বাংলাদেশ ০৯:২০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে

কাজী নজরুল ইসলামের গান আমাদের প্রতিবাদের ভাষা – রিন্টু সুত্রধর রিকি।

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১১:২০:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ নভেম্বর ২০২৩
  • ১৭৫৪ বার পড়া হয়েছে

কাজী নজরুল ইসলামের গান আমাদের প্রতিবাদের ভাষা - রিন্টু সুত্রধর রিকি।

 

 

 

 

বিনোদন প্রতিবেদক

বাংলাদেশের জাতীয় ও বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের লেখা ও সুর করা ‘কারার ওই লৌহ কপাট’– গানটি বলিউড নির্মাতা রাজা কৃষ্ণা মেনন তার ‘পিপ্পা’ সিনেমায় ব্যবহার করেছেন, নতুন করে এ গানের সুর করেছেন এ আর রহমান। সুর করার পাশাপাশি গানটিতে কণ্ঠও দিয়েছেন এ আর রহমান। তার সঙ্গে আরো গেয়েছেন রাহুল দত্ত, তীর্থ ভট্টাচার্য, পীযূষ দাস, শালিনী মুখার্জি, দিলাশা চৌধুরী, শ্রয়ী পাল প্রমুখ।

 

 

 

নতুন করে অস্কার জয়ী এআর রহমানের দেওয়া সুর নিয়ে ক্ষোভ ঝরছে বাংলাদেশ-ভারত জুড়ে। তার বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন দুই বাংলার শিল্পী ও ভক্তরাও। সেই সঙ্গে প্রতিবাদ মুখর হয়ে উঠছে নজরুল পরিবারও। নজরুলের নাতি-নাতনিরা ইতোমধ্যে প্রতিবাদ জানিয়ে মুখ খুলেছেন।

 

 

 

 

এই বিষয় নিয়ে আমাদের কথা হয় বিশিষ্ট কবি, গীতিকার ও সংগঠক রিন্টু সূত্রধর রিকি’র সঙ্গে তিনি কথার এক প্রসঙ্গে বলেন, “দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাস যখন কারারুদ্ধ হন, তখন তার স্ত্রী বাসন্তী দেবীর অনুরোধে কাজী নজরুল ইসলাম রচনা করেছিলেন ‘কারার ওই লৌহ কপাট’ গানটি। ১৯৪৯ সালের জুন মাসে গিরিন চক্রবর্তীর কন্ঠে গানটি রেকর্ড করা হয়েছিল। যে গানটি এখনো শুনলে শরীরের লোম দাঁড়িয়ে যায়, শরীরের রক্ত গরম হয়ে যায়, যে কোন অন্যায় দেখলে প্রতিবাদ করতে মন চায়।

 

 

 

 

মূলত আমাদের প্রতিবাদের ভাষাকেই আমাদের বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম তার এই গানে প্রকাশ করেছেন। এমন একটি গানকে এ আর রহমান এমন ভাবে উপস্থাপনা করেছেন যা অবশ্যই নিন্দনীয়। আমি একজন নজরুল প্রেমী হিসেবে এটা মেনে নিতে পারছি না, আমার মনে হয় প্রতিটি বাঙালির মনেই রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

 

 

 

 

 

প্রত্যেক গানেরই একটা নিজস্ব ভাষা, সুর, ভঙ্গি ও ভাব থাকে। সেটা নষ্ট হলে স্বভাবতই গানের আসল সৌন্দর্য নষ্ট হয়। গানে তো শুধু সুরের নয়, ভাবেরও একটা জায়গা থাকে। রহমানের এই গানের ক্ষেত্রেও হয়তো এমনটাই ঘটেছে, যার জন্য মানুষের পছন্দ হচ্ছে না। আমাদের উচিত এই বিষয়টা নিয়ে প্রতিবাদ করা।

 

 

 

 

 

সম্প্রতি এই বিষয়টি নিয়ে নেট দুনিয়ায় জোর চর্চা চললেও এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেননি এ আর রহমান। এমনকি সিনেমার নির্মাতা এবং অভিনয়শিল্পীরাও চুপ রয়েছেন এই ইস্যুতে।

 

 

 

 

 

 

আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

কাজী নজরুল ইসলামের গান আমাদের প্রতিবাদের ভাষা – রিন্টু সুত্রধর রিকি।

আপডেট সময় ১১:২০:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ নভেম্বর ২০২৩

 

 

 

 

বিনোদন প্রতিবেদক

বাংলাদেশের জাতীয় ও বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের লেখা ও সুর করা ‘কারার ওই লৌহ কপাট’– গানটি বলিউড নির্মাতা রাজা কৃষ্ণা মেনন তার ‘পিপ্পা’ সিনেমায় ব্যবহার করেছেন, নতুন করে এ গানের সুর করেছেন এ আর রহমান। সুর করার পাশাপাশি গানটিতে কণ্ঠও দিয়েছেন এ আর রহমান। তার সঙ্গে আরো গেয়েছেন রাহুল দত্ত, তীর্থ ভট্টাচার্য, পীযূষ দাস, শালিনী মুখার্জি, দিলাশা চৌধুরী, শ্রয়ী পাল প্রমুখ।

 

 

 

নতুন করে অস্কার জয়ী এআর রহমানের দেওয়া সুর নিয়ে ক্ষোভ ঝরছে বাংলাদেশ-ভারত জুড়ে। তার বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন দুই বাংলার শিল্পী ও ভক্তরাও। সেই সঙ্গে প্রতিবাদ মুখর হয়ে উঠছে নজরুল পরিবারও। নজরুলের নাতি-নাতনিরা ইতোমধ্যে প্রতিবাদ জানিয়ে মুখ খুলেছেন।

 

 

 

 

এই বিষয় নিয়ে আমাদের কথা হয় বিশিষ্ট কবি, গীতিকার ও সংগঠক রিন্টু সূত্রধর রিকি’র সঙ্গে তিনি কথার এক প্রসঙ্গে বলেন, “দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাস যখন কারারুদ্ধ হন, তখন তার স্ত্রী বাসন্তী দেবীর অনুরোধে কাজী নজরুল ইসলাম রচনা করেছিলেন ‘কারার ওই লৌহ কপাট’ গানটি। ১৯৪৯ সালের জুন মাসে গিরিন চক্রবর্তীর কন্ঠে গানটি রেকর্ড করা হয়েছিল। যে গানটি এখনো শুনলে শরীরের লোম দাঁড়িয়ে যায়, শরীরের রক্ত গরম হয়ে যায়, যে কোন অন্যায় দেখলে প্রতিবাদ করতে মন চায়।

 

 

 

 

মূলত আমাদের প্রতিবাদের ভাষাকেই আমাদের বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম তার এই গানে প্রকাশ করেছেন। এমন একটি গানকে এ আর রহমান এমন ভাবে উপস্থাপনা করেছেন যা অবশ্যই নিন্দনীয়। আমি একজন নজরুল প্রেমী হিসেবে এটা মেনে নিতে পারছি না, আমার মনে হয় প্রতিটি বাঙালির মনেই রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

 

 

 

 

 

প্রত্যেক গানেরই একটা নিজস্ব ভাষা, সুর, ভঙ্গি ও ভাব থাকে। সেটা নষ্ট হলে স্বভাবতই গানের আসল সৌন্দর্য নষ্ট হয়। গানে তো শুধু সুরের নয়, ভাবেরও একটা জায়গা থাকে। রহমানের এই গানের ক্ষেত্রেও হয়তো এমনটাই ঘটেছে, যার জন্য মানুষের পছন্দ হচ্ছে না। আমাদের উচিত এই বিষয়টা নিয়ে প্রতিবাদ করা।

 

 

 

 

 

সম্প্রতি এই বিষয়টি নিয়ে নেট দুনিয়ায় জোর চর্চা চললেও এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেননি এ আর রহমান। এমনকি সিনেমার নির্মাতা এবং অভিনয়শিল্পীরাও চুপ রয়েছেন এই ইস্যুতে।