বাংলাদেশ ০৩:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
ভান্ডারিয়ায় ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্থ ৩ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিলেন সমাজ সেবক মিঠু মিয়া বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। বুড়িচং ফজলুর রহমান মেমোরিয়াল কলেজ অব টেকনোলজির শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে মাদক সাপ্লাইয়ের অভিযোগ  পেকুয়ায় ইভটিজিংয়ের দায়ে ২ জনকে কারাদণ্ড পীরগঞ্জ মহিলা কলেজে মেহেদী উৎসব অনুষ্ঠিত। পীরগঞ্জে ডিজিটাল প্রযুক্তি ও জীবন জীবীকা বিষয়ক প্রশিক্ষণ চলছে পাঠক শূন্য রাজশাহীর পুঠিয়ার সাধারণ পাঠাগার হত্যা মামলার পলাতক অন্যতম আসামী নুরুলকে র‍্যাব কর্তৃক গ্রেফতার। রাজশাহীর পুঠিয়ায় যাবজ্জাীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেপ্তার কলাপাড়ায় জেলেদের জালে শিকার হলো জীবিত এক ডলফিন। দৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাজশাহী মহানগরীতে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেপ্তার মির্জাগঞ্জে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ শেখ কামাল আইটি ট্রেনিংয়ে সারাদেশের মধ্যে প্রথম হয়েছে রাজাপুরের মশিউর রহমান তামিম ত্রিশালে রেইজ’র অভিবাসী বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন

বগুড়া আদমদীঘিতে একটি গ্রামের দীর্ঘ ত্রিশ বছরের বিবাদের সমাধান।

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:০৬:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২
  • ১৭০২ বার পড়া হয়েছে

বগুড়া আদমদীঘিতে একটি গ্রামের দীর্ঘ ত্রিশ বছরের বিবাদের সমাধান।

সজীব হাসান, আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি
বগুড়া জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী বিপিএম মহোদয়ের দিক নির্দেশনায় আদমদীঘি থানাধীন নশরতপুর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে দুইটি পক্ষের মধ্যকার দীর্ঘ ত্রিশ বছরের বিবাদের নিরাসনের লক্ষ্যে (২৫ মে) বুধবার বিকেলে একটি আলোচনার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

 

উক্ত আলোচনায় ঘণ্টাব্যাপী প্রচেষ্টার পরে গ্রামের দুইটি পক্ষের দীর্ঘদিন ধরে চলা বিভিন্ন বিষয়ের বিবাদ মিমাংসা উভয় পক্ষের সম্মতিতে সমাধান করা হয়। উক্ত মিমাংসা আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন। আব্দুল রশিদ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) বগুড়া, নাজরান রউফ সহকারী পুলিশ সুপার আদমদীঘি সার্কেল বগুড়া, সিরাজুল ইসলাম খান (রাজু) উপজেলা চেয়ারম্যান আদমদীঘি, অফিসার ইনচার্জ আদমদীঘি থানা, অফিসার ইনচার্জ দুপচাঁচিয়া থানা, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আদমদীঘি থানা এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় চেয়ারম্যান ও লক্ষীপুর গ্রামের সাধারণ জনগণ।

 

 

উল্লেখ্য আদমদিঘী থানার নশরতপুর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে বিবাদমান দুটি পক্ষ মসজিদের জায়গা জমি এবং ব্যক্তিগত সামাজিক ও রাজনৈতিক আধিপত্য বিস্তার প্রতিষ্ঠা করার জন্য প্রায় দীর্ঘ ত্রিশ বছর ধরে মারামারি, পাল্টাপাল্টি মামলা, জমি দখল, মসজিদ দখল, মসজিদের জায়গা জমি নিয়ে বিবাদ করে আসছিল।

 

উক্ত বিবাদমান বিষয়গুলো নিরসনে উভয় পক্ষদ্বয় স্থানীয়ভাবে জেলা পুলিশ বগুড়ার মধ্যস্থতায় আপোষ নামায় স্বাক্ষর করেন। উক্ত বিষয়ে তারা আর কোন বিরোধে লিপ্ত হবে না বলে উভয় পক্ষ সম্মত হয়। উভয় পক্ষদ্বয় পূর্বের ন্যায় শান্তিপূর্নভাবে বসবাস করবে বলে নিশ্চয়তা প্রদান করেন।

আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

ভান্ডারিয়ায় ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্থ ৩ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিলেন সমাজ সেবক মিঠু মিয়া

বগুড়া আদমদীঘিতে একটি গ্রামের দীর্ঘ ত্রিশ বছরের বিবাদের সমাধান।

আপডেট সময় ০৩:০৬:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২

সজীব হাসান, আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি
বগুড়া জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী বিপিএম মহোদয়ের দিক নির্দেশনায় আদমদীঘি থানাধীন নশরতপুর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে দুইটি পক্ষের মধ্যকার দীর্ঘ ত্রিশ বছরের বিবাদের নিরাসনের লক্ষ্যে (২৫ মে) বুধবার বিকেলে একটি আলোচনার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

 

উক্ত আলোচনায় ঘণ্টাব্যাপী প্রচেষ্টার পরে গ্রামের দুইটি পক্ষের দীর্ঘদিন ধরে চলা বিভিন্ন বিষয়ের বিবাদ মিমাংসা উভয় পক্ষের সম্মতিতে সমাধান করা হয়। উক্ত মিমাংসা আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন। আব্দুল রশিদ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) বগুড়া, নাজরান রউফ সহকারী পুলিশ সুপার আদমদীঘি সার্কেল বগুড়া, সিরাজুল ইসলাম খান (রাজু) উপজেলা চেয়ারম্যান আদমদীঘি, অফিসার ইনচার্জ আদমদীঘি থানা, অফিসার ইনচার্জ দুপচাঁচিয়া থানা, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আদমদীঘি থানা এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় চেয়ারম্যান ও লক্ষীপুর গ্রামের সাধারণ জনগণ।

 

 

উল্লেখ্য আদমদিঘী থানার নশরতপুর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে বিবাদমান দুটি পক্ষ মসজিদের জায়গা জমি এবং ব্যক্তিগত সামাজিক ও রাজনৈতিক আধিপত্য বিস্তার প্রতিষ্ঠা করার জন্য প্রায় দীর্ঘ ত্রিশ বছর ধরে মারামারি, পাল্টাপাল্টি মামলা, জমি দখল, মসজিদ দখল, মসজিদের জায়গা জমি নিয়ে বিবাদ করে আসছিল।

 

উক্ত বিবাদমান বিষয়গুলো নিরসনে উভয় পক্ষদ্বয় স্থানীয়ভাবে জেলা পুলিশ বগুড়ার মধ্যস্থতায় আপোষ নামায় স্বাক্ষর করেন। উক্ত বিষয়ে তারা আর কোন বিরোধে লিপ্ত হবে না বলে উভয় পক্ষ সম্মত হয়। উভয় পক্ষদ্বয় পূর্বের ন্যায় শান্তিপূর্নভাবে বসবাস করবে বলে নিশ্চয়তা প্রদান করেন।