ঢাকা ০৪:২৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০২ জুন ২০২৩, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, যোগাযোগ: মোবাইল : 01712-446306, 01999-953970
ব্রেকিং নিউজ ::
নিয়ন্ত্রণহীন কাভার্ডভ্যানে প্রাণ গেলো মা-মেয়ের ইউনূসের প্ররোচনায় আমেরিকা স্যাংশন দিয়েছে: শিক্ষা উপমন্ত্রী  ভাইকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বোন’কে গণধর্ষণের ঘটনায় প্রধান ০৩ আসামীদের গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪। ভারত এখন আ.লীগের প্রতি প্রসন্ন না: হাসনা মওদুদ রামগঞ্জে ধর্ষণের দায়ে যুবক কারাগারে  ইন্দুরকানীতে বিদ্যুৎ বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে মাদ্রাসার ছাত্রর মৃত্যু শাহাজাদী বেগমের হত্যা মামলার আসামিরা ধরাছোঁয়ার বাহিরে, প্রশাসন নিরব!  খানসামায় প্রাথমিক শিক্ষা কমিটি গঠনে নানান অভিযোগ রাঙ্গাবালীতে মা ইলিশ রক্ষায় ৬৫ দিনের অবরোধে ২৩৯৩ জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ উলিপুরে ফুল মিয়া হত্যাকান্ডে জড়িতদের ফাঁসির দাবীবে মানববন্ধন নওগাঁর বদলগাছীতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কর্তৃক মসলা দোকানে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা প্রতিকৃতি সরিয়ে মেয়রের রক্ষা!  পাথরঘাটায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ ফেনসিডিল ও গাঁজাসহ ০২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০; মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত প্রাইভেটকার জব্দ। নোয়াখালীতে বিস্ফোরক মামলায় উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক গ্রেফতার

নির্বাচনী সহিংসতার মামলা প্রত্যাহার না করায় নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় শপথ নিয়েই বিজয়ী মেম্বার পরাজিত মেম্বার প্রার্থীকে কুপিয়েছে 

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:৩৪:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২২
  • ১৬৪৫ বার পড়া হয়েছে

নির্বাচনী সহিংসতার মামলা প্রত্যাহার না করায় নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় শপথ নিয়েই বিজয়ী মেম্বার পরাজিত মেম্বার প্রার্থীকে কুপিয়েছে 

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ভিডিও প্রতিযোগিতা: বিস্তারিত ফেইসবুক পেইজে

নেত্রকোণা প্রতিনিধিঃ
নির্বাচনী সহিংসতার মামলা প্রত্যাহার না করায় নব নির্বাচিত ইউপি মেম্বারের নেতৃত্বে ঘর থেকে ডেকে বের করে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করেছে পরাজিত ইউপি মেম্বার প্রার্থী মোঃ শফিকুল ইসলাম শফিককে (৪৪)।
ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে নেত্রকোণা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার রোয়াইলবাড়ী ইউনিয়নের কুতুবপুর গ্রামে।
স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রোয়াইলবাড়ী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদে কুতুবপুর গ্রামের মৃত লুৎফুর রহমানের পুত্র শফিকুল ইসলাম  শফিক ও একই  গ্রামের শাহাবুদ্দিনের পুত্র হারেছ মিয়া অংশ গ্রহন করে।
এ নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। নির্বাচনে হারেছ মিয়া মেম্বার পদে জয়লাভ করার পর ঐ দিন রাতেই বিজয় মিছিল নিয়ে পরাজিত মেম্বার প্রার্থী শফিক ও তার চাচাতো ভাই প্রখ্যাত কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের বাড়ীঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। এ ব্যাপারে শফিক বাদী হয়ে হারেছ মিয়াসহ ৭০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। এরপর থেকে মামলা আসামীরা বাদীকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য নানা ধরণের চাপ ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিল।
এরই জের ধরে মেম্বার হিসেবে হারেছ মিয়া শপথ নেয়ার পর বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তার নেতৃত্বে আলী হোসেন, এনামুল, মাসুদ, খায়রুলসহ ১৫/২০ জন লোক শফিকের বাড়ীতে গিয়ে তাকে ডেকে বের করে এলাপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে। তার আর্ত-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে হারেছ ও তার লোকজন চলে যায়। মূমুর্ষ অবস্থায় শফিককে উদ্ধার করে প্রথমে কেন্দুয়া হাসপাতালে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
এ ব্যাপারে কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শাহনেওয়াজ এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন,ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
জনপ্রিয় সংবাদ

নিয়ন্ত্রণহীন কাভার্ডভ্যানে প্রাণ গেলো মা-মেয়ের

নির্বাচনী সহিংসতার মামলা প্রত্যাহার না করায় নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় শপথ নিয়েই বিজয়ী মেম্বার পরাজিত মেম্বার প্রার্থীকে কুপিয়েছে 

আপডেট সময় ০৫:৩৪:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২২
নেত্রকোণা প্রতিনিধিঃ
নির্বাচনী সহিংসতার মামলা প্রত্যাহার না করায় নব নির্বাচিত ইউপি মেম্বারের নেতৃত্বে ঘর থেকে ডেকে বের করে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করেছে পরাজিত ইউপি মেম্বার প্রার্থী মোঃ শফিকুল ইসলাম শফিককে (৪৪)।
ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে নেত্রকোণা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার রোয়াইলবাড়ী ইউনিয়নের কুতুবপুর গ্রামে।
স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রোয়াইলবাড়ী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডে মেম্বার পদে কুতুবপুর গ্রামের মৃত লুৎফুর রহমানের পুত্র শফিকুল ইসলাম  শফিক ও একই  গ্রামের শাহাবুদ্দিনের পুত্র হারেছ মিয়া অংশ গ্রহন করে।
এ নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। নির্বাচনে হারেছ মিয়া মেম্বার পদে জয়লাভ করার পর ঐ দিন রাতেই বিজয় মিছিল নিয়ে পরাজিত মেম্বার প্রার্থী শফিক ও তার চাচাতো ভাই প্রখ্যাত কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের বাড়ীঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। এ ব্যাপারে শফিক বাদী হয়ে হারেছ মিয়াসহ ৭০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। এরপর থেকে মামলা আসামীরা বাদীকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য নানা ধরণের চাপ ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিল।
এরই জের ধরে মেম্বার হিসেবে হারেছ মিয়া শপথ নেয়ার পর বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তার নেতৃত্বে আলী হোসেন, এনামুল, মাসুদ, খায়রুলসহ ১৫/২০ জন লোক শফিকের বাড়ীতে গিয়ে তাকে ডেকে বের করে এলাপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে। তার আর্ত-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে হারেছ ও তার লোকজন চলে যায়। মূমুর্ষ অবস্থায় শফিককে উদ্ধার করে প্রথমে কেন্দুয়া হাসপাতালে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
এ ব্যাপারে কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শাহনেওয়াজ এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন,ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।