বাংলাদেশ ০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
গোদাগাড়ীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান কর্তন বেপরোয়া গতিতে চলমান রাইদা পরিবহনের বাসের চাপায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যুর ঘটনায় ঘাতক বাস ড্রাইভার গ্রেফতার।  হত্যা মামলার ০১ জন পলাতক আসামীকে ০৬ দিনের মধ্যে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। চট্টগ্রামে বিয়ের নামে ফাঁদ, একাধিক পুরুষকে নিঃস্ব করেছেন সুন্দরী টুম্পা কষ্টিপাথরের নন্দী মূর্তি-সংঘবদ্ধ পাচারকারীচক্রের মূলহোতা সহ ০২জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ভান্ডারিয়ায় আলতাফ হোসেন স্মৃতি সংসদের শুভ উদ্বোধন করলেন শিক্ষানুরাগী ফজলুল করিম মিঠু মিয়া বদলগাছীতে মটর সাইকেল ভুটভুটি সংঘর্ষে ঝরে গেল তাজা একটি প্রান। শতাধিক রোভার সহচরকে দীক্ষা দিলো জবি রোভার স্কাউট গ্রুপ  হত্যা মামলার পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাক্টরচাপায় অটোরিকশা যাত্রী নিহত ১৫ দিনের ঈদযাত্রায় ২৯৪ প্রাণের মৃত্যুমিছিল : সেভ দ্য রোড অতিরিক্ত টোল আদায়, গোনায় ধরছে না কাউকে ইজারাদার ভালুকায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর ধর্ষন মামলা স্বামী কারাগারে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা যশোরে তীব্র তাপদাহে পুড়ছে মানুষ  মাধবপুরে তরুণের বিরুদ্ধে বাবা মা ও ভাইকে নির্যাতনের অভিযোগ

আজ বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখের ৮৭তম জন্মবার্ষিকী 

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৪:০৩:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২২
  • ১৬৮৩ বার পড়া হয়েছে

আজ বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখের ৮৭তম জন্মবার্ষিকী 

স্বীকৃতি বিশ্বাস, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামকে বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাওয়ার জন্য দেশের সকল জনগণের যেমন অবদান রয়েছে তেমনি অবদান রয়েছে সিপাহি জনতার।বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে অসামান্য সাহসীকতার অবদান রাখার জন্য যে সাতজন বীরকে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান বীরশ্রেষ্ঠ উপাধিতে ভূষিত করা হয় তাদের মধ্যে বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ একজন।
বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখ ১৯৩৬ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি নড়াইল জেলার মহিষখোলা গ্রামের এক দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মোহাম্মদ আমানত শেখ, মাতা জেন্নাতুন্নেসা। অল্প বয়সে বাবা-মাকে হারান ফলে শৈশবেই ডানপিটে হয়ে পড়েন। স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের লেখাপড়া শেষ করে উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। সপ্তম শ্রেণীর পর আর পড়াশোনা করেননি।
নূর মোহাম্মদ শেখ ১৯৫৯-এর ১৪ মার্চ পূর্ব পাকিস্তান রাইফেলস বা ইপিআর-এ যোগদান করেন।বর্তমানে যা বর্ডার গার্ড অফ বাংলাদেশ বা বিজিবি নামে পরিচিত। দীর্ঘদিন দিনাজপুর সীমান্তে চাকরি করে ১৯৭০ সালের ১০ জুলাই নূর মোহাম্মদকে  যশোর সেক্টরে বদলি করা হয়। এরপর তিনি ল্যান্স নায়েক পদে পদোন্নতি পান। ১৯৭১ সালে যশোর অঞ্চল নিয়ে গঠিত ৮নং সেক্টরে স্বাধীনতা যুদ্ধে যোগদান করেন। যুদ্ধ চলাকালীন যশোরের শার্শা থানার কাশিপুর সীমান্তের বয়রা অঞ্চলে ক্যাপ্টেন নাজমুল হুদা’র নেতৃত্বে পাক হানাদারদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন।
১৯৭১ সালের ৫ সেপ্টেম্বর যশোরের গোয়ালহাটি ও ছুটিপুরে পাকবাহিনীর সাথে সম্মুখ যুদ্ধে অবতীর্ন হয়ে গুলিবিদ্ধ হন এবং অসম অবিশ্বাস্য যুদ্ধে তিনি শত্রুপক্ষের এমন ক্ষতিসাধন করেন যে তারা এই মৃত্যুপথযাত্রী বীর যোদ্ধাকে বেয়নেট চার্জ করে চোখ দুটো উপড়ে ফেলে এবং মস্তক বিদীর্ন করে ঘিলু ছড়িয়ে ফেলে। পরে প্রতিরক্ষার সৈনিকরা এসে পাশের একটি ঝাড় থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে যশোরের শার্শা থানার কাশিপুর গ্রামে তাকে সমাহিত করা হয়।
মুক্তিযুদ্ধে বীরোচিত ভূমিকা ও আত্মত্যাগের স্বীকৃতিস্বরূপ  নূর মোহম্মদকে ‘বীরশ্রেষ্ঠ’ খেতাবে ভূষিত করা হয়। আজ বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদের ৮৭ তম জন্মবার্ষিকীতে স্বশ্রদ্ধ সম্মান ও কৃতজ্ঞতা জানাই।
জনপ্রিয় সংবাদ

গোদাগাড়ীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান কর্তন

আজ বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখের ৮৭তম জন্মবার্ষিকী 

আপডেট সময় ০৪:০৩:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২২
স্বীকৃতি বিশ্বাস, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামকে বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাওয়ার জন্য দেশের সকল জনগণের যেমন অবদান রয়েছে তেমনি অবদান রয়েছে সিপাহি জনতার।বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে অসামান্য সাহসীকতার অবদান রাখার জন্য যে সাতজন বীরকে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান বীরশ্রেষ্ঠ উপাধিতে ভূষিত করা হয় তাদের মধ্যে বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ একজন।
বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখ ১৯৩৬ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি নড়াইল জেলার মহিষখোলা গ্রামের এক দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মোহাম্মদ আমানত শেখ, মাতা জেন্নাতুন্নেসা। অল্প বয়সে বাবা-মাকে হারান ফলে শৈশবেই ডানপিটে হয়ে পড়েন। স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের লেখাপড়া শেষ করে উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। সপ্তম শ্রেণীর পর আর পড়াশোনা করেননি।
নূর মোহাম্মদ শেখ ১৯৫৯-এর ১৪ মার্চ পূর্ব পাকিস্তান রাইফেলস বা ইপিআর-এ যোগদান করেন।বর্তমানে যা বর্ডার গার্ড অফ বাংলাদেশ বা বিজিবি নামে পরিচিত। দীর্ঘদিন দিনাজপুর সীমান্তে চাকরি করে ১৯৭০ সালের ১০ জুলাই নূর মোহাম্মদকে  যশোর সেক্টরে বদলি করা হয়। এরপর তিনি ল্যান্স নায়েক পদে পদোন্নতি পান। ১৯৭১ সালে যশোর অঞ্চল নিয়ে গঠিত ৮নং সেক্টরে স্বাধীনতা যুদ্ধে যোগদান করেন। যুদ্ধ চলাকালীন যশোরের শার্শা থানার কাশিপুর সীমান্তের বয়রা অঞ্চলে ক্যাপ্টেন নাজমুল হুদা’র নেতৃত্বে পাক হানাদারদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন।
১৯৭১ সালের ৫ সেপ্টেম্বর যশোরের গোয়ালহাটি ও ছুটিপুরে পাকবাহিনীর সাথে সম্মুখ যুদ্ধে অবতীর্ন হয়ে গুলিবিদ্ধ হন এবং অসম অবিশ্বাস্য যুদ্ধে তিনি শত্রুপক্ষের এমন ক্ষতিসাধন করেন যে তারা এই মৃত্যুপথযাত্রী বীর যোদ্ধাকে বেয়নেট চার্জ করে চোখ দুটো উপড়ে ফেলে এবং মস্তক বিদীর্ন করে ঘিলু ছড়িয়ে ফেলে। পরে প্রতিরক্ষার সৈনিকরা এসে পাশের একটি ঝাড় থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে যশোরের শার্শা থানার কাশিপুর গ্রামে তাকে সমাহিত করা হয়।
মুক্তিযুদ্ধে বীরোচিত ভূমিকা ও আত্মত্যাগের স্বীকৃতিস্বরূপ  নূর মোহম্মদকে ‘বীরশ্রেষ্ঠ’ খেতাবে ভূষিত করা হয়। আজ বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদের ৮৭ তম জন্মবার্ষিকীতে স্বশ্রদ্ধ সম্মান ও কৃতজ্ঞতা জানাই।