বাংলাদেশ ০১:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
প্রতিমন্ত্রী মো. মহিববুর রহমান এমপি’র বানী রামপুর মধ্যপাড়া মরহুম হাজী নিতু মন্ডল এর বাড়ির উদ্যোগে-৪র্থ বার্ষিক ওয়াজ ও দোয়ার মাহফিল। রাজশাহী মহানগরীতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই! দুই ভুয়া ডিবি গ্রেফতার পটুয়াখালী মহিপুর ইয়াবাসহ একজন গ্রেফতার। চন্দ্রকোনায় অনুষ্ঠিত হয়ে গেল এক ব্যতিক্রমী চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা। আজ শেরপুর জেলার জন্মদিন অবৈধ গ্যাস সংযোগ উচ্ছেদ অভিযান শুরু মুহম্মদ ফয়সল আকন্দের ‘চন্দ্রপুর’ গ্রন্থের পাঠ উন্মোচন সভা অনুষ্ঠিত  বর্তমান সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য অনেক কিছু করেছে : আমু মতলব ব্রহ্মানন্দ যোগাশ্রমে শ্রী শ্রী বিশ্ব শান্তি গীতা যজ্ঞ ও সনাতন ধর্ম সম্মেলন ২৪ ফেব্রুয়ারী রাজশাহীতে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজের ডিজিটাল বুথের উদ্বোধন রাজশাহী পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত জবিতে শুরু হচ্ছে ৬ দিন ব্যাপি সিনেশো ব্যরিস্টার শাহজাহান ওমরের বিকল্পে জামালকে মূল্যায়ন পিরোজপুরের নেছারাবাদে দুই দিনে পাগলা কুকুরের কামড়ে নারী শিশু, বৃদ্ধসহ ১৭ জন আহত

ঝালকাঠিতে ১৮৪ অসহায় পরিবার আশ্রয়নের ঘরে উঠলো

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:১৫:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ এপ্রিল ২০২২
  • ১৬৬১ বার পড়া হয়েছে

ঝালকাঠিতে ১৮৪ অসহায় পরিবার আশ্রয়নের ঘরে উঠলো

মো. নাঈম হাসান ঈমন, ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ তৃতীয় পর্যায়ে ঝালকাঠির ভূমিহীন ও গৃহহীন ১৮৪ পরিবারকে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে জমি ও গৃহ প্রদান করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ঝালকাঠি জেলার ৪টি উপজেলায় ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে ২৬ এপ্রিল বুধবার বেলা ১১ টায় এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক ভাবে শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। এসময় প্রত্যেক পরিবারের হাতে ঘরের চাবি, জমির দলীল এবং সনদপত্র তুলে দেয়া হয়।
৩য় পর্যায়ে ঝালকাঠি সদর উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন ৫৪৭ টি পরিবারের মধ্যে গৃহ হস্তান্তর করার কথা থাকলেও সংস্লিষ্ট কতৃপক্ষ মাত্র ১৪৭ টি গৃহ নির্মান সম্পন্ন করতে পেরেছে। অসম্পুর্ণ হওয়া বাকি ৩৮৩টি গৃহের কাজ চলমান আছে বলে জানিয়েছে স্ব স্ব উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তারা।
তবে কাঠালিয়া উপজেলায় শতভাগ গৃহ হস্তান্তর করা হয়েছে। এই উপজেলায় চলতি পর্যায়ে ৯৯টি ঘর হস্তান্তর করার ঘোষনা অনুযায়ী সব গুলোই বুধবার হস্তান্তর করা হয়েছে।
অন্যদিকে এই ধাপে ঝালকাঠি সদর উপজেলায় ১১৮ টি ঘরের স্থলে ১৩টি, রাজাপুরে ৮০ টি ঘরের স্থলে ৩৫ টি, এবং নলছিটি উপজেলায় ২৫০ টি ঘরের স্থলে ৩৭ টি গৃহের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে।
বুধবার সকালে ঝালকাঠির প্রতিটি উপজেলায় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক আশ্রয়নের ভুমি ও গৃহ হস্তান্তরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে দেখানো হয়েছে।
নতুন ঘরের চাবি হাতে পেয়ে খুশি সুবিধাভোগীরা। তারা বলেন, দেশ স্বাধীনের পরে গরীবের দিকে কোনো সরকার খেয়াল দেয়নাই। অনেকে বলেছেন, সন্তানদের জন্য মাথা গোজার থাই করে দিলো শেখ হাসিনা সনকার।
সদর উপজেলার নির্মল কর্মকার বলেন, ‘মরার আগে নিজে জমি কিননা ঘর বানাইতে পারতামনা, শেখ হাসিনা আমারে ঘরের মালিক বাইয়া দেছে, আমার আর চাওয়া পাওয়ার কিচছু নাই।
এসময় সকল উপজেলায় প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুধীজনসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

প্রতিমন্ত্রী মো. মহিববুর রহমান এমপি’র বানী

ঝালকাঠিতে ১৮৪ অসহায় পরিবার আশ্রয়নের ঘরে উঠলো

আপডেট সময় ০৬:১৫:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ এপ্রিল ২০২২
মো. নাঈম হাসান ঈমন, ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ তৃতীয় পর্যায়ে ঝালকাঠির ভূমিহীন ও গৃহহীন ১৮৪ পরিবারকে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে জমি ও গৃহ প্রদান করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ঝালকাঠি জেলার ৪টি উপজেলায় ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে ২৬ এপ্রিল বুধবার বেলা ১১ টায় এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক ভাবে শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। এসময় প্রত্যেক পরিবারের হাতে ঘরের চাবি, জমির দলীল এবং সনদপত্র তুলে দেয়া হয়।
৩য় পর্যায়ে ঝালকাঠি সদর উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন ৫৪৭ টি পরিবারের মধ্যে গৃহ হস্তান্তর করার কথা থাকলেও সংস্লিষ্ট কতৃপক্ষ মাত্র ১৪৭ টি গৃহ নির্মান সম্পন্ন করতে পেরেছে। অসম্পুর্ণ হওয়া বাকি ৩৮৩টি গৃহের কাজ চলমান আছে বলে জানিয়েছে স্ব স্ব উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তারা।
তবে কাঠালিয়া উপজেলায় শতভাগ গৃহ হস্তান্তর করা হয়েছে। এই উপজেলায় চলতি পর্যায়ে ৯৯টি ঘর হস্তান্তর করার ঘোষনা অনুযায়ী সব গুলোই বুধবার হস্তান্তর করা হয়েছে।
অন্যদিকে এই ধাপে ঝালকাঠি সদর উপজেলায় ১১৮ টি ঘরের স্থলে ১৩টি, রাজাপুরে ৮০ টি ঘরের স্থলে ৩৫ টি, এবং নলছিটি উপজেলায় ২৫০ টি ঘরের স্থলে ৩৭ টি গৃহের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে।
বুধবার সকালে ঝালকাঠির প্রতিটি উপজেলায় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক আশ্রয়নের ভুমি ও গৃহ হস্তান্তরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে দেখানো হয়েছে।
নতুন ঘরের চাবি হাতে পেয়ে খুশি সুবিধাভোগীরা। তারা বলেন, দেশ স্বাধীনের পরে গরীবের দিকে কোনো সরকার খেয়াল দেয়নাই। অনেকে বলেছেন, সন্তানদের জন্য মাথা গোজার থাই করে দিলো শেখ হাসিনা সনকার।
সদর উপজেলার নির্মল কর্মকার বলেন, ‘মরার আগে নিজে জমি কিননা ঘর বানাইতে পারতামনা, শেখ হাসিনা আমারে ঘরের মালিক বাইয়া দেছে, আমার আর চাওয়া পাওয়ার কিচছু নাই।
এসময় সকল উপজেলায় প্রশাসনের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুধীজনসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।