বাংলাদেশ ০৩:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
ভান্ডারিয়ায় ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্থ ৩ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিলেন সমাজ সেবক মিঠু মিয়া বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। বুড়িচং ফজলুর রহমান মেমোরিয়াল কলেজ অব টেকনোলজির শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে মাদক সাপ্লাইয়ের অভিযোগ  পেকুয়ায় ইভটিজিংয়ের দায়ে ২ জনকে কারাদণ্ড পীরগঞ্জ মহিলা কলেজে মেহেদী উৎসব অনুষ্ঠিত। পীরগঞ্জে ডিজিটাল প্রযুক্তি ও জীবন জীবীকা বিষয়ক প্রশিক্ষণ চলছে পাঠক শূন্য রাজশাহীর পুঠিয়ার সাধারণ পাঠাগার হত্যা মামলার পলাতক অন্যতম আসামী নুরুলকে র‍্যাব কর্তৃক গ্রেফতার। রাজশাহীর পুঠিয়ায় যাবজ্জাীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেপ্তার কলাপাড়ায় জেলেদের জালে শিকার হলো জীবিত এক ডলফিন। দৈনিক আমার সংবাদ পত্রিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাজশাহী মহানগরীতে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেপ্তার মির্জাগঞ্জে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ শেখ কামাল আইটি ট্রেনিংয়ে সারাদেশের মধ্যে প্রথম হয়েছে রাজাপুরের মশিউর রহমান তামিম ত্রিশালে রেইজ’র অভিবাসী বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন

দ্রব্যমূলের ঊর্ধ্বগতির সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৪:০৮:০০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২
  • ১৭৯১ বার পড়া হয়েছে

দ্রব্যমূলের ঊর্ধ্বগতির সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস

মোঃ আজিজার রহমান, জেলা প্রতিনিধি দিনাজপুরঃ সারাদেশে দ্রব্য মূল্যবৃদ্ধি  স্বল্প আয়ের মানুষের দুর্দশা বাড়িয়ে দিয়েছে। ফলে প্রতিনিয়মিত লড়াই করতে হচ্ছে মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষের। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির হওয়া কারণে দিনাজপুরের জেলার বিভিন্ন চায়ের দোকান, হোটেল- রেস্তোরাঁয় ব্যাপক প্রভাব পড়েছে।বিভিন্ন চায়ের দোকান, হোটেল- রেস্তোরাঁ গুলোতে বেড়েছে খাদ্য দ্রব্যের দাম। দেয়ালে দেয়ালে লটকিছেন বিভিন্ন পোস্টার। অথচ মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষের আয় বাড়েনি। বেড়েছে ব্যয়। কাটছাঁট করতে হচ্ছে বিভিন্ন খাতে। তার পরও কুলিয়ে উঠতে পারছেন না এই মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষ।

সরজমিনে দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে প্রতিবেদন করেছেন আমাদের দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি। দ্রব্যমূলের ঊর্ধ্বগতির কারণে চায়ের দোকান, হোটেল- রেস্তোরাঁ গুলোতে কমেছে খাদ্যের পরিমাণ। মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষেরা হিমশিম খাচ্ছে প্রায় সব ধরনের নিত্যপণ্যে কিনতে গিয়ে।

বাজারে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণকারী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তেমন নজরদারি নেই। বাজারে যখন চরম অস্থিতিশীল অবস্থার সৃষ্টি হয়, তখন কিছু অভিযান চলে। দু-চারজন ব্যবসায়ীকে জরিমানাও করা হয়। তা শুধু লোক দেখানো মাত্র। তারপর আর খোঁজ খবর থাকে না নিয়ন্ত্রণকারী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।

দিনাজপুরের বড় বন্দরে সবজি কিনতে আসা বোরহান উদ্দিন (ক্রেতা) বলেন, মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষের আয় বাড়ে না। কিন্তু দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি কেউ কমাতে পারছে না। এখন আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। আমাদের মতো মানুষরা যদি গরুর মাংস কিনে খেতে না পারে নিম্ন আয়ের মানুষ কীভাবে পারবে। প্রতিটা জিনিসের মূল্যের একটা সীমা থাকা উচিত। এটা মোটেই মেনে নেয়ার মতো না। সবাই শুধু তেলের দাম, তেলের দাম করে। বাজারে সব কিছুর দামই বেশি। এক সময় দু’ শত টাকা দিয়ে ব্যাগ ভর্তি বাজার করা যেত। আর এখন ব্যাগের তলায় পরে থাকে।

খানসামা উপজেলার ভ্যান চালক বিধান বলেন, চাল, ডাল, তেলসহ, সবকিছুর দাম হু হু করে বেড়েছে। এতে করে মোর মতো ভ্যান চালকের বাজার করার টাকা হয় না। আর হামরা যখন দুই টাকা বেশি ভাড়া চাই তখন প্যাসেঞ্জারের কি গরম, কেনে তক বেশি ভাড়া দিম।

অন্যদিকে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি কারণ বিষয়ে জানতে চাইলে, বাংলাদেশ সাম্যবাদী আন্দোলন পাঠচক্র ফোরামের দিনাজপুর জেলা শাখার সমন্বয়ক এ এস এম মনিরুজ্জামান মনির বলেন, বর্তমান সরকার ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে ভোজ্যতেলসহ চাল, ডাল, আটা, ময়দা, চিনি প্রতিটি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি করে চলছে। আবার জ্বালানী তেল, গ্যাসসহ বিদ্যুতের মূল্য দফায় দফায় বৃদ্ধি করে চলছে। তিনি বলেন, ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের প্রত্যক্ষ মদদে সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে আর এই ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের স্বার্থেই জনগনের বিপক্ষে দাঁড়িয়ে প্রতিটি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়িয়ে জনগনের পকেট কাছে। ফলে দেশে শ্রমিক, কৃষক, মধ্যবিত্ত, নিম্নবিত্ত প্রতিটি পরিবার খাদ্য জোগাতে এবং স্বাভাবিক জীবন যাপন বিপর্যস্ত হয়ে পরেছে। তিনি এ অবস্থায় অবিলম্বে দেশের ৩ কোটি শ্রমজীবী পরিবারকে আর্মি রেটে রেশন সরবরাহ করা এবং সিন্ডিকেট ভেঙে দেয়ার দাবি জানান।

আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

ভান্ডারিয়ায় ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্থ ৩ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিলেন সমাজ সেবক মিঠু মিয়া

দ্রব্যমূলের ঊর্ধ্বগতির সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস

আপডেট সময় ০৪:০৮:০০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২

মোঃ আজিজার রহমান, জেলা প্রতিনিধি দিনাজপুরঃ সারাদেশে দ্রব্য মূল্যবৃদ্ধি  স্বল্প আয়ের মানুষের দুর্দশা বাড়িয়ে দিয়েছে। ফলে প্রতিনিয়মিত লড়াই করতে হচ্ছে মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষের। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির হওয়া কারণে দিনাজপুরের জেলার বিভিন্ন চায়ের দোকান, হোটেল- রেস্তোরাঁয় ব্যাপক প্রভাব পড়েছে।বিভিন্ন চায়ের দোকান, হোটেল- রেস্তোরাঁ গুলোতে বেড়েছে খাদ্য দ্রব্যের দাম। দেয়ালে দেয়ালে লটকিছেন বিভিন্ন পোস্টার। অথচ মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষের আয় বাড়েনি। বেড়েছে ব্যয়। কাটছাঁট করতে হচ্ছে বিভিন্ন খাতে। তার পরও কুলিয়ে উঠতে পারছেন না এই মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষ।

সরজমিনে দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে প্রতিবেদন করেছেন আমাদের দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি। দ্রব্যমূলের ঊর্ধ্বগতির কারণে চায়ের দোকান, হোটেল- রেস্তোরাঁ গুলোতে কমেছে খাদ্যের পরিমাণ। মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষেরা হিমশিম খাচ্ছে প্রায় সব ধরনের নিত্যপণ্যে কিনতে গিয়ে।

বাজারে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণকারী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তেমন নজরদারি নেই। বাজারে যখন চরম অস্থিতিশীল অবস্থার সৃষ্টি হয়, তখন কিছু অভিযান চলে। দু-চারজন ব্যবসায়ীকে জরিমানাও করা হয়। তা শুধু লোক দেখানো মাত্র। তারপর আর খোঁজ খবর থাকে না নিয়ন্ত্রণকারী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।

দিনাজপুরের বড় বন্দরে সবজি কিনতে আসা বোরহান উদ্দিন (ক্রেতা) বলেন, মধ্যবিত্ত ও স্বল্প আয়ের মানুষের আয় বাড়ে না। কিন্তু দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি কেউ কমাতে পারছে না। এখন আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। আমাদের মতো মানুষরা যদি গরুর মাংস কিনে খেতে না পারে নিম্ন আয়ের মানুষ কীভাবে পারবে। প্রতিটা জিনিসের মূল্যের একটা সীমা থাকা উচিত। এটা মোটেই মেনে নেয়ার মতো না। সবাই শুধু তেলের দাম, তেলের দাম করে। বাজারে সব কিছুর দামই বেশি। এক সময় দু’ শত টাকা দিয়ে ব্যাগ ভর্তি বাজার করা যেত। আর এখন ব্যাগের তলায় পরে থাকে।

খানসামা উপজেলার ভ্যান চালক বিধান বলেন, চাল, ডাল, তেলসহ, সবকিছুর দাম হু হু করে বেড়েছে। এতে করে মোর মতো ভ্যান চালকের বাজার করার টাকা হয় না। আর হামরা যখন দুই টাকা বেশি ভাড়া চাই তখন প্যাসেঞ্জারের কি গরম, কেনে তক বেশি ভাড়া দিম।

অন্যদিকে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি কারণ বিষয়ে জানতে চাইলে, বাংলাদেশ সাম্যবাদী আন্দোলন পাঠচক্র ফোরামের দিনাজপুর জেলা শাখার সমন্বয়ক এ এস এম মনিরুজ্জামান মনির বলেন, বর্তমান সরকার ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে ভোজ্যতেলসহ চাল, ডাল, আটা, ময়দা, চিনি প্রতিটি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি করে চলছে। আবার জ্বালানী তেল, গ্যাসসহ বিদ্যুতের মূল্য দফায় দফায় বৃদ্ধি করে চলছে। তিনি বলেন, ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের প্রত্যক্ষ মদদে সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে আর এই ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের স্বার্থেই জনগনের বিপক্ষে দাঁড়িয়ে প্রতিটি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়িয়ে জনগনের পকেট কাছে। ফলে দেশে শ্রমিক, কৃষক, মধ্যবিত্ত, নিম্নবিত্ত প্রতিটি পরিবার খাদ্য জোগাতে এবং স্বাভাবিক জীবন যাপন বিপর্যস্ত হয়ে পরেছে। তিনি এ অবস্থায় অবিলম্বে দেশের ৩ কোটি শ্রমজীবী পরিবারকে আর্মি রেটে রেশন সরবরাহ করা এবং সিন্ডিকেট ভেঙে দেয়ার দাবি জানান।