বাংলাদেশ ০৪:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
ফাহমিদা বিনতে কাপ্তান এর বিয়েতে সিলেট-চট্টগ্রাম ফ্রেন্ডশিপ ফাউন্ডেশনের স্বারক প্রদান যৌন হয়রানির অভিযোগকারীকে এমনভাবে উপস্থাপন করা হয় যেন সব দোষ তার”- জবি উপাচার্য আনসার আল ইসলাম এর রিক্রুটিং শাখার প্রধান ইসমাইল হোসেন ও দুইজন আঞ্চলিক প্রশিক্ষককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। কুষ্টিয়ায় পরকীয়ার জেরে এক যুবককে মারপিট ও শ্বাসরোধে হত্যা, আটক-০৩ ঠাকুরগাঁওয়ে মাদকসহ গ্রেফতার -৩ কুষ্টিয়ায় মসজিদ চত্ত্বরে পানি ছিটাতে গিয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু কুষ্টিয়া ডিবি পুলিশের অভিযানে ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেটসহ গ্রেফতার-১ নাগরপুরে হাজী মকবুল হোসেনের ৪র্থ মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অবৈধ মাদক দ্রব্য গাজাসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। বিপুল পরিমাণ জাল স্ট্যাম্প সম্বলিত বিড়ি এবং জাল স্ট্যাম্প সহ ০৩ জন আসামী গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ধর্ষণ মামলার যাবজ্জীবন পলাতক ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী সোহাগ আহম্মেদ রিপন কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। অভিযানেও বন্ধ হচ্ছে না, প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে চলছে পুকুর খনন কলাপাড়ায় প্রতিমা ভাংগার ঘটনায় সন্দেহ ভাজন আটক। নগরীতে গাঁজাসহ ৭জন মাদক কারবারী ও ১০ জন মাদকসেবীকে গ্রেফতার নগরীর কাটাখালিতে প্রকাশ্যে বাড়িঘর ভাংচুর; ৭জনকে আটক করে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে

ফুলবাড়িতে উন্নত জাতের সুপারি চাষে আগ্রহ বাড়ছে 

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০২:৫২:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ মার্চ ২০২২
  • ১৬৯৪ বার পড়া হয়েছে

ফুলবাড়িতে উন্নত জাতের সুপারি চাষে আগ্রহ বাড়ছে 

হেলাল উদ্দিন, ফুলবাড়ী কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলাতে সুপারি চাষের দিকে আগ্রহী হয়ে উঠেছে কৃষক। বাড়ীর পিছনে বা বাড়ী থেকে  দুরে উচু ভিটা জমিতে সুপারির বাগান লাগিয়ে ভাগ‍্য বদলের স্বপ্ন দেখছেন। এতদিন এ অঞ্চলে বাড়ির সাথে লাগা পিছন পাশ্বে সুপারির বাগান করার চিরাচরিত রেওয়াজ ছিল।
সারা বছরের সুপারির চাহিদা মিটিয়ে বাড়তি সুপারি বিক্রি করত। এখন সে রেওয়াজ ভেঙ্গে  বাড়ি থেকে দুরে উঁচু ভিটা জমিতে সুপারির বানিজ‍্যিক বাগান লাগার হিড়িক পড়েছে।
সুপারির প্রতি উত্তর  বংঙ্গের মানুষের দুর্বলতা প্রাচিনকাল থেকে। আত্নীয় এলে প্রথম পান সুপারি দিয়ে আপ‍্যায়ন করার রিতি এখনও প্রচলিত। লোকসাহিত‍্য ও গানে পান দিয়ে প্রিয়জনকে প্রথম আপ‍্যয়ন করার উপমা ছড়িয়ে আছে। সুপারি গাছ ছাড়া এ অঞ্চলে কোন বাড়ি কল্পনা করা যায় না। বর্তমানে ভালো লাভ হওয়ায় বাগান লাগিয়ে সুপারির বানিজ‍্যিকভাবে চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছে কৃষক। সুপারি গাছ সাধারণত বছরে একবার ফল দেয়।
এক বিঘা জমিতে দের থেকে দুইশো সুপারি গাছের চারা লাগানো যায়। প্রতি ১বিঘার বাগান থেকে বছরে দের থেকে  দু লাখ টাকার সুপারি বিক্রয় করা হয়। চারা রোপণসহ গাছে ফল ধরা পর্যন্ত ৮ থেকে ১০ বছর সময় লাগে। একটা বাগান ৩০ থেকে ৪০ বছর পযর্ন্ত  ফল দেয়। কোন গাছ মরে বা ভেঙ্গে গেলে বাগানে তা পুনরায় রোপণ করা হয়। জানুয়ারি থেকে জুন মাস পর্যন্ত গাছ থেকে সুপারি পাড়া হয়।
কাঁচা,পাকা,মজা ও শুকনা অবস্হায় সুপারি বাজারজাত করা হয়। বর্তমানে সুপারির চারাও বাজারে বিক্রি হচ্ছে। বাগানের সুপারি গাছের ফাঁকে ফাঁকে চারাও বড় করা হয়। প্রতিটি চারার মূল‍্য বয়স ভেদে ৫০ থেকে ৭০০টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
ফলে বড়, মাঝারি,ছোট সব কৃষকই ঝুকছে সুপারির বাগান করার কাজে। বড়ভিটা গ্রামের বড় কৃষক (প্রভাষক )কামরুজ্জামান লাভলু বলেন, তিনি পাঁচ বিঘা জমিতে সুপারির বাগান লাগিয়েছেন। ২/১বছরের মধ‍্যে তার বাগানে ফল ধরা শুরু হবে। একই গ্রামের শাহানুর ১বিঘা, গোলাম মোস্তফা ১,মোজাফফর হোসেন ১ বিঘা ও বান চন্দ্র ৩ বিঘায় সুপারি বাগান লাগিয়েছেন। লক্ষী কান্ত রায় বলেন,তার বাড়ির আশে পাশের পতিত জমিতে ১০০টি গাছ লাগিয়েছেন। পরিপূর্ণ ফল ধরা শুরু হলে যতটি গাছ বছরে তত হাজার টাকা। সুপারির বাগানে বছরে ১বার ঝোপ ঝাড় পরিষ্কার করা হয়।
তবে বানিজ‍্যিক বাগান সাফ- সুতোরো বেশী রাখা হয়। বতামানে অনেকেই  রাশায়নিক সার প্রয়োগ করে ভালো  ফলন পাচ্ছেন।
ফুলবাড়ীরতে উৎপাদিত সুপারির মান ভালো হওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এর চাহিদা রয়েছে। ভালো লাভে দিন দিন বেড়েই চলছে সুপারি বাগান এর সংখ‍্যা। এ ব‍্যাপারে ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিসার মোছা: লিলুফা ইয়াসমিন বলেন,ফূলবাড়ীতে প্রায় ১০৫ হেক্টর জমিতে সুপারির বাগান লাগানো হয়েছে।
ভালো ফলন এবং রোগ-বালাইএর জন‍্য বাগান মালিকদের সব সময় প্রয়োজনিয় পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। উৎপাদন বেশি ও সুপারির মান ভালো হওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এর চাহিদা দিন দিন বাড়ছে।
জনপ্রিয় সংবাদ

ফাহমিদা বিনতে কাপ্তান এর বিয়েতে সিলেট-চট্টগ্রাম ফ্রেন্ডশিপ ফাউন্ডেশনের স্বারক প্রদান

ফুলবাড়িতে উন্নত জাতের সুপারি চাষে আগ্রহ বাড়ছে 

আপডেট সময় ০২:৫২:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ মার্চ ২০২২
হেলাল উদ্দিন, ফুলবাড়ী কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলাতে সুপারি চাষের দিকে আগ্রহী হয়ে উঠেছে কৃষক। বাড়ীর পিছনে বা বাড়ী থেকে  দুরে উচু ভিটা জমিতে সুপারির বাগান লাগিয়ে ভাগ‍্য বদলের স্বপ্ন দেখছেন। এতদিন এ অঞ্চলে বাড়ির সাথে লাগা পিছন পাশ্বে সুপারির বাগান করার চিরাচরিত রেওয়াজ ছিল।
সারা বছরের সুপারির চাহিদা মিটিয়ে বাড়তি সুপারি বিক্রি করত। এখন সে রেওয়াজ ভেঙ্গে  বাড়ি থেকে দুরে উঁচু ভিটা জমিতে সুপারির বানিজ‍্যিক বাগান লাগার হিড়িক পড়েছে।
সুপারির প্রতি উত্তর  বংঙ্গের মানুষের দুর্বলতা প্রাচিনকাল থেকে। আত্নীয় এলে প্রথম পান সুপারি দিয়ে আপ‍্যায়ন করার রিতি এখনও প্রচলিত। লোকসাহিত‍্য ও গানে পান দিয়ে প্রিয়জনকে প্রথম আপ‍্যয়ন করার উপমা ছড়িয়ে আছে। সুপারি গাছ ছাড়া এ অঞ্চলে কোন বাড়ি কল্পনা করা যায় না। বর্তমানে ভালো লাভ হওয়ায় বাগান লাগিয়ে সুপারির বানিজ‍্যিকভাবে চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছে কৃষক। সুপারি গাছ সাধারণত বছরে একবার ফল দেয়।
এক বিঘা জমিতে দের থেকে দুইশো সুপারি গাছের চারা লাগানো যায়। প্রতি ১বিঘার বাগান থেকে বছরে দের থেকে  দু লাখ টাকার সুপারি বিক্রয় করা হয়। চারা রোপণসহ গাছে ফল ধরা পর্যন্ত ৮ থেকে ১০ বছর সময় লাগে। একটা বাগান ৩০ থেকে ৪০ বছর পযর্ন্ত  ফল দেয়। কোন গাছ মরে বা ভেঙ্গে গেলে বাগানে তা পুনরায় রোপণ করা হয়। জানুয়ারি থেকে জুন মাস পর্যন্ত গাছ থেকে সুপারি পাড়া হয়।
কাঁচা,পাকা,মজা ও শুকনা অবস্হায় সুপারি বাজারজাত করা হয়। বর্তমানে সুপারির চারাও বাজারে বিক্রি হচ্ছে। বাগানের সুপারি গাছের ফাঁকে ফাঁকে চারাও বড় করা হয়। প্রতিটি চারার মূল‍্য বয়স ভেদে ৫০ থেকে ৭০০টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
ফলে বড়, মাঝারি,ছোট সব কৃষকই ঝুকছে সুপারির বাগান করার কাজে। বড়ভিটা গ্রামের বড় কৃষক (প্রভাষক )কামরুজ্জামান লাভলু বলেন, তিনি পাঁচ বিঘা জমিতে সুপারির বাগান লাগিয়েছেন। ২/১বছরের মধ‍্যে তার বাগানে ফল ধরা শুরু হবে। একই গ্রামের শাহানুর ১বিঘা, গোলাম মোস্তফা ১,মোজাফফর হোসেন ১ বিঘা ও বান চন্দ্র ৩ বিঘায় সুপারি বাগান লাগিয়েছেন। লক্ষী কান্ত রায় বলেন,তার বাড়ির আশে পাশের পতিত জমিতে ১০০টি গাছ লাগিয়েছেন। পরিপূর্ণ ফল ধরা শুরু হলে যতটি গাছ বছরে তত হাজার টাকা। সুপারির বাগানে বছরে ১বার ঝোপ ঝাড় পরিষ্কার করা হয়।
তবে বানিজ‍্যিক বাগান সাফ- সুতোরো বেশী রাখা হয়। বতামানে অনেকেই  রাশায়নিক সার প্রয়োগ করে ভালো  ফলন পাচ্ছেন।
ফুলবাড়ীরতে উৎপাদিত সুপারির মান ভালো হওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এর চাহিদা রয়েছে। ভালো লাভে দিন দিন বেড়েই চলছে সুপারি বাগান এর সংখ‍্যা। এ ব‍্যাপারে ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিসার মোছা: লিলুফা ইয়াসমিন বলেন,ফূলবাড়ীতে প্রায় ১০৫ হেক্টর জমিতে সুপারির বাগান লাগানো হয়েছে।
ভালো ফলন এবং রোগ-বালাইএর জন‍্য বাগান মালিকদের সব সময় প্রয়োজনিয় পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। উৎপাদন বেশি ও সুপারির মান ভালো হওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এর চাহিদা দিন দিন বাড়ছে।