছে।
রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সতর্কতামূলক সাইনবোর্ড লাগালেও সেগুলো এখন আর চোখে পড়েনা। সময়ের পালাবদলে সেগুলো বিলীন হয়ে গেছে। অরক্ষিত ওইসব লেভেল ক্রসিংয়ের সাইনবোর্ডে লেখা ছিল, ‘এই লেভেল ক্রসিং-এ গেটম্যান নাই, পথচারী ও সকল প্রকার যানবাহনের চালক নিজ দায়িত্বে পারাপার করিবেন এবং যে কোন রূপ দুর্ঘটনার জন্য ক্ষতিপূরণ দিতে বাধ্য থাকিবেন। কোন কোন লেভেল ক্রসিংয়ে এরুপ কোন সাইনবোর্ডও দেয়নি সংশ্লিষ্টরা। স্থানীয়রা অবিলম্বে এসব অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে গেট নির্মান করে গেটম্যান নিয়োগের দাবি জানান।
এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাখাওয়াতুল আলম মুকুল বলেন, সরিষাবাড়ীতে রেল রোড নির্মানের পর থেকেই শিমলাপল্লী লেভেল ক্রসিংটি অরক্ষিত। রেল কর্তৃপক্ষ এ লেভেল ক্রসিংয়ে সতর্কতামুলক সাইনবোর্ড লাগালেও তা এখন আরও চোখে পড়েনা।
সরিষাবাড়ী আলিয়া মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক মমিনুল ইসলাম কিসমত বলেন, মাদ্রাসা সংলগ্ন লেভেল ক্রসিংয়ে প্রায়ই ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে। এ অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে গেট নির্মানসহ গেটম্যান নিযুক্ত করা জরুরি হয়ে পড়েছ।
সরিষাবাড়ী রেলওয়ে পুলিশের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক মুজিবুল হক বলেন, এ উপজেলায় ১৫টি লেভেল ক্রসিংয়ের ৯টিতে গেটম্যান রয়েছে। বাকি ৬টি অরক্ষিত।
সরিষাবাড়ী রেলওয়ে স্টেশন কর্মকর্তা (স্টেশন মাস্টার) আবুল কালাম বলেন, ‘গেটম্যান নিয়োগের বিষয়টি তাদের এখতিয়ারভুক্ত কাজ নয়। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ বিষয়টি দেখে থাকেন। তবে যেসব লেভেল ক্রসিংয়ে গেটম্যান নেই, সেখানে সতর্কতামূলক নির্দেশনা সাইনবোর্ড দেওয়া রয়েছে। অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে গেটম্যান নিয়োগ দেওয়ার বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। রেলের তালিকার বাইরেও আরো কিছু লেভেল ক্রসিং রয়েছে বলেও তিনি জানান।
জনপ্রিয় সংবাদ

ধর্মীয় শিক্ষার অভাবে মানুষ বিপদগামী হচ্ছে — ভান্ডারিয়ায় মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ ফয়জুল করিম

সরিষাবাড়ীতে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে বাড়ছে দুর্ঘটনা 

আপডেট সময় ০৫:২৫:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২২
 শাকিল আহম্মেদ সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি :
জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে বাড়ছে দুর্ঘটনার আশংকা। ঘটছে প্রাণহানি। এসব অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে নেই কোনো গেটম্যান। রেল সংশ্লিষ্টরা দায় এড়াতে কোন কোন লেভেল ক্রসিংয়ে সতর্কতামূলক সাইনবোর্ড লাগালেও তা আর চোখে পড়েনা। রেলের লাগানো অধিকাংশ সতর্কতামূলক সাইনবোর্ডগুলো নষ্ট হয়ে বিলীন হয়ে গেছে।
সরিষাবাড়ী রেলস্টেশন সূত্রে জানা গেছে, এ উপজেলায় রেলপথে মোট ১৫ টি লেভেল ক্রসিং রয়েছে। এর মধ্যে মাত্র ৯ টিতে গেটম্যান রয়েছে।
বাকি ৬টি লেভেল ক্রসিং অরক্ষিত। নেই কোনো গেটম্যান। এই সব লেভেল ক্রসিংগুলোয় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন। এতে বাড়ছে দুর্ঘটনা। সেই সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যু।
স্থানীয়রা বলছেন, অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে প্রতিনিয়তই বাড়ছে দুর্ঘটনার আশংকা। ঘটছে দুর্ঘটনা। মারা যাচ্ছে মানুষসহ গবাদি প্রাণি। চলতি বছরের গত ১৩ ফেব্রুয়ারি পোগলদিঘা ইউনিয়নের চেঁচিয়াবাধা এলাকার অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে ট্রেনের ধাক্কায় সজিব নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়। ২০২০ সালে আরামনগর আলিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে মোটর সাইকেল যোগে যাওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কায় দুজনের মুত্যু হয়।
২০১৯ সালে লোকোসেড রেল ক্রসিংয়ে বিলকিস আক্তার নামে এক মহিলা ট্রেনে কাটা পড়েন। কিছিুদিন পর তার মৃত্যু হয়। ২০১৮ সালে একটি ট্যাফে ট্রাকটর পৌরসভার বাউসি লেভেল ক্রসিংয়ে উঠে পড়ে। এ সময় ট্রেনের ধাক্কায় ট্রাকটর চালক নিহত হন।
বাকি অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে প্রতিনিয়ত ঘটেছে দুর্ঘটনা। এসব অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে সবাই ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করেন। অথচ কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না রেল কর্তৃপক্ষ।
সরেজমিনে উপজেলার অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, ‘গেটম্যান না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন। অনেকে পায়ে হেঁটে ডান-বাম না তাকিয়েই পার হচ্ছে লেভেল ক্রসিং। রেলের তালিকার বাইরে আরো অনেক লেভেল ক্রসিং থাকলেও রেল কর্তৃপক্ষের কাছে সেগুলোর কোন হিসেব নেই ।
শিমলাপল্লী লেভেল ক্রসিংয়ে রেলের সতর্কতা মুলক সাইনবোর্ড থাকলেও এখন আর তা চোখে পড়েনা। এ লেভেল ক্রসিংয়ে প্রায়ই নানা প্রজাতির গবাদি প্রাণী ট্রেনে কাটা পড়ে মারা যাচ্ছে। স্থানীয় চা দোকানদার খলিল খাঁন ট্রেন চলাচলের সময়ে দুর্ঘটনা এড়াতে রাস্তায় বাঁশ ফেলে গেটম্যানের কাজ করতেন। তখন এ পথে চলাকারিরা নির্ভয়ে চলাচল করতেন।  কিছুদিন আগে তিনি চায়ের ব্যবসা ছেড়ে দিয়েছেন। এ কারনে লেভেল ক্রসিংটি আরো অরক্ষিত হয়ে পড়েছে।
রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সতর্কতামূলক সাইনবোর্ড লাগালেও সেগুলো এখন আর চোখে পড়েনা। সময়ের পালাবদলে সেগুলো বিলীন হয়ে গেছে। অরক্ষিত ওইসব লেভেল ক্রসিংয়ের সাইনবোর্ডে লেখা ছিল, ‘এই লেভেল ক্রসিং-এ গেটম্যান নাই, পথচারী ও সকল প্রকার যানবাহনের চালক নিজ দায়িত্বে পারাপার করিবেন এবং যে কোন রূপ দুর্ঘটনার জন্য ক্ষতিপূরণ দিতে বাধ্য থাকিবেন। কোন কোন লেভেল ক্রসিংয়ে এরুপ কোন সাইনবোর্ডও দেয়নি সংশ্লিষ্টরা। স্থানীয়রা অবিলম্বে এসব অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে গেট নির্মান করে গেটম্যান নিয়োগের দাবি জানান।
এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাখাওয়াতুল আলম মুকুল বলেন, সরিষাবাড়ীতে রেল রোড নির্মানের পর থেকেই শিমলাপল্লী লেভেল ক্রসিংটি অরক্ষিত। রেল কর্তৃপক্ষ এ লেভেল ক্রসিংয়ে সতর্কতামুলক সাইনবোর্ড লাগালেও তা এখন আরও চোখে পড়েনা।
সরিষাবাড়ী আলিয়া মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক মমিনুল ইসলাম কিসমত বলেন, মাদ্রাসা সংলগ্ন লেভেল ক্রসিংয়ে প্রায়ই ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে। এ অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে গেট নির্মানসহ গেটম্যান নিযুক্ত করা জরুরি হয়ে পড়েছ।
সরিষাবাড়ী রেলওয়ে পুলিশের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক মুজিবুল হক বলেন, এ উপজেলায় ১৫টি লেভেল ক্রসিংয়ের ৯টিতে গেটম্যান রয়েছে। বাকি ৬টি অরক্ষিত।
সরিষাবাড়ী রেলওয়ে স্টেশন কর্মকর্তা (স্টেশন মাস্টার) আবুল কালাম বলেন, ‘গেটম্যান নিয়োগের বিষয়টি তাদের এখতিয়ারভুক্ত কাজ নয়। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ বিষয়টি দেখে থাকেন। তবে যেসব লেভেল ক্রসিংয়ে গেটম্যান নেই, সেখানে সতর্কতামূলক নির্দেশনা সাইনবোর্ড দেওয়া রয়েছে। অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে গেটম্যান নিয়োগ দেওয়ার বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। রেলের তালিকার বাইরেও আরো কিছু লেভেল ক্রসিং রয়েছে বলেও তিনি জানান।