বাংলাদেশ ০৮:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
রাবিতে বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আন্তঃক্লাব নারী বিতর্ক উৎসব ইয়াবা ট্যাবলেট সহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক ১। চলতি মৌসুমে ভুট্টার বাম্পার ফলনের আশা করছেন রায়গঞ্জের কৃষকেরা রক্তদানের মাধ্যমে টিউমার রোগীর অপারেশনে সহায়তা করলেন শিক্ষার্থী দেবাশীষ॥ ফুলবাড়ীর বারোকোন গ্রামে ক্রয়কৃত জমির প্রতিপক্ষের গাছ কর্তন।  গলাচিপায় এক সন্তানের জননীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধর সিংগাইরে আল ইহসান সমবায় সমিতির সভাপতির বিরুদ্ধে গ্রাহকদের লাখ লাখ টাকা আত্নসাতের অভিযোগ সালথার জয়ঝাফ উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা । ত্রিশাল পৌরসভার উপ-নির্বাচনে প্রচারণায় ব্যস্ত মেয়র প্রার্থী আমিন সরকার  পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে ছিল নানান আয়োজন, আজ বেশিভাগ ধর্মপ্রাণ মানুষেরা রোজা রেখেছেন ভর্তি পরীক্ষা : গুচ্ছভুক্ত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়ের আবেদনের সময় বাড়ল মোটরসাইকেলের জন্য ওয়ার্কসপ কর্মচারী নাহিদকে হত্যা, গ্রেপ্তার ৫। কাউনিয়ায় দৈনিক যুগান্তরের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  কাউখালীতে অটো টেম্পু মালিক সমিতির সদস্যর মৃত্যুতে স্মরণসভা অনুষ্ঠিত। মধ্যপাড়া খনিজ শিল্পাঞ্চলে যুব সংঘের বিরুদ্ধে বিভ্রান্তীমূলক অপপ্রচারের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা 

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে যৌতুক না দেওয়ায় গৃহবধূকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৭:২২:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ এপ্রিল ২০২২
  • ১৭৫৪ বার পড়া হয়েছে

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে নববধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ স্বজনদের,আটক-২

এইচ এম বাশাৱ ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি:
পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার ঢেপসাবুনিয়া গ্রামে যৌতুক না দেওয়ায় সুমী আকতার(১৭) নামে এক গৃহবধূকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ঢেপসাবুনিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ নিহত গৃহবধূর স্বামী হৃদয় হাওলাদার ও শাশুড়ি জেসমিন বেগমকে আটক করেছে ।
সুমীর নানা সাকায়েত ফরাজী জানান, ঢেপসাবুনিয়া গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ফারুক হাওলাদারের ছেলে হৃদয় হাওলাদারের সঙ্গে তার নাতনি সুমী আকতারের সাথে প্রেমের সম্পর্কের সুবাদে প্রায় এক বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া-কলহ লেগেই থাকতো। শাশুড়ি যৌতুক হিসাবে সুমীর মায়ের নিকট থেকে একটি মোটরসাইকেল কেনার টাকা আনতে চাপ দিচ্ছিলো। টাকা না আনায় সুমীর স্বামী, শাশুড়ি ননদ মিলে তাকে ঘরের মধ্যে আটকিয়ে অমানবিক নির্যাতন করেন। নির্যাতনের ফলে সুমীর মৃত্যু হয়েছে। পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুমীকে মৃত ঘোষণা করেন। তখন মরদেহ নিয়ে তারা দ্রুত বাড়িতে ফিরে আসেন। পরে তারা বিষ খাওয়ার ঘটনা রটিয়েছে।
এ ঘটনায় নিহত সুমীর নানা সাকায়েত ফরাজী বাদী হয়ে গতকাল রাতে সুমীর স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি ও ননদের বিরুদ্ধে ইন্দুরকানী থানায় হত্যার লিখিত অভিযোগ করেছেন। নিহত সুমীর মামা মনিৱ হোসাইন বলেন আমার ভাগ্নি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা তাকে হত্যা করা হয়েছে।
তবে অভিযুক্তরা বলছেন, যৌতুকের জন্য নয়, স্বামী-স্ত্রীর মনোমালিন্যের কারণে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে সুমী। সুমীর শ্বশুড় ফারুক হাওলাদার বলেন, স্বামী-স্ত্রীর মনোমালিন্য হলে ঘরে থাকা চাউলের পোকার ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন সুমী, যৌতুকের জন্য নয়।
ইন্দুরকানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনামুল হক বলেন, গৃহবধূ মৃত্যুর ঘটনায় তার স্বামী ও শাশুড়িকে আটক করা হয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। মৃত্যু নিয়ে পরস্পর বিরোধী বক্তব্য রয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হচ্ছে।
আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

রাবিতে বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আন্তঃক্লাব নারী বিতর্ক উৎসব

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে যৌতুক না দেওয়ায় গৃহবধূকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ

আপডেট সময় ০৭:২২:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ এপ্রিল ২০২২
এইচ এম বাশাৱ ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি:
পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার ঢেপসাবুনিয়া গ্রামে যৌতুক না দেওয়ায় সুমী আকতার(১৭) নামে এক গৃহবধূকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ঢেপসাবুনিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ নিহত গৃহবধূর স্বামী হৃদয় হাওলাদার ও শাশুড়ি জেসমিন বেগমকে আটক করেছে ।
সুমীর নানা সাকায়েত ফরাজী জানান, ঢেপসাবুনিয়া গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ফারুক হাওলাদারের ছেলে হৃদয় হাওলাদারের সঙ্গে তার নাতনি সুমী আকতারের সাথে প্রেমের সম্পর্কের সুবাদে প্রায় এক বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া-কলহ লেগেই থাকতো। শাশুড়ি যৌতুক হিসাবে সুমীর মায়ের নিকট থেকে একটি মোটরসাইকেল কেনার টাকা আনতে চাপ দিচ্ছিলো। টাকা না আনায় সুমীর স্বামী, শাশুড়ি ননদ মিলে তাকে ঘরের মধ্যে আটকিয়ে অমানবিক নির্যাতন করেন। নির্যাতনের ফলে সুমীর মৃত্যু হয়েছে। পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুমীকে মৃত ঘোষণা করেন। তখন মরদেহ নিয়ে তারা দ্রুত বাড়িতে ফিরে আসেন। পরে তারা বিষ খাওয়ার ঘটনা রটিয়েছে।
এ ঘটনায় নিহত সুমীর নানা সাকায়েত ফরাজী বাদী হয়ে গতকাল রাতে সুমীর স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি ও ননদের বিরুদ্ধে ইন্দুরকানী থানায় হত্যার লিখিত অভিযোগ করেছেন। নিহত সুমীর মামা মনিৱ হোসাইন বলেন আমার ভাগ্নি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা তাকে হত্যা করা হয়েছে।
তবে অভিযুক্তরা বলছেন, যৌতুকের জন্য নয়, স্বামী-স্ত্রীর মনোমালিন্যের কারণে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে সুমী। সুমীর শ্বশুড় ফারুক হাওলাদার বলেন, স্বামী-স্ত্রীর মনোমালিন্য হলে ঘরে থাকা চাউলের পোকার ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন সুমী, যৌতুকের জন্য নয়।
ইন্দুরকানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনামুল হক বলেন, গৃহবধূ মৃত্যুর ঘটনায় তার স্বামী ও শাশুড়িকে আটক করা হয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। মৃত্যু নিয়ে পরস্পর বিরোধী বক্তব্য রয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হচ্ছে।