বাংলাদেশ ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে

মনিরামপুরে মধু সংগ্রহে ব্যাস্ত সময় পার করছেন মৌয়াল মনিরুল ইসলাম 

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৬:১৩:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ এপ্রিল ২০২২
  • ১৬৯১ বার পড়া হয়েছে

মনিরামপুরে মধু সংগ্রহে ব্যাস্ত সময় পার করছেন মৌয়াল মনিরুল ইসলাম 

ইকরামুল হোসেন, মনিরামপুর (যশোর) থেকেঃ যশোরের মনিরামপুরে মধু সংগ্রহে ব্যাস্ত সময় পার করছেন মৌয়ালরা প্রতিনিয়ত ধারালো দা, পাত্র, খড় হাতে গ্রামে গ্রামে ছুঁটে চলতে দেখা যাচ্ছে তাদের। তেমনি দীর্ঘদিন ধরে বাজারসহ বিভিন্ন জনাকীর্ণ এলাকায় গিয়ে মধু সংগ্রহ করে তা বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করে চলেছেন উপজেলার শ্যামকুড় ইউনিয়নের শ্যামকুড় গ্রামের বাসিন্দা মরহুম ইজ্জত আলী বিশ্বাসের ছেলে মৌয়ালী মনিরুল ইসলাম।
এ সম্পর্কে জানতে চাইলে মৌয়ালী মনিরুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘ ৮ বছর ধরে মনিরামপুরের বিভিন্ন গ্রামে-গ্রামে গিয়ে গাছ থেকে মৌচাক ভেঙ্গে মধু সংগ্রহ করে বিক্রি করে আসছি। এতে সংসারের অভাব কমেছে পরিবারের সবাইকে নিয়ে সুন্দর ভাবে চলতে পারছি। আমার বাবা ইজ্জত আলী বিশ্বাস ছিলেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা আমি ছোটো থেকে দেখেছি আমার বাবা প্রতিদিন সকালে মধু সংগ্রহের জন্য বাসা থেকে বেরিয়ে যেতেন এবং মধু সংগ্রহ করে বিক্রি করে বাসায় ফিরে আসতেন অত্র অঞ্চলে আমার বাবা একাই ছিলেন মৌয়ালী সেজন্য এলাকাবাসী তাকে ইজ্জত আলী বিশ্বাস নামের পাশাপাশি মধু বিশ্বাস নামে ডাকতেন পরবর্তী বাবার কাছ থেকে এমন কৌশল শিখেছে অনেকে। আমিও বাবার সাথে বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে গিয়েছি ও তার সকল কলা কৌশল তিনি আমাকে শিখিয়েছেন আজ বাবা নাই তার পেশাটি ধরে রেখেছি এবং আলহামদুলিল্লাহ্ পরিবার নিয়ে খুব ভালো আছি।
তিনি আরও বলেন,  প্রতিদিন ২-৩টি মৌচাক ভাঙতে পারি অর্ধেক মধু গাছের মালিককে দিয়ে আসি বাকিটা ৫-৬ টাকা কেজিতে বিভিন্ন বাজার ও মহল্লায় বিক্রি করে আসি। কখনো কখনো মধুর দাম কম হলেও কাউকে ভেজাল মধু দি না। সপ্তাহে ৩-৪ দিন মধু সংগ্রহ ও বিক্রি করে প্রতিদিন ১৫০০-২০০০ টাকা আয় হয় এতেই আমার সংসার সুন্দর ভাবে চলে যায়।
এ সম্পর্কে এলাকাবাসী বলেন, আগের মত এখন আর খাঁটি মধু পাওয়া যায় না বাজার থেকে অনেকবার মধু কিনে ঠকেছি কিন্তু এখন মধু কিনতে আর বাজারে যাওয়ার প্রয়োজন হয় না আমরা ইচ্ছা মত মনিরুলের কাছ থেকে খাঁটি মধু কিনতে পারি। এবং দূর দূরন্ত থেকে খাঁটি মধু কিনতে ভীড় জমান মনিরুল ইসলামের বাড়ি।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবুল হাসান বলেন, পুষ্টিগুণ ও উপাদেয়তার দিকটি বিবেচনা করে যদি আমরা খাবারের একটি তালিকা করি সে তালিকার প্রথম সারিতেই থাকবে মধুর নাম। এটি শরীরের জন্য উপকারী এবং নিয়মিত মধু সেবন করলে অসংখ্য রোগবালাই থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায়। এটি বৈজ্ঞানিকভাবেই প্রমাণিত। মধুতে প্রায় ৪৫টি খাদ্য উপাদান থাকে ফুলের পরাগের মধুতে থাকে ২৫ থেকে ৩৭ শতাংশ গ্লুকোজ, ৩৪ থেকে ৪৩ শতাংশ ফ্রুক্টোজ, ০.৫ থেকে ৩.০ শতাংশ সুক্রোজ এবং ৫ থেকে ১২ শতাংশমন্টোজ এছাড়াও থাকে ২২ শতাংশ অ্যামাইনো অ্যাসিড ২৮ শতাংশ খনিজ লবণ এবং ১১ শতাংশ এনকাইম। এতে চর্বি ও প্রোটিন নেই। ১০০ গ্রাম মধুতে থাকে ২৮৮ ক্যালরি। উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে মনিরুল ইসলাম ও জিয়াউর রহমানের মত মৌয়ালী রয়েছে যারা দীর্ঘদিন ধরে এ পেশায় নিয়জিত মধু সংগ্রহ করে তা বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। চাইলে আমরা তাকে মধু চাষ করার পরামর্শ দিতে পারি।
আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

মনিরামপুরে মধু সংগ্রহে ব্যাস্ত সময় পার করছেন মৌয়াল মনিরুল ইসলাম 

আপডেট সময় ০৬:১৩:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ এপ্রিল ২০২২
ইকরামুল হোসেন, মনিরামপুর (যশোর) থেকেঃ যশোরের মনিরামপুরে মধু সংগ্রহে ব্যাস্ত সময় পার করছেন মৌয়ালরা প্রতিনিয়ত ধারালো দা, পাত্র, খড় হাতে গ্রামে গ্রামে ছুঁটে চলতে দেখা যাচ্ছে তাদের। তেমনি দীর্ঘদিন ধরে বাজারসহ বিভিন্ন জনাকীর্ণ এলাকায় গিয়ে মধু সংগ্রহ করে তা বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করে চলেছেন উপজেলার শ্যামকুড় ইউনিয়নের শ্যামকুড় গ্রামের বাসিন্দা মরহুম ইজ্জত আলী বিশ্বাসের ছেলে মৌয়ালী মনিরুল ইসলাম।
এ সম্পর্কে জানতে চাইলে মৌয়ালী মনিরুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘ ৮ বছর ধরে মনিরামপুরের বিভিন্ন গ্রামে-গ্রামে গিয়ে গাছ থেকে মৌচাক ভেঙ্গে মধু সংগ্রহ করে বিক্রি করে আসছি। এতে সংসারের অভাব কমেছে পরিবারের সবাইকে নিয়ে সুন্দর ভাবে চলতে পারছি। আমার বাবা ইজ্জত আলী বিশ্বাস ছিলেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা আমি ছোটো থেকে দেখেছি আমার বাবা প্রতিদিন সকালে মধু সংগ্রহের জন্য বাসা থেকে বেরিয়ে যেতেন এবং মধু সংগ্রহ করে বিক্রি করে বাসায় ফিরে আসতেন অত্র অঞ্চলে আমার বাবা একাই ছিলেন মৌয়ালী সেজন্য এলাকাবাসী তাকে ইজ্জত আলী বিশ্বাস নামের পাশাপাশি মধু বিশ্বাস নামে ডাকতেন পরবর্তী বাবার কাছ থেকে এমন কৌশল শিখেছে অনেকে। আমিও বাবার সাথে বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে গিয়েছি ও তার সকল কলা কৌশল তিনি আমাকে শিখিয়েছেন আজ বাবা নাই তার পেশাটি ধরে রেখেছি এবং আলহামদুলিল্লাহ্ পরিবার নিয়ে খুব ভালো আছি।
তিনি আরও বলেন,  প্রতিদিন ২-৩টি মৌচাক ভাঙতে পারি অর্ধেক মধু গাছের মালিককে দিয়ে আসি বাকিটা ৫-৬ টাকা কেজিতে বিভিন্ন বাজার ও মহল্লায় বিক্রি করে আসি। কখনো কখনো মধুর দাম কম হলেও কাউকে ভেজাল মধু দি না। সপ্তাহে ৩-৪ দিন মধু সংগ্রহ ও বিক্রি করে প্রতিদিন ১৫০০-২০০০ টাকা আয় হয় এতেই আমার সংসার সুন্দর ভাবে চলে যায়।
এ সম্পর্কে এলাকাবাসী বলেন, আগের মত এখন আর খাঁটি মধু পাওয়া যায় না বাজার থেকে অনেকবার মধু কিনে ঠকেছি কিন্তু এখন মধু কিনতে আর বাজারে যাওয়ার প্রয়োজন হয় না আমরা ইচ্ছা মত মনিরুলের কাছ থেকে খাঁটি মধু কিনতে পারি। এবং দূর দূরন্ত থেকে খাঁটি মধু কিনতে ভীড় জমান মনিরুল ইসলামের বাড়ি।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবুল হাসান বলেন, পুষ্টিগুণ ও উপাদেয়তার দিকটি বিবেচনা করে যদি আমরা খাবারের একটি তালিকা করি সে তালিকার প্রথম সারিতেই থাকবে মধুর নাম। এটি শরীরের জন্য উপকারী এবং নিয়মিত মধু সেবন করলে অসংখ্য রোগবালাই থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায়। এটি বৈজ্ঞানিকভাবেই প্রমাণিত। মধুতে প্রায় ৪৫টি খাদ্য উপাদান থাকে ফুলের পরাগের মধুতে থাকে ২৫ থেকে ৩৭ শতাংশ গ্লুকোজ, ৩৪ থেকে ৪৩ শতাংশ ফ্রুক্টোজ, ০.৫ থেকে ৩.০ শতাংশ সুক্রোজ এবং ৫ থেকে ১২ শতাংশমন্টোজ এছাড়াও থাকে ২২ শতাংশ অ্যামাইনো অ্যাসিড ২৮ শতাংশ খনিজ লবণ এবং ১১ শতাংশ এনকাইম। এতে চর্বি ও প্রোটিন নেই। ১০০ গ্রাম মধুতে থাকে ২৮৮ ক্যালরি। উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে মনিরুল ইসলাম ও জিয়াউর রহমানের মত মৌয়ালী রয়েছে যারা দীর্ঘদিন ধরে এ পেশায় নিয়জিত মধু সংগ্রহ করে তা বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। চাইলে আমরা তাকে মধু চাষ করার পরামর্শ দিতে পারি।