বাংলাদেশ ১২:৪১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে

ঘূর্ণিঝড় মিধিলিতে নিখোজ ২৫, পরিবারে চলছে আহাজারি।

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৩:৩৭:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩
  • ১৬৬০ বার পড়া হয়েছে

ঘূর্ণিঝড় মিধিলিতে নিখোজ ২৫, পরিবারে চলছে আহাজারি।

 

 

 

 

 

মোঃ কাওছার আহম্মেদ, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: 

ঘূর্ণিঝড় মিধিলির পর পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ২৫ মাঝিমাল্লাসহ নিখোঁজ তিন,  ট্রলারের মাল্লা (মাঝি) ছিল জিসান প্যাদা। সে উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ঝিলাম প্যাদার ছেলে।

 

 

 

 

জানা গেছে, জিসানের সঙ্গে তার খালতো ভাই তামিমও জেলে হিসাবে ছিল ওই ট্রলারে। তারও সন্ধান মিলছে না। কোথায় আছে, কেমন আছে, তাদের ভাগ্যে কি ঘটেছে- তা জানে না কেউ।

 

 

 

 

জিসান-তামিমের পরিবারের মতোই স্বজন ফিরে আসার প্রতীক্ষার প্রহর গুনছে আরও ২৩ পরিবার। সময় যতই গড়াচ্ছে, উৎকণ্ঠা বাড়ছে। নিখোঁজ জেলেদের বাড়িতে বাড়িতে চলছে আহাজারি। নিখোঁজের পাচদিন হলেও এখনও কারও সন্ধান মেলেনি। নিখোঁজ জেলেদের সন্ধানে প্রশাসনের ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি পরিবারের।

 

 

 

 

বইন্নার (ঝড়ের) দিন সাড়ে ১১টার কালেও (সময়) বাবার লগে ফোনে কথা অইছে। আমারে কয় মা ঝড়-বৃষ্টির বাতাসের কারণে কথা বুঝি না। জাল টানতে আছি। শেষ হইলেই তোমারে ফোন করমু। বাবায় আমার আর ফোন করে নাই। এহন যতই ফোনে কল দেই শুধু বন্ধ কয়। ও বাবা তুই মায়রে ফোন করোস না ক্যা?

 

 

 

নিখোঁজ ছেলের কথা বলে এভাবেই বিলাপ করে স্বজনদের সঙ্গে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন মা নাজমা বেগম। তার ছেলের নাম জিসান প্যাদা (১৯)। পাশের গ্রামের হাসান জোমাদ্দারের মালিকানাধীন ট্রলারের মাল্লা হিসাবে সাগরে মাছ শিকারে গিয়েছিলেন। ঘূর্ণিঝড় মিধিলির পরে ওই ট্রলারটি নিখোঁজ হয়। এরপর আর কারও সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। ফলে সময় যতই যাচ্ছে পরিবার ও স্বজনদের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ছে।

 

 

 

 

 

পুলিশের তথ্যানুযায়ী, ঘূর্ণিঝড় মিধিলিতে উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের কাউখালী গ্রামের বাসিন্দা হাসান জোমাদ্দারের ট্রলারের ৮, মৌডুবী ইউনিয়নের কাজিকান্দা দিদার মৃধার ট্রলারের ৮ ও একই এলাকার হিমু হাওলাদারের মালিকানাধীন ট্রলারের ৯ জেলে নিখোঁজ হয়। তাদের মধ্যেই নিখোঁজ হওয়া উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের নয়াভাঙ্গুণি গ্রামের জহির মাঝি। সরেজমিন তার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, জহিরের মা, স্ত্রী ও তিন সন্তানের কান্নায় ভারি হয়ে উঠেছে পরিবেশ।

 

 

 

 

 

এদিকে ট্রলার মালিকরা বলছেন, বুধবার সকালে গভীর বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকার করার উদ্দেশে ট্রলার ছেড়ে যায়। কিন্তু পরে ঘূর্ণিঝড় মিধিলির পর আর তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। তারা কোথায় আছে, কীভাবে আছে, কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

 

 

 

 

 

 

 

আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

ঘূর্ণিঝড় মিধিলিতে নিখোজ ২৫, পরিবারে চলছে আহাজারি।

আপডেট সময় ০৩:৩৭:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩

 

 

 

 

 

মোঃ কাওছার আহম্মেদ, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: 

ঘূর্ণিঝড় মিধিলির পর পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ২৫ মাঝিমাল্লাসহ নিখোঁজ তিন,  ট্রলারের মাল্লা (মাঝি) ছিল জিসান প্যাদা। সে উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ঝিলাম প্যাদার ছেলে।

 

 

 

 

জানা গেছে, জিসানের সঙ্গে তার খালতো ভাই তামিমও জেলে হিসাবে ছিল ওই ট্রলারে। তারও সন্ধান মিলছে না। কোথায় আছে, কেমন আছে, তাদের ভাগ্যে কি ঘটেছে- তা জানে না কেউ।

 

 

 

 

জিসান-তামিমের পরিবারের মতোই স্বজন ফিরে আসার প্রতীক্ষার প্রহর গুনছে আরও ২৩ পরিবার। সময় যতই গড়াচ্ছে, উৎকণ্ঠা বাড়ছে। নিখোঁজ জেলেদের বাড়িতে বাড়িতে চলছে আহাজারি। নিখোঁজের পাচদিন হলেও এখনও কারও সন্ধান মেলেনি। নিখোঁজ জেলেদের সন্ধানে প্রশাসনের ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি পরিবারের।

 

 

 

 

বইন্নার (ঝড়ের) দিন সাড়ে ১১টার কালেও (সময়) বাবার লগে ফোনে কথা অইছে। আমারে কয় মা ঝড়-বৃষ্টির বাতাসের কারণে কথা বুঝি না। জাল টানতে আছি। শেষ হইলেই তোমারে ফোন করমু। বাবায় আমার আর ফোন করে নাই। এহন যতই ফোনে কল দেই শুধু বন্ধ কয়। ও বাবা তুই মায়রে ফোন করোস না ক্যা?

 

 

 

নিখোঁজ ছেলের কথা বলে এভাবেই বিলাপ করে স্বজনদের সঙ্গে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন মা নাজমা বেগম। তার ছেলের নাম জিসান প্যাদা (১৯)। পাশের গ্রামের হাসান জোমাদ্দারের মালিকানাধীন ট্রলারের মাল্লা হিসাবে সাগরে মাছ শিকারে গিয়েছিলেন। ঘূর্ণিঝড় মিধিলির পরে ওই ট্রলারটি নিখোঁজ হয়। এরপর আর কারও সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। ফলে সময় যতই যাচ্ছে পরিবার ও স্বজনদের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ছে।

 

 

 

 

 

পুলিশের তথ্যানুযায়ী, ঘূর্ণিঝড় মিধিলিতে উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের কাউখালী গ্রামের বাসিন্দা হাসান জোমাদ্দারের ট্রলারের ৮, মৌডুবী ইউনিয়নের কাজিকান্দা দিদার মৃধার ট্রলারের ৮ ও একই এলাকার হিমু হাওলাদারের মালিকানাধীন ট্রলারের ৯ জেলে নিখোঁজ হয়। তাদের মধ্যেই নিখোঁজ হওয়া উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের নয়াভাঙ্গুণি গ্রামের জহির মাঝি। সরেজমিন তার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, জহিরের মা, স্ত্রী ও তিন সন্তানের কান্নায় ভারি হয়ে উঠেছে পরিবেশ।

 

 

 

 

 

এদিকে ট্রলার মালিকরা বলছেন, বুধবার সকালে গভীর বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকার করার উদ্দেশে ট্রলার ছেড়ে যায়। কিন্তু পরে ঘূর্ণিঝড় মিধিলির পর আর তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। তারা কোথায় আছে, কীভাবে আছে, কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।