বাংলাদেশ ০৫:২৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে

বিপুল সংখ্যক সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী মলমপার্টি কিশোর গ্যাং এবং অজ্ঞানপার্টির সদস্য গ্রেফতার;

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০২:১৪:৫১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ এপ্রিল ২০২২
  • ১৭১৮ বার পড়া হয়েছে

বিপুল সংখ্যক সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী মলমপার্টি কিশোর গ্যাং এবং অজ্ঞানপার্টির সদস্য গ্রেফতার;

 

 

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা হতে বিপুল সংখ্যক সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী, মলমপার্টি, কিশোর গ্যাং, এবং অজ্ঞানপার্টির সদস্য গ্রেফতার; বিপুল পরিমান মোবাইলফোন, প্যাথেডিন ইনজেকশন, বিষাক্ত মলম এবং দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার।

এলিট ফোর্স হিসেবে র‌্যাব আত্মপ্রকাশের সূচনালগ্ন থেকেই আইনের শাসন সমুন্নত রেখে দেশের সকল নাগরিকের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে অপরাধ চিহিৃতকরণ, প্রতিরোধ, শান্তি ও জনশৃংখলা রক্ষায় কাজ করে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে আপনাদের কল্যানে প্রিন্ট এবং ইলেকট্রিক মিডিয়ার বিভিন্ন সংবাদ প্রচারের প্রেক্ষিতে র‌্যাব জানতে পারে, সাম্প্রতিককালে ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি ও কিশোর গ্যাং চক্রের তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এ চক্রকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য র‌্যাব সদা সচেষ্ট।

গত দুই বছর ধরে বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে করোনা মহামারীর কারণে ব্যবসায়িক অবস্থা অত্যন্ত মন্দা ছিল। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে থাকায় দীর্ঘদিন পরে ব্যবসা বানিজ্য সরগরম হয়ে ওঠে। এহেন অবস্থায় পবিত্র মাহে রমজান এবং ঈদুল ফিতরকে লক্ষ্য করে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় কতিপয় সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি ও কিশোর গ্যাং চক্রের তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। উৎসব প্রিয় রাজধানীবাসী পবিত্র মাহে রমজান এবং ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাতভর কেনাকাটা করে থাকেন এবং ব্যবসায়ীরাও উক্ত সময়ে বাজারে তাদের পণ্য সরবরাহ বৃদ্ধি করে থাকেন। এছাড়াও পবিত্র মাহে রমজান এবং ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাজধানীবাসী ও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে ঈদের কেনাকাটা উপলক্ষে রাজধানীমুখী মানুষের বড়বড় শপিংমল ও বাজার কেন্দ্রিক চলাচল বৃদ্ধি পাওয়ার সুযোগে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্র যাত্রাপথে নিরীহ পথচারীদের সর্বস^ ছিনতাই করে চলছে।

সাম্প্রতিককালে ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি এবং মলমপার্টির চক্রের তৎপরতা বৃদ্ধির বিষয়টি ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় যেমনঃ প্রথম আলোর শিরোনামে প্রকাশিত হয়- ছিনতাইকারী চেনা, ছিনতাই চলছেই, মানবজমিনে- ঈদকে ঘিরে রাজধানীতে সরব ছিনতাইকারী চক্র, যুগান্তরে- রাজধানীতে বেপরোয়া ছিনতাইকারী চক্র, আমাদের সময়ে- ঈদ কেন্দ্রিক ছিনতাই থামান, এছাড়াও বাংলাদেশ প্রতিদিন, জনকন্ঠ এবং কালের কন্ঠসহ একাধিক পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। ফলশ্রæতিতে র‌্যাব উক্ত চক্রের সদস্যদের গ্রেফতার করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন পর্যায়ে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করতে থাকে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত রাতে র‌্যাব-৩ এর কয়েকটি আভিযানিক দল একযোগে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি এবং কিশোর গ্যাং চক্রের সদস্য ১। মোঃ লাল মিয়া (৩০), সাং-মধুখালী, থানা-আলফাডাঙ্গা, জেলা-ফরিদপুর, ২। মোঃ মনির হোসেন (৩৫), সাং-মাসুমপুর, থানা-তিতাস, জেলা-কুমিল্লা, ৩। মোঃ শাহীন হোসেন (২২), সাং-পশ্চিম পারপুপি, থানা-ঠাকুরগাঁও সদর, জেলা-ঠাকুরগাঁও, ৪। মোঃ রানা হোসেন মোল্লা (২৮), সাং-বাইকদিয়া, ওয়ার্ড নং-৭৩, থানা-সবুজবাগ, ডিএমপি ঢাকা, ৫। মোঃ রিফাত (২২), সাং-শেখের জায়গা, ওয়ার্ড নং-৭৫, থানা-খিলগাঁও, ডিএমপি ঢাকা, ৬। মোঃ আমিনুল ইসলাম (২৬), সাং-উত্তর মানিকদিয়া, ওয়ার্ড নং-৭৩, থানা-সবুজবাগ, ডিএমপি ঢাকা, ৭। মোঃ রাব্বি (২১), সাং-শেখের জায়গা, ওয়ার্ড নং-৭৫, থানা-খিলগাঁও, ডিএমপি ঢাকা, ৮। মোঃ কামাল হোসেন (৪০), সাং-বাদামতলী, থানা-ভোলা সদর, জেলা-ভোলা, ৯। মোঃ রিপন (৩০), সাং-ইসলামপুর, থানা-ইসলামপুর, জেলা-জামালপুর, ১০। মোঃ রনি (২২), সাং-রুপসদী, থানা-রাঞ্ছারামপুর, জেলা-ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, ১১। মোঃ ইমরান (২০), সাং-সোনাচর, থানা-মেগনা, জেলা-কুমিল্লা, ১২। মোঃ লিটন (৪০), সাং-মোল্লাপাড়া, থানা-কিশোরগঞ্জ সদর, জেলা-কিশোরগঞ্জ, ১৩। মোঃ রুবেল (২০), সাং-নীড় সড়াইল, থানা-সড়াইল, জেলা-ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, (সিপিসি-১), ১৪। মোঃ শফিক (২১), সাং-দাগনভূইয়া, থানা- দাগনভূইয়া, জেলা- ফেনী, ১৫। মোঃ মাসুদ মিয়া (১৮), সাং-মালনিয়া আমগাস্ত, থানা- পূর্বদলা, জেলা-নেত্রকোনা, ১৬। জুয়েল (২১), সাং-চরহাজিপুর, থানা-হোসেনপুর, জেলা-কিশোরগঞ্জ, ১৭। মোঃ খালিদ হাসান @ নাঈম (২০), সাং-তিমিরকাঠি, থানা-নলসিঠি, জেলা-ঝালকাঠি, ১৮। শফিকুল ইসলাম @সুজন(১৯), সাং-খয়রাবাদ, থানা-বাকেরগঞ্জ, জেলা-বরিশাল, ১৯। আসাদুজ্জামান @আসাদ (২০), সাং-মালিগ্রাম, থানা-ভাংগা, জেলা-ফরিদপুর, ২০। মোঃ কাউছার (১৯), সাং-দুধাল, থানা-বাকেরগঞ্জ, জেলা-বরিশাল, ২১। ইউনুছ @ নূর নবী (২৫), সাং-বাঁশগাড়ি, থানা-রায়পুর, জেলা-নরসিংদী, ২২। মোঃ গুলজার হোসেন (৪৯), সাং-নয়াচর, থানা-রায়পুরা, জেলা-নরসিংদী, ২৩। মোঃ নাজমুল (১৯), সাং- ফুকলারচর, থানা-রায়পুরা, জেলা-নরসিংদী, ২৪। মোঃ নাঈম ইসলাম (২০), সাং-আলখরা, থানা- চৌদগ্রাম, জেলা-কুমিল্লা, ২৫। মোঃ সাগর (১৯), সাং-নুরপুর, থানা-নাছিরনগর, জেলা-বি-বাড়িয়া, ২৬। মোঃ রকি (২২), সাং-নুরপুর, থানা-নাছিরনগর, জেলা-বি-বাড়িয়া, ২৭। মোঃ মেহিদী হাসান (২০), সাং-কালারুকা, থানা-ছাতক, জেলা-সিলেট, ২৮। মোঃ সোহেল (৩০), গ্রাম-কুটিবয়রা, থানা- টাঙ্গাইল, জেলা-টাঙ্গাইল, ২৯। মোঃ খোকন (২২), সাং-২৫ ই/১ গোলাপবাগ, থানা-যাত্রাবাড়ি, ডিএমপি, ঢাকা, ৩০। মোঃ নাইম (২৮), সাং-০২ নংধলপুর, থানা-যাত্রাবাড়ী, ঢাকা, ৩১। রুবেলখান (৩০), সাং-জঙ্গল কান্দা, থানা-ভাঙ্গা, জেলা-ফরিদপুর, ৩২। মোঃ দিদার (৪৫), সাং-৬০/৩ কাজির দরগাও, ধলপুর, থানা-যাত্রাবাড়ী, ডিএমপি, ঢাকা, ৩৩। মোঃ দ্বীন ইসলাম (৪১), সাং-ধলপুল, থানা- যাত্রাবাড়ী, ডিএমপি, ঢাকা, ৩৪। লাভলু খাঁ (৩৫), সাং-জঙ্গলকান্দা, থানা-ভাঙ্গা, জেলা-ফরিদপুর, ৩৫। মোঃ সোহেলমৃধা (২৯), গ্রাম-দক্ষিণ রাঙ্গামালিয়া, থানা-সিরাজদি, জেলা-মুন্সিগঞ্জ, ৩৬। মোঃআতাউররহমান (নিশাত) (২৮), সাং- ২২/১, আগানবাব, দেউড়ি, থানা-চকবাজার, জেলা-ঢাকা, ৩৭। মোঃ আশিক কামাল (৩৪), সাং-কলতাপাড়া, থানা- সোনারগাঁও, জেলা-নারয়ণগঞ্জ, ৩৮। মোঃ শামসুল হক (৩৮), সাং-কুলকান্দি, থানা-ইসলামপুর, জেলা-জামালপুর, ৩৯। মোঃ রাসেল (৩৮), সাং- শনিরআখড়া গোবিন্দপুর, থানা-যাত্রাবাড়ী, ডিএমপি, ঢাকা, ৪০। মোঃ কাদির (২৭), সাং-মতুরহাটি, থানা-শ্রীবর্দী, জেলা-শেরপুর, ৪১। মোঃ তুষার শেখ (২৫), সাং-ছিন্নতী ইতালী মোড়, থানা-মাদারীপুর সদর, জেলা-মাদারীপুর, ৪২। মোঃ রাজু সরদার (২৫), বঙ্গবন্ধু ষ্টেডিয়াম এলাকায় ভাসমান, থানা-পল্টন, ডিএমপি, ঢাকা, ৪৩। মোঃ জয়নাল (২৫), সাং-কোরাবুনিয়া আমতলী, থানা-আমতলী, জেলা-বরগুনা, ৪৪। মোঃ মোশারফ হোসেন (৩৩), সাং-জামতলী, থানা-দাউদকান্দি, জেলা-কুমিল্লা, ৪৫। মোঃ আইনাল @ আলাল উদ্দিন (৩৫), সাং-আতিকুড়া, থানা-নাসিরনগর, জেলা-ব্রাক্ষণবাড়ীয়া, ৪৬। মোঃ মনির হোসেন (৩৮), সাং-হামছাদি , থানা-সোনারগাও, জেলা-নারায়নগঞ্জ, ৪৭। মোঃ হাসান মিয়া,(১৬), সাং-১৯ শামীবাগ, থানা-গেন্ডারিয়া ডিএমপি, ঢাকা, ৪৮। মোঃ সোহাগ (১৭), সাং- বর্তমান-বঙ্গবন্ধু ষ্টেডিয়াম এলাকায় ভাসমান, থানা-পল্টন, ডিএমপি, ঢাকা, ৪৯। মোঃ ওমর ফারুক সজল (১৯), সাং-মহিপাল, থানা-দাগনভুঁইঞা, জেলা-ফেনী, ৫০। মোঃ আব্দুল্লা হƒদয় (১৯), সাং-পাংগাসিয়া, থানা-বাউফল, জেলা-পটুয়াখালী, ৫১। মোঃ শামীম (২০), সাং-গোয়াপাড়া, থানা-হিজলা, জেলা-বরিাশাল, ৫২। মোঃ রাসেল (১৯), সাং-চৌকিদার বাড়ী, থানা-ভান্ডারিয়া, জেলা-পিরোজপুর,  ৫৩। মোঃ সজল (৩০), সাং-বাওইকান্দি, থানা-ভেদরগঞ্জ, জেলা-শরিয়তপুর, ৫৪। মোঃ নাদিম খান বাদল(৩৪), সাং-১৪/২৭ অভয় দাস লেন, তৈয়ব আলীর বাড়ীর ভাড়াটিয়া, থানা-ওয়ারী, ডিএমপি, ঢাকা, ৫৫। কাজী এমদাদুল হক লিটন (৪৫), সাং-১৪/১৬ পুরানা মোঘল তলি, থানা-বংশাল, ডিএমপি, ঢাকা, ৫৬। মোঃ ওয়াসিম (৫০), সাং-১৪০ লুৎফর রহমান লেন, ছুরিটোলা, থানা-বংশাল, ডিএমপি, ঢাকা, ৫৭। মীর মোহাম্মদ শাহীন (৫০), সাং-৪৩ নং পুরানা মোঘল তলি, থানা-বংশাল, ডিএমপি, ঢাকা, ৫৮। মোঃ জাকারিয়া হোসেন ফালাক (২২), সাং-পুলিশাহ, থানা-মাদারগঞ্জ, জেলা-জামালপুর, ৫৯। মোঃ রুবেল মিয়া (২৫), সাং-চতুর,  থানা-বোয়ালমারি, জেলা-ফুরিদপুর, ৬০। মোঃ ফজলে রাব্বি (২৬), সাং-কালীগঞ্জ পূর্ব পাড়া, থানা-দক্ষিন কেরানীগঞ্জ, জেলা-ঢাকা, ৬১। মোঃ হিমন হক (১৭), থানা-বেগমগঞ্জ, জেলা-নোয়াখালী, ৬২। মোঃ আলম হোসেন (১৯), সাং-সখিপুর, থানা-দাউদকান্দি, জেলা-কুমিল্লা, ৬৩। মোঃ সুজন (১৫), সাং-মধ্য হাজীনগর, থানা-ডেমরা, ডিএমপি, ঢাকা, ৬৪। অমৃত চন্দ্র বর্মন (২১), সাং-চর সোনারামপুর, থানা-আশুগঞ্জ, জেলা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ৬৫। মোঃ ফিরোজ (৪২), সাং-গুলিস্থান স্টেডিয়াম এলাকায় ভাসমান, থানা-পল্টন মডেল, ডিএমপি, ঢাকা, ৬৬। মোঃ সাইফুল ইসলাম (২৮), সাং-টেঙ্গরপাড়া, থানা-পলাশ, জেলা-নরসিংদী, ৬৭। মোঃ বেলাল হোসেন (২৮), সাং-গলিস্থান স্টেডিয়াম এলাকায় ভাসমান, থানা-পল্টন মডেল, ডিএমপি, ঢাকা, ৬৮। মোঃ রকিব (২১), সাং-কুশাখালী, থানা-লক্ষীপুর সদর, জেলা-লক্ষীপুর, ৬৯। মোঃ দেলোয়ার হোসেন (২২), সাং-কাশিমনগর, থানা-রায়পুরা, নরসিংদী, ৭০। মোঃ রুবেল (৩০), সাং-খালাশিকান্দি চৌকিদার বাড়ী, থানা-মাদারীপুর সদর, জেলা-মাদারীপুর, ৭১। মোঃ রানা (২৬), সাং-হাটখোলা, থানা-বরিশাল সদর, জেলা-বরিশাল, ৭২। মোঃ সোহেল (২৪), সাং-আটিপাড়া, থানা-রুপগঞ্জ, জেলা-নারায়ণগঞ্জ, ৭৩। মোঃ আবু নাঈম (২৭), সাং-দড়ি কুখিয়া, থানা-ময়মনসিংহ সদর, জেলা-ময়মনসিংহ, ৭৪। মোঃ আল-আমিন (২০), সাং-লেমুয়া, থানা-ফেনী সদর, জেলা-ফেনী, ৭৫। মোঃ বাবু (২২), সাং-মুলাই বেপারী কান্দি, থানা-জাজিরা, জেলা-শরিয়তপুর, ৭৬। আলী হোসেন (৩৫), সাং-নলচর, থানা-হোমনা, জেলা-কুমিল্লা, ৭৭। মোঃ ওমর ফারুক (২৪), সাং-বাদনপাড়া, থানা-বাকেরগঞ্জ, জেলা-বরিশাল, ৭৮। মোঃ শুভ (২৩), সাং-সুচানগর, থানা-ভাঙ্গা, জেলা-ফরিদপুর, ৭৯। মোঃ রাশেল (২৪), সাং-ডহরপাড়া, থানা-উজিরপুর, জেলা-বরিশাল, ৮০। মোঃ বোরহান (২৪), সাং-বাড়ী নং-১১/১৪৫, ডেমরা কামারগোফ, ৪নং গেইট, থানা-ডেমরা, ডিএমপি, ঢাকা, ৮১। মোঃ আল-আমিন (২৪), সাং-কাশিপুর, থানা-লাঙ্গলকোর্ট, জেলা-কুমিল্লা এবং ৮২। ফারুক (২৪), সাং-টানাইয়া বাজার, থানা-টেকনাফ, জেলা-কক্সবাজারদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

অভিযানসমূহে সর্বমোট ৮২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। উক্ত আসামীদের নিকট হতে ৬৮ টি মোবাইলফোন, ৩৫ পিস প্যাথেডিন ইনজেকশন, ২০ টি সুইচ গিয়ার চাকু, ০৭ টি চাকু, ১২ টি ক্ষুর, ০১ টি এন্টিকাটার, ১৭ টি বিষাক্ত মলম, ০৫ টি কাঁচি, ০৬ টি গাঁজার পুরিয়া এবং নগদ ৩৮,১০৯/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

অভিযানসমূহে মুগদা এলাকার মলমপার্টি চক্রের মূলহোতা মোঃ লাল মিয়াসহ তার ৫ জন সহযোগীকে, ডেমরা এলাকার অজ্ঞানপার্টি চক্রের মূলহোতা মোঃ সোহেলসহ তার ৪ জন সহযোগীকে, ডেমরা এলাকার কিশোর গ্যাং চক্রের মূলহোতা মোঃ হিমন হকসহ তার ২ জন সহযোগীকে, হাতিরঝিল এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ খালিদ হাসানসহ তার ৩ জন সহযোগীকে, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা ইউনুছ @ নূর নবীসহ তার ৬ জন সহযোগীকে, যাত্রাবাড়ী এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ শামসুল হকসহ তার ১৩ জন সহযোগীকে, ওয়ারী এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ সাগরসহ তার ৯ জন সহযোগীকে, খিলগাঁও এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ খোকনসহ তার ৩ জন সহযোগীকে, সবুজবাগ এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ দ্বীন ইসলামসহ তার ২ জন সহযোগীকে, পল্টন এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ রাসেলসহ তার ৯ জন সহযোগীকে, মতিঝিল এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা অমৃত চন্দ্র বর্মনসহ তার ৫ জন সহযোগীকে, শাহবাগ এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ দেলোয়ার হোসেনসহ তার ২ জন সহযোগীকে, শাহজাহানপুর এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ রাব্বিসহ তার ৬ জন সহযোগীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

পবিত্র মাহে রমযান এবং ঈদুল ফিতরকে লক্ষ্য করে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারীরা রাজধানীর বিভিন্ন অলি গলিতে ওৎপেতে থাকে। সুযোগ পাওয়া মাত্রই তারা পথচারী, রিকশা আরোহী, যানজটে থাকা সিএনজি, অটোরিকশার যাত্রীদের ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে সর্বস্ব লুটে নেয়। ইফতারের সময় এবং সেহেরীর পর তুলনামূলক জনশুন্য রাস্তায় ছিনতাইকারীরা বেপরোয়া হয়ে ওঠে। তাদের ছিনতাইকাজে বাধা দিলে তারা নিরীহ পথচারীদের প্রাণঘাতী আঘাত করতে দ্বিধা বোধ করেনা। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সন্ধ্যা হতে ভোর রাত পর্যন্ত ছিনতাইকারীদের তৎপরতা বেশি পরিলক্ষিত হয়।

এ সকল ছিনতাইকারীদের আইনের আওতায় আনার ফলে পথচারীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে আসবে বলে আমরা দৃঢ় আশাবাদী। রাজধানীবাসী এবং দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে রাজধানীতে আগত যাত্রীরা যাতে নিরাপদে ঈদের কেনাকাটা করে নির্বিঘেœ স্বস্তির সাথে বাড়ী ফিরে যেতে পারেন, এলক্ষ্য নিয়ে আমাদের ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি এবং মলমপার্টির চক্রের বিরুদ্ধে র‌্যাবের সাড়াঁশি অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

বীণা রানী দাস, পিপিএম, পিপিএম (সেবা)
অতিরিক্তি পুলিশ সুপার
স্টাফ অফিসার (অপস্ ও ইন্ট শাখা)
পক্ষে পরিচালক

 

 

 

 

আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

বিপুল সংখ্যক সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী মলমপার্টি কিশোর গ্যাং এবং অজ্ঞানপার্টির সদস্য গ্রেফতার;

আপডেট সময় ০২:১৪:৫১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ এপ্রিল ২০২২

 

 

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

র‌্যাবের অভিযানে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা হতে বিপুল সংখ্যক সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী, মলমপার্টি, কিশোর গ্যাং, এবং অজ্ঞানপার্টির সদস্য গ্রেফতার; বিপুল পরিমান মোবাইলফোন, প্যাথেডিন ইনজেকশন, বিষাক্ত মলম এবং দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার।

এলিট ফোর্স হিসেবে র‌্যাব আত্মপ্রকাশের সূচনালগ্ন থেকেই আইনের শাসন সমুন্নত রেখে দেশের সকল নাগরিকের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে অপরাধ চিহিৃতকরণ, প্রতিরোধ, শান্তি ও জনশৃংখলা রক্ষায় কাজ করে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে আপনাদের কল্যানে প্রিন্ট এবং ইলেকট্রিক মিডিয়ার বিভিন্ন সংবাদ প্রচারের প্রেক্ষিতে র‌্যাব জানতে পারে, সাম্প্রতিককালে ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি ও কিশোর গ্যাং চক্রের তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এ চক্রকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য র‌্যাব সদা সচেষ্ট।

গত দুই বছর ধরে বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে করোনা মহামারীর কারণে ব্যবসায়িক অবস্থা অত্যন্ত মন্দা ছিল। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে থাকায় দীর্ঘদিন পরে ব্যবসা বানিজ্য সরগরম হয়ে ওঠে। এহেন অবস্থায় পবিত্র মাহে রমজান এবং ঈদুল ফিতরকে লক্ষ্য করে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় কতিপয় সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি ও কিশোর গ্যাং চক্রের তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। উৎসব প্রিয় রাজধানীবাসী পবিত্র মাহে রমজান এবং ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাতভর কেনাকাটা করে থাকেন এবং ব্যবসায়ীরাও উক্ত সময়ে বাজারে তাদের পণ্য সরবরাহ বৃদ্ধি করে থাকেন। এছাড়াও পবিত্র মাহে রমজান এবং ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাজধানীবাসী ও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে ঈদের কেনাকাটা উপলক্ষে রাজধানীমুখী মানুষের বড়বড় শপিংমল ও বাজার কেন্দ্রিক চলাচল বৃদ্ধি পাওয়ার সুযোগে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্র যাত্রাপথে নিরীহ পথচারীদের সর্বস^ ছিনতাই করে চলছে।

সাম্প্রতিককালে ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি এবং মলমপার্টির চক্রের তৎপরতা বৃদ্ধির বিষয়টি ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় যেমনঃ প্রথম আলোর শিরোনামে প্রকাশিত হয়- ছিনতাইকারী চেনা, ছিনতাই চলছেই, মানবজমিনে- ঈদকে ঘিরে রাজধানীতে সরব ছিনতাইকারী চক্র, যুগান্তরে- রাজধানীতে বেপরোয়া ছিনতাইকারী চক্র, আমাদের সময়ে- ঈদ কেন্দ্রিক ছিনতাই থামান, এছাড়াও বাংলাদেশ প্রতিদিন, জনকন্ঠ এবং কালের কন্ঠসহ একাধিক পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। ফলশ্রæতিতে র‌্যাব উক্ত চক্রের সদস্যদের গ্রেফতার করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন পর্যায়ে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করতে থাকে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত রাতে র‌্যাব-৩ এর কয়েকটি আভিযানিক দল একযোগে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি এবং কিশোর গ্যাং চক্রের সদস্য ১। মোঃ লাল মিয়া (৩০), সাং-মধুখালী, থানা-আলফাডাঙ্গা, জেলা-ফরিদপুর, ২। মোঃ মনির হোসেন (৩৫), সাং-মাসুমপুর, থানা-তিতাস, জেলা-কুমিল্লা, ৩। মোঃ শাহীন হোসেন (২২), সাং-পশ্চিম পারপুপি, থানা-ঠাকুরগাঁও সদর, জেলা-ঠাকুরগাঁও, ৪। মোঃ রানা হোসেন মোল্লা (২৮), সাং-বাইকদিয়া, ওয়ার্ড নং-৭৩, থানা-সবুজবাগ, ডিএমপি ঢাকা, ৫। মোঃ রিফাত (২২), সাং-শেখের জায়গা, ওয়ার্ড নং-৭৫, থানা-খিলগাঁও, ডিএমপি ঢাকা, ৬। মোঃ আমিনুল ইসলাম (২৬), সাং-উত্তর মানিকদিয়া, ওয়ার্ড নং-৭৩, থানা-সবুজবাগ, ডিএমপি ঢাকা, ৭। মোঃ রাব্বি (২১), সাং-শেখের জায়গা, ওয়ার্ড নং-৭৫, থানা-খিলগাঁও, ডিএমপি ঢাকা, ৮। মোঃ কামাল হোসেন (৪০), সাং-বাদামতলী, থানা-ভোলা সদর, জেলা-ভোলা, ৯। মোঃ রিপন (৩০), সাং-ইসলামপুর, থানা-ইসলামপুর, জেলা-জামালপুর, ১০। মোঃ রনি (২২), সাং-রুপসদী, থানা-রাঞ্ছারামপুর, জেলা-ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, ১১। মোঃ ইমরান (২০), সাং-সোনাচর, থানা-মেগনা, জেলা-কুমিল্লা, ১২। মোঃ লিটন (৪০), সাং-মোল্লাপাড়া, থানা-কিশোরগঞ্জ সদর, জেলা-কিশোরগঞ্জ, ১৩। মোঃ রুবেল (২০), সাং-নীড় সড়াইল, থানা-সড়াইল, জেলা-ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, (সিপিসি-১), ১৪। মোঃ শফিক (২১), সাং-দাগনভূইয়া, থানা- দাগনভূইয়া, জেলা- ফেনী, ১৫। মোঃ মাসুদ মিয়া (১৮), সাং-মালনিয়া আমগাস্ত, থানা- পূর্বদলা, জেলা-নেত্রকোনা, ১৬। জুয়েল (২১), সাং-চরহাজিপুর, থানা-হোসেনপুর, জেলা-কিশোরগঞ্জ, ১৭। মোঃ খালিদ হাসান @ নাঈম (২০), সাং-তিমিরকাঠি, থানা-নলসিঠি, জেলা-ঝালকাঠি, ১৮। শফিকুল ইসলাম @সুজন(১৯), সাং-খয়রাবাদ, থানা-বাকেরগঞ্জ, জেলা-বরিশাল, ১৯। আসাদুজ্জামান @আসাদ (২০), সাং-মালিগ্রাম, থানা-ভাংগা, জেলা-ফরিদপুর, ২০। মোঃ কাউছার (১৯), সাং-দুধাল, থানা-বাকেরগঞ্জ, জেলা-বরিশাল, ২১। ইউনুছ @ নূর নবী (২৫), সাং-বাঁশগাড়ি, থানা-রায়পুর, জেলা-নরসিংদী, ২২। মোঃ গুলজার হোসেন (৪৯), সাং-নয়াচর, থানা-রায়পুরা, জেলা-নরসিংদী, ২৩। মোঃ নাজমুল (১৯), সাং- ফুকলারচর, থানা-রায়পুরা, জেলা-নরসিংদী, ২৪। মোঃ নাঈম ইসলাম (২০), সাং-আলখরা, থানা- চৌদগ্রাম, জেলা-কুমিল্লা, ২৫। মোঃ সাগর (১৯), সাং-নুরপুর, থানা-নাছিরনগর, জেলা-বি-বাড়িয়া, ২৬। মোঃ রকি (২২), সাং-নুরপুর, থানা-নাছিরনগর, জেলা-বি-বাড়িয়া, ২৭। মোঃ মেহিদী হাসান (২০), সাং-কালারুকা, থানা-ছাতক, জেলা-সিলেট, ২৮। মোঃ সোহেল (৩০), গ্রাম-কুটিবয়রা, থানা- টাঙ্গাইল, জেলা-টাঙ্গাইল, ২৯। মোঃ খোকন (২২), সাং-২৫ ই/১ গোলাপবাগ, থানা-যাত্রাবাড়ি, ডিএমপি, ঢাকা, ৩০। মোঃ নাইম (২৮), সাং-০২ নংধলপুর, থানা-যাত্রাবাড়ী, ঢাকা, ৩১। রুবেলখান (৩০), সাং-জঙ্গল কান্দা, থানা-ভাঙ্গা, জেলা-ফরিদপুর, ৩২। মোঃ দিদার (৪৫), সাং-৬০/৩ কাজির দরগাও, ধলপুর, থানা-যাত্রাবাড়ী, ডিএমপি, ঢাকা, ৩৩। মোঃ দ্বীন ইসলাম (৪১), সাং-ধলপুল, থানা- যাত্রাবাড়ী, ডিএমপি, ঢাকা, ৩৪। লাভলু খাঁ (৩৫), সাং-জঙ্গলকান্দা, থানা-ভাঙ্গা, জেলা-ফরিদপুর, ৩৫। মোঃ সোহেলমৃধা (২৯), গ্রাম-দক্ষিণ রাঙ্গামালিয়া, থানা-সিরাজদি, জেলা-মুন্সিগঞ্জ, ৩৬। মোঃআতাউররহমান (নিশাত) (২৮), সাং- ২২/১, আগানবাব, দেউড়ি, থানা-চকবাজার, জেলা-ঢাকা, ৩৭। মোঃ আশিক কামাল (৩৪), সাং-কলতাপাড়া, থানা- সোনারগাঁও, জেলা-নারয়ণগঞ্জ, ৩৮। মোঃ শামসুল হক (৩৮), সাং-কুলকান্দি, থানা-ইসলামপুর, জেলা-জামালপুর, ৩৯। মোঃ রাসেল (৩৮), সাং- শনিরআখড়া গোবিন্দপুর, থানা-যাত্রাবাড়ী, ডিএমপি, ঢাকা, ৪০। মোঃ কাদির (২৭), সাং-মতুরহাটি, থানা-শ্রীবর্দী, জেলা-শেরপুর, ৪১। মোঃ তুষার শেখ (২৫), সাং-ছিন্নতী ইতালী মোড়, থানা-মাদারীপুর সদর, জেলা-মাদারীপুর, ৪২। মোঃ রাজু সরদার (২৫), বঙ্গবন্ধু ষ্টেডিয়াম এলাকায় ভাসমান, থানা-পল্টন, ডিএমপি, ঢাকা, ৪৩। মোঃ জয়নাল (২৫), সাং-কোরাবুনিয়া আমতলী, থানা-আমতলী, জেলা-বরগুনা, ৪৪। মোঃ মোশারফ হোসেন (৩৩), সাং-জামতলী, থানা-দাউদকান্দি, জেলা-কুমিল্লা, ৪৫। মোঃ আইনাল @ আলাল উদ্দিন (৩৫), সাং-আতিকুড়া, থানা-নাসিরনগর, জেলা-ব্রাক্ষণবাড়ীয়া, ৪৬। মোঃ মনির হোসেন (৩৮), সাং-হামছাদি , থানা-সোনারগাও, জেলা-নারায়নগঞ্জ, ৪৭। মোঃ হাসান মিয়া,(১৬), সাং-১৯ শামীবাগ, থানা-গেন্ডারিয়া ডিএমপি, ঢাকা, ৪৮। মোঃ সোহাগ (১৭), সাং- বর্তমান-বঙ্গবন্ধু ষ্টেডিয়াম এলাকায় ভাসমান, থানা-পল্টন, ডিএমপি, ঢাকা, ৪৯। মোঃ ওমর ফারুক সজল (১৯), সাং-মহিপাল, থানা-দাগনভুঁইঞা, জেলা-ফেনী, ৫০। মোঃ আব্দুল্লা হƒদয় (১৯), সাং-পাংগাসিয়া, থানা-বাউফল, জেলা-পটুয়াখালী, ৫১। মোঃ শামীম (২০), সাং-গোয়াপাড়া, থানা-হিজলা, জেলা-বরিাশাল, ৫২। মোঃ রাসেল (১৯), সাং-চৌকিদার বাড়ী, থানা-ভান্ডারিয়া, জেলা-পিরোজপুর,  ৫৩। মোঃ সজল (৩০), সাং-বাওইকান্দি, থানা-ভেদরগঞ্জ, জেলা-শরিয়তপুর, ৫৪। মোঃ নাদিম খান বাদল(৩৪), সাং-১৪/২৭ অভয় দাস লেন, তৈয়ব আলীর বাড়ীর ভাড়াটিয়া, থানা-ওয়ারী, ডিএমপি, ঢাকা, ৫৫। কাজী এমদাদুল হক লিটন (৪৫), সাং-১৪/১৬ পুরানা মোঘল তলি, থানা-বংশাল, ডিএমপি, ঢাকা, ৫৬। মোঃ ওয়াসিম (৫০), সাং-১৪০ লুৎফর রহমান লেন, ছুরিটোলা, থানা-বংশাল, ডিএমপি, ঢাকা, ৫৭। মীর মোহাম্মদ শাহীন (৫০), সাং-৪৩ নং পুরানা মোঘল তলি, থানা-বংশাল, ডিএমপি, ঢাকা, ৫৮। মোঃ জাকারিয়া হোসেন ফালাক (২২), সাং-পুলিশাহ, থানা-মাদারগঞ্জ, জেলা-জামালপুর, ৫৯। মোঃ রুবেল মিয়া (২৫), সাং-চতুর,  থানা-বোয়ালমারি, জেলা-ফুরিদপুর, ৬০। মোঃ ফজলে রাব্বি (২৬), সাং-কালীগঞ্জ পূর্ব পাড়া, থানা-দক্ষিন কেরানীগঞ্জ, জেলা-ঢাকা, ৬১। মোঃ হিমন হক (১৭), থানা-বেগমগঞ্জ, জেলা-নোয়াখালী, ৬২। মোঃ আলম হোসেন (১৯), সাং-সখিপুর, থানা-দাউদকান্দি, জেলা-কুমিল্লা, ৬৩। মোঃ সুজন (১৫), সাং-মধ্য হাজীনগর, থানা-ডেমরা, ডিএমপি, ঢাকা, ৬৪। অমৃত চন্দ্র বর্মন (২১), সাং-চর সোনারামপুর, থানা-আশুগঞ্জ, জেলা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ৬৫। মোঃ ফিরোজ (৪২), সাং-গুলিস্থান স্টেডিয়াম এলাকায় ভাসমান, থানা-পল্টন মডেল, ডিএমপি, ঢাকা, ৬৬। মোঃ সাইফুল ইসলাম (২৮), সাং-টেঙ্গরপাড়া, থানা-পলাশ, জেলা-নরসিংদী, ৬৭। মোঃ বেলাল হোসেন (২৮), সাং-গলিস্থান স্টেডিয়াম এলাকায় ভাসমান, থানা-পল্টন মডেল, ডিএমপি, ঢাকা, ৬৮। মোঃ রকিব (২১), সাং-কুশাখালী, থানা-লক্ষীপুর সদর, জেলা-লক্ষীপুর, ৬৯। মোঃ দেলোয়ার হোসেন (২২), সাং-কাশিমনগর, থানা-রায়পুরা, নরসিংদী, ৭০। মোঃ রুবেল (৩০), সাং-খালাশিকান্দি চৌকিদার বাড়ী, থানা-মাদারীপুর সদর, জেলা-মাদারীপুর, ৭১। মোঃ রানা (২৬), সাং-হাটখোলা, থানা-বরিশাল সদর, জেলা-বরিশাল, ৭২। মোঃ সোহেল (২৪), সাং-আটিপাড়া, থানা-রুপগঞ্জ, জেলা-নারায়ণগঞ্জ, ৭৩। মোঃ আবু নাঈম (২৭), সাং-দড়ি কুখিয়া, থানা-ময়মনসিংহ সদর, জেলা-ময়মনসিংহ, ৭৪। মোঃ আল-আমিন (২০), সাং-লেমুয়া, থানা-ফেনী সদর, জেলা-ফেনী, ৭৫। মোঃ বাবু (২২), সাং-মুলাই বেপারী কান্দি, থানা-জাজিরা, জেলা-শরিয়তপুর, ৭৬। আলী হোসেন (৩৫), সাং-নলচর, থানা-হোমনা, জেলা-কুমিল্লা, ৭৭। মোঃ ওমর ফারুক (২৪), সাং-বাদনপাড়া, থানা-বাকেরগঞ্জ, জেলা-বরিশাল, ৭৮। মোঃ শুভ (২৩), সাং-সুচানগর, থানা-ভাঙ্গা, জেলা-ফরিদপুর, ৭৯। মোঃ রাশেল (২৪), সাং-ডহরপাড়া, থানা-উজিরপুর, জেলা-বরিশাল, ৮০। মোঃ বোরহান (২৪), সাং-বাড়ী নং-১১/১৪৫, ডেমরা কামারগোফ, ৪নং গেইট, থানা-ডেমরা, ডিএমপি, ঢাকা, ৮১। মোঃ আল-আমিন (২৪), সাং-কাশিপুর, থানা-লাঙ্গলকোর্ট, জেলা-কুমিল্লা এবং ৮২। ফারুক (২৪), সাং-টানাইয়া বাজার, থানা-টেকনাফ, জেলা-কক্সবাজারদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

অভিযানসমূহে সর্বমোট ৮২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। উক্ত আসামীদের নিকট হতে ৬৮ টি মোবাইলফোন, ৩৫ পিস প্যাথেডিন ইনজেকশন, ২০ টি সুইচ গিয়ার চাকু, ০৭ টি চাকু, ১২ টি ক্ষুর, ০১ টি এন্টিকাটার, ১৭ টি বিষাক্ত মলম, ০৫ টি কাঁচি, ০৬ টি গাঁজার পুরিয়া এবং নগদ ৩৮,১০৯/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

অভিযানসমূহে মুগদা এলাকার মলমপার্টি চক্রের মূলহোতা মোঃ লাল মিয়াসহ তার ৫ জন সহযোগীকে, ডেমরা এলাকার অজ্ঞানপার্টি চক্রের মূলহোতা মোঃ সোহেলসহ তার ৪ জন সহযোগীকে, ডেমরা এলাকার কিশোর গ্যাং চক্রের মূলহোতা মোঃ হিমন হকসহ তার ২ জন সহযোগীকে, হাতিরঝিল এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ খালিদ হাসানসহ তার ৩ জন সহযোগীকে, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা ইউনুছ @ নূর নবীসহ তার ৬ জন সহযোগীকে, যাত্রাবাড়ী এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ শামসুল হকসহ তার ১৩ জন সহযোগীকে, ওয়ারী এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ সাগরসহ তার ৯ জন সহযোগীকে, খিলগাঁও এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ খোকনসহ তার ৩ জন সহযোগীকে, সবুজবাগ এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ দ্বীন ইসলামসহ তার ২ জন সহযোগীকে, পল্টন এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ রাসেলসহ তার ৯ জন সহযোগীকে, মতিঝিল এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা অমৃত চন্দ্র বর্মনসহ তার ৫ জন সহযোগীকে, শাহবাগ এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ দেলোয়ার হোসেনসহ তার ২ জন সহযোগীকে, শাহজাহানপুর এলাকার ছিনতাইকারী চক্রের মূলহোতা মোঃ রাব্বিসহ তার ৬ জন সহযোগীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

পবিত্র মাহে রমযান এবং ঈদুল ফিতরকে লক্ষ্য করে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারীরা রাজধানীর বিভিন্ন অলি গলিতে ওৎপেতে থাকে। সুযোগ পাওয়া মাত্রই তারা পথচারী, রিকশা আরোহী, যানজটে থাকা সিএনজি, অটোরিকশার যাত্রীদের ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে সর্বস্ব লুটে নেয়। ইফতারের সময় এবং সেহেরীর পর তুলনামূলক জনশুন্য রাস্তায় ছিনতাইকারীরা বেপরোয়া হয়ে ওঠে। তাদের ছিনতাইকাজে বাধা দিলে তারা নিরীহ পথচারীদের প্রাণঘাতী আঘাত করতে দ্বিধা বোধ করেনা। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সন্ধ্যা হতে ভোর রাত পর্যন্ত ছিনতাইকারীদের তৎপরতা বেশি পরিলক্ষিত হয়।

এ সকল ছিনতাইকারীদের আইনের আওতায় আনার ফলে পথচারীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে আসবে বলে আমরা দৃঢ় আশাবাদী। রাজধানীবাসী এবং দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে রাজধানীতে আগত যাত্রীরা যাতে নিরাপদে ঈদের কেনাকাটা করে নির্বিঘেœ স্বস্তির সাথে বাড়ী ফিরে যেতে পারেন, এলক্ষ্য নিয়ে আমাদের ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি এবং মলমপার্টির চক্রের বিরুদ্ধে র‌্যাবের সাড়াঁশি অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

বীণা রানী দাস, পিপিএম, পিপিএম (সেবা)
অতিরিক্তি পুলিশ সুপার
স্টাফ অফিসার (অপস্ ও ইন্ট শাখা)
পক্ষে পরিচালক