বাংলাদেশ ০৬:০৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
‌সি‌লে‌টে কবি আবুল বশর আনসারী’র লেখা কবিতা পবিত্র সিলেট ভূমি ফলক উন্মোচন ও জীবনী নি‌য়ে আলোচনা। তিন পদে লোক নিচ্ছে হুয়াওয়ে বাংলাদেশ সম্পত্তির লালসায় তিনশত ফলজ কলাগাছ কেটে টুকরো, কলাগাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা প্রশ্ন স্হানীয়দের লাল মরিচের ঝাঁঝে কৃষকের খুঁশি স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ ও হত্যার পলাতক আসামী গ্রেফতার।  গার্মেন্টস কর্মীকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে জোরপূর্বক গণধর্ষণের মূল পরিকল্পনাকারী সহ ০৫ জন ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। হেরোইনসহ ০১ জন মাদক কারবারী কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।  শিশুদের রংতুলিতে ভাষা আন্দোলনের প্রতিচ্ছবি: জবি উপাচার্য রাবিতে ঢাকা জেলা সমিতির নেতৃত্বে আনাস-শিহাব তালতলীর খালাকে হত্যার পর কানের রিং বিক্রি করে খুনিকে টাকা দেয় ভাগ্নে কলাপাড়ায় এক সন্তানের জননীকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ নতুন কারিকুলাম বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সুপারিশ রাঙ্গাবালীতে মৎস্য ব্যবসায়ী রাসাদ হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন। পিঠা উৎসব ও বসন্ত বরনকে কেন্দ্র করে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মিলন মেলায় পরিনত  নলছিটিতে শ্রমিকলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা 

গ্রামবাংলার সবুজের ঘেরা ক্যাম্পাস!!

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৪:৪৬:৩১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ মার্চ ২০২২
  • ১৬৭৫ বার পড়া হয়েছে

গ্রামবাংলার সবুজের ঘেরা ক্যাম্পাস!!

 

 

 

 

 

মোঃ ছায়েদ হোসেন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতাঃ

 

শহরের কোলাহল মুক্ত চিরচেনা সবুজে ঘেরা গ্রামবাংলার একেবারে পাড়াগাঁয়ে লক্ষ্মীপুর জেলা শহর থেকে ৩৫ কিলোমিটার ও নোয়াখালী জেলা শহর থেকে ৫০ কিেিলামিাটর দুরে রামগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তি উদয়পুর গ্রামে ফরিদ আহমেদ ভুইয়া একাডেমির আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০১৭ সালে। দেশের নামকরা ব্যবসায়ী, শিক্ষাবিদ ও সমাজসেবক বীরমুক্তিযোদ্ধা ফরিদ আহমেদ ভুইয়া তাঁর রতœগর্ভা মা রহিমা খাতুনের কথা রাখতে গিয়ে আন্তরিক প্রচেষ্টায় দেশের সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কারিকুলাম নিবিড় পর্যবেক্ষন করে ক্যাডেট কলেজের আদলে এ প্রতিষ্ঠিনটি গড়ে তুলেন। চারদিকে সবুজ আর সবুজে,নিরিবিলি পরিবেশে ৩৫ বিঘা জমি জুড়ে নান্দনিক সুউচ্চ ভবন, খেলার মাঠ, মসজিদ সব মিলিয়ে দৃষ্টিনন্দন এই প্রতিষ্ঠানটির ক্যাম্পাস দেখে মনে হয় এ যেন কোনো শিল্পীর সুনিপুণ ছোঁয়ায় আঁকা একটি চিত্রকর্ম। তার উপর

 

 

একাডেমিক ভবনের সামনে রক্তকরবী,কসমস,জবা,রঙ্গন,কলাবতী,গন্ধরাজ,কামিনি,চেরি,বেলি, নয়নতারাসহ হরেক রকমের ফুলের বাগান। ছবির মতো সুন্দর প্রাকৃতিক অপরূপ সৌন্দর্যে গড়া এ ক্যাম্পাস দূরদুরান্ত থেকে মানুষ দেখতে এসে বিমোহিত হন। ২০২০ সালে লক্ষ্মীপুর জেলার জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল একাডেমির পরিদর্শনে এসে বলেন-অজপাড়া গায়ে এমন সুন্দর নয়নাভিমার ক্যাম্পাস দেখে আমি হতভাব। এভাবে সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাসহ যারা এ একাডেমির ক্যাম্পাসে এসেছেন তারা এর সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়েছেন। শিক্ষার্থীরাও লেখাপড়া পাশাপাশি নিরিবিলি, শান্ত ও স্নিগ্ধ এই ক্যাম্পাসে প্রশান্তির নিঃশ্বাস ফেলেন।

 

একাডেমিটি প্রতিষ্ঠার মাত্র চার বছরের মাথায় প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ ভুইয়া ও অধ্যক্ষ অধ্যাপক খন্দকার আবদুল মান্নানের নেতৃত্বে এক ঝাঁক দক্ষ শিক্ষকদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় শিক্ষার গুণগত মানে, শতভাগ পাসসহ সকল পরিক্ষার ফলাফলে জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসাবে শক্ত অবস্থান গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে। সৃজনশীলতা ও মননশীলতা ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক চর্চায়ও রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির সুখ্যাতি। ক্রীড়া,সাংস্কৃতি,বিতর্কসহ জেলা ও উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত প্রতিটি প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে। একাডেমির শ্রেণী কক্ষগুলোতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সন্নিবেশ করা হয়েছে। প্রতিটি শ্রেনীকক্ষে বোর্ড, প্রজেক্টরসহ প্রয়োজনীয় শিক্ষা উপকরণ রয়েছে।

 

লাইব্রেরিটিতে দেশি-বিদেশি প্রয়োজনীয় সব পুস্তকসহ জার্নাল, ম্যাগাজিন, গবেষণাপত্র ও প্রয়োজনীয় অডিও ও ভিজ্যুয়াল তথ্য-উপাত্ত রয়েছে। শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ল্যাব। এসব ল্যাবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয় রয়েছে, রয়েছে আধুনিক মানসম্পন্ন যন্ত্রপাতি। শিক্ষার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের বাস্তবমুখী জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জনে এ ল্যাবগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

 

 

এই একাডেমির শিক্ষকগন তাদের কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের দক্ষ ও যোগ্য করে গড়ে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। সর্বোপুরি একজন আদর্শ নাগরিক ও একজন ভাল মাানুষ মানুষ গড়ে তুলতে শিক্ষা কার্যক্রম চালাচ্ছে এই একাডেমি। বর্তমানে ৫০ জন শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে একাডেমিতে ৬ষ্ঠ শ্রেনী থেকে এইচএসসি পর্যন্ত সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছেন। ৬তলা একাডেমিক ভবন ও শিক্ষার্থীদের আবাসনের জন্য হল রয়েছে ২টি, যার মধ্যে ১টি ছাত্র হল ও ১টি ছাত্রী হল। শিক্ষকদের জন্য রয়েছে আবাসন ভবন। প্রকৃতি, সবুজ, শিক্ষা সব মিলেমিশে একাকার এমন নয়নাভিরাম ক্যাম্পাস গ্রাম বাংলায় বিরল।

 

 

 

জনপ্রিয় সংবাদ

‌সি‌লে‌টে কবি আবুল বশর আনসারী’র লেখা কবিতা পবিত্র সিলেট ভূমি ফলক উন্মোচন ও জীবনী নি‌য়ে আলোচনা।

গ্রামবাংলার সবুজের ঘেরা ক্যাম্পাস!!

আপডেট সময় ০৪:৪৬:৩১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ মার্চ ২০২২

 

 

 

 

 

মোঃ ছায়েদ হোসেন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতাঃ

 

শহরের কোলাহল মুক্ত চিরচেনা সবুজে ঘেরা গ্রামবাংলার একেবারে পাড়াগাঁয়ে লক্ষ্মীপুর জেলা শহর থেকে ৩৫ কিলোমিটার ও নোয়াখালী জেলা শহর থেকে ৫০ কিেিলামিাটর দুরে রামগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তি উদয়পুর গ্রামে ফরিদ আহমেদ ভুইয়া একাডেমির আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০১৭ সালে। দেশের নামকরা ব্যবসায়ী, শিক্ষাবিদ ও সমাজসেবক বীরমুক্তিযোদ্ধা ফরিদ আহমেদ ভুইয়া তাঁর রতœগর্ভা মা রহিমা খাতুনের কথা রাখতে গিয়ে আন্তরিক প্রচেষ্টায় দেশের সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কারিকুলাম নিবিড় পর্যবেক্ষন করে ক্যাডেট কলেজের আদলে এ প্রতিষ্ঠিনটি গড়ে তুলেন। চারদিকে সবুজ আর সবুজে,নিরিবিলি পরিবেশে ৩৫ বিঘা জমি জুড়ে নান্দনিক সুউচ্চ ভবন, খেলার মাঠ, মসজিদ সব মিলিয়ে দৃষ্টিনন্দন এই প্রতিষ্ঠানটির ক্যাম্পাস দেখে মনে হয় এ যেন কোনো শিল্পীর সুনিপুণ ছোঁয়ায় আঁকা একটি চিত্রকর্ম। তার উপর

 

 

একাডেমিক ভবনের সামনে রক্তকরবী,কসমস,জবা,রঙ্গন,কলাবতী,গন্ধরাজ,কামিনি,চেরি,বেলি, নয়নতারাসহ হরেক রকমের ফুলের বাগান। ছবির মতো সুন্দর প্রাকৃতিক অপরূপ সৌন্দর্যে গড়া এ ক্যাম্পাস দূরদুরান্ত থেকে মানুষ দেখতে এসে বিমোহিত হন। ২০২০ সালে লক্ষ্মীপুর জেলার জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল একাডেমির পরিদর্শনে এসে বলেন-অজপাড়া গায়ে এমন সুন্দর নয়নাভিমার ক্যাম্পাস দেখে আমি হতভাব। এভাবে সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাসহ যারা এ একাডেমির ক্যাম্পাসে এসেছেন তারা এর সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়েছেন। শিক্ষার্থীরাও লেখাপড়া পাশাপাশি নিরিবিলি, শান্ত ও স্নিগ্ধ এই ক্যাম্পাসে প্রশান্তির নিঃশ্বাস ফেলেন।

 

একাডেমিটি প্রতিষ্ঠার মাত্র চার বছরের মাথায় প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ ভুইয়া ও অধ্যক্ষ অধ্যাপক খন্দকার আবদুল মান্নানের নেতৃত্বে এক ঝাঁক দক্ষ শিক্ষকদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় শিক্ষার গুণগত মানে, শতভাগ পাসসহ সকল পরিক্ষার ফলাফলে জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসাবে শক্ত অবস্থান গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে। সৃজনশীলতা ও মননশীলতা ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক চর্চায়ও রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির সুখ্যাতি। ক্রীড়া,সাংস্কৃতি,বিতর্কসহ জেলা ও উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত প্রতিটি প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে। একাডেমির শ্রেণী কক্ষগুলোতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সন্নিবেশ করা হয়েছে। প্রতিটি শ্রেনীকক্ষে বোর্ড, প্রজেক্টরসহ প্রয়োজনীয় শিক্ষা উপকরণ রয়েছে।

 

লাইব্রেরিটিতে দেশি-বিদেশি প্রয়োজনীয় সব পুস্তকসহ জার্নাল, ম্যাগাজিন, গবেষণাপত্র ও প্রয়োজনীয় অডিও ও ভিজ্যুয়াল তথ্য-উপাত্ত রয়েছে। শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ল্যাব। এসব ল্যাবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সমন্বয় রয়েছে, রয়েছে আধুনিক মানসম্পন্ন যন্ত্রপাতি। শিক্ষার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের বাস্তবমুখী জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জনে এ ল্যাবগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

 

 

এই একাডেমির শিক্ষকগন তাদের কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের দক্ষ ও যোগ্য করে গড়ে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। সর্বোপুরি একজন আদর্শ নাগরিক ও একজন ভাল মাানুষ মানুষ গড়ে তুলতে শিক্ষা কার্যক্রম চালাচ্ছে এই একাডেমি। বর্তমানে ৫০ জন শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে একাডেমিতে ৬ষ্ঠ শ্রেনী থেকে এইচএসসি পর্যন্ত সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছেন। ৬তলা একাডেমিক ভবন ও শিক্ষার্থীদের আবাসনের জন্য হল রয়েছে ২টি, যার মধ্যে ১টি ছাত্র হল ও ১টি ছাত্রী হল। শিক্ষকদের জন্য রয়েছে আবাসন ভবন। প্রকৃতি, সবুজ, শিক্ষা সব মিলেমিশে একাকার এমন নয়নাভিরাম ক্যাম্পাস গ্রাম বাংলায় বিরল।