বাংলাদেশ ০৭:৫৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
বেইলী রোডের কাচ্চিভাই নামক রেস্টুরেন্টে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সাহসী ভূমিকা পালন করছে র‌্যাব-৩। অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা মিজানুর রহমানকে জনতা ব্যাংকের নির্বাহী কর্মকর্তা হওয়ায় বেইলি রোডে একটি রেস্টুরেন্টে লাগা আগুন ফায়ার সার্ভিসের ১৩ টি ইউনিটের চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে। বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এপর্যন্ত ৬৮ জন জীবিত উদ্ধার, বদলগাছী উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত।  ভোটের সার্বিক কার্যক্রম কমিশন থেকে মনিটরিং ইসি সচিব জাহাঙ্গীর আলম কিশোর গ্যাং আমির গ্রুপের লীডার আমির সহ ০৯ সদস্য গ্রেফতার। নলছিটি তালতলা বাজার থেকে ৫ কেজি গাজা সহ গোশত ব্যবসায়ি ফারুক আটক বঙ্গবন্ধু মুক্তির সংগ্রাম বলতে অর্থনৈতিক মুক্তি বুঝিয়েছেন: কাজী খলীকুজ্জমান প্রায় অর্ধ কোটি টাকার অবৈধ মাদকদ্রব্য উদ্ধার: বিপুল পরিমান ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ০৩ জন বড় মাদক ব্যবসায়ী আটক এবং মাদক পরিবহনকারী গাড়ী জব্দ। জবিতে ‘আমরা তোমাদের ভুলবো না’ শীর্ষক অনুষ্ঠান আয়োজিত  রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পেলেন মাধবপুর থানার ওসি মোঃ রকিবুল খান দুই মামলা থেকেই অব্যাহতি পেলেন খাদিজা পৌরবাসীর ক্ষোভের মুখে সাবমার্সিবল বিল বাতিল ঘোষণা  জবিতে ক্যান্সার আক্রান্ত শিক্ষার্থীর জন্য ‘কনসার্ট ফর জহির’  ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শিশু নাট্যমের ৯ম আর্ট ক্যাম্প আয়োজন।

ভোলায় আলোচিত জোড়া খুন মামলায় দুই আসামীর মৃত্যুদন্ড

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১১:০১:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ মার্চ ২০২২
  • ১৬৯১ বার পড়া হয়েছে

ভোলায় আলোচিত জোড়া খুন মামলায় দুই আসামীর মৃত্যুদন্ড

 

কামরুজ্জামান শাহীন, ভোলা॥

ভোলার সদর উপজেলায় আলোচিত জোড়া খুন মামলায় দুই আসামীনমৃত্যুদন্ড, একজনের যাবজ্জীবন (আমৃত্য) মৃত্যুদন্ড ও অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় দুই জনকে খালাস দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের প্রত্যেকের ১০ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড দেওয়া হয়েছে। বুধবার (৩০ মার্চ) দুপুরে ভোলা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. মুহসিনুল হক এ রায় ঘোষণা করেন।

 

মৃত্যুদন্ড প্রাপ্তরা হলেন- ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের ভোটের ঘর গ্রামের বাসিন্দা মো. মামুনুর রসিদ মামুন ও ফিরোজ। মামুনের ছেলে শরীফকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেওয়া হয়। এছাড়া মামুনের স্ত্রী রেহানা ও ছেলে আরিফকে খালাস দেওয়া হয়। পাঁচ আসামির চারজন আদালতে উপস্থিত হলেও ফিরোজ পলাতক রয়েছেন।

 

মামলা সূত্রে জানা যায়, ভোলা জেলা স্কুলের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ও ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের ভোটের ঘর এলাকার বাসিন্দা মোস্তফার মৃত্যু পর তার সম্পত্তি ভাগাভাগি নিয়ে বড় ছেলে মো. মামুন ও ছোট ছেলে মাসুমের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। ওই বিরোধের জেরে গত ২০১৮ সালের ১৩ মে রাতে বাড়ির সামনে বড় ভাই মামুন ও তার সহযোগী মো. ফিরোজ ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ছোট ভাই মাসুমকে হত্যা করেন।

 

এ সময় এগিয়ে এলে মাসুমের শ্যালক মো. জাহিদকেও কুপিয়ে আহত করেন তারা। স্থানীয়রা জাহিদকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকেও মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনার পরে নিহত মাসুমের শ্বশুর ও জাহিদের বাবা মো. মোস্তাফিজুর রহমান বাদী হয়ে ভোলা সদর মডেল থানায় মামুন, ফিরোজ, মামুনের স্ত্রী রেহানা ও তার ছেলে শরীফ এবং আরিফকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার চার আসামি পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলেও পলাতক রয়েছেন মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামী ফিরোজ। ওাষ্টপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন পিপি অ্যাডভোকেট সৈয়দ আশরাফ হোসেন লাভু ও অ্যাডভোকেট স্বপন কৃষ্ণ দে। রায়ে নিহতের মাসুদের বাবা মামলার বাদী মোস্তাফিজুর রহমান সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এবং দ্রুত পলাতক আমাসী ফিরোজকে গ্রেফতাওে দাবী করেন। ভোলা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) মো. সোয়েব হোসেন মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

 

 

আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello

বেইলী রোডের কাচ্চিভাই নামক রেস্টুরেন্টে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সাহসী ভূমিকা পালন করছে র‌্যাব-৩।

ভোলায় আলোচিত জোড়া খুন মামলায় দুই আসামীর মৃত্যুদন্ড

আপডেট সময় ১১:০১:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ মার্চ ২০২২

 

কামরুজ্জামান শাহীন, ভোলা॥

ভোলার সদর উপজেলায় আলোচিত জোড়া খুন মামলায় দুই আসামীনমৃত্যুদন্ড, একজনের যাবজ্জীবন (আমৃত্য) মৃত্যুদন্ড ও অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় দুই জনকে খালাস দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের প্রত্যেকের ১০ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড দেওয়া হয়েছে। বুধবার (৩০ মার্চ) দুপুরে ভোলা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. মুহসিনুল হক এ রায় ঘোষণা করেন।

 

মৃত্যুদন্ড প্রাপ্তরা হলেন- ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের ভোটের ঘর গ্রামের বাসিন্দা মো. মামুনুর রসিদ মামুন ও ফিরোজ। মামুনের ছেলে শরীফকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেওয়া হয়। এছাড়া মামুনের স্ত্রী রেহানা ও ছেলে আরিফকে খালাস দেওয়া হয়। পাঁচ আসামির চারজন আদালতে উপস্থিত হলেও ফিরোজ পলাতক রয়েছেন।

 

মামলা সূত্রে জানা যায়, ভোলা জেলা স্কুলের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ও ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের ভোটের ঘর এলাকার বাসিন্দা মোস্তফার মৃত্যু পর তার সম্পত্তি ভাগাভাগি নিয়ে বড় ছেলে মো. মামুন ও ছোট ছেলে মাসুমের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। ওই বিরোধের জেরে গত ২০১৮ সালের ১৩ মে রাতে বাড়ির সামনে বড় ভাই মামুন ও তার সহযোগী মো. ফিরোজ ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ছোট ভাই মাসুমকে হত্যা করেন।

 

এ সময় এগিয়ে এলে মাসুমের শ্যালক মো. জাহিদকেও কুপিয়ে আহত করেন তারা। স্থানীয়রা জাহিদকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকেও মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনার পরে নিহত মাসুমের শ্বশুর ও জাহিদের বাবা মো. মোস্তাফিজুর রহমান বাদী হয়ে ভোলা সদর মডেল থানায় মামুন, ফিরোজ, মামুনের স্ত্রী রেহানা ও তার ছেলে শরীফ এবং আরিফকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার চার আসামি পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলেও পলাতক রয়েছেন মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামী ফিরোজ। ওাষ্টপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন পিপি অ্যাডভোকেট সৈয়দ আশরাফ হোসেন লাভু ও অ্যাডভোকেট স্বপন কৃষ্ণ দে। রায়ে নিহতের মাসুদের বাবা মামলার বাদী মোস্তাফিজুর রহমান সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এবং দ্রুত পলাতক আমাসী ফিরোজকে গ্রেফতাওে দাবী করেন। ভোলা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) মো. সোয়েব হোসেন মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।