বাংলাদেশ ০৯:০৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন সন্ধ্যার মধ্যে উপাচার্য, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাসভবন ছাড়ার আল্টিমেটাম কুবি শিক্ষার্থীদের রাবিতে জড়ো হওয়া আন্দোলনকারীদের পুলিশ-বিজিবির ধাওয়া মেহেন্দিগঞ্জে অজ্ঞাতনামা নারীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার। মুন্সীগঞ্জে গায়েবানা জানাযা থেকে ঈমাম ও বিএনপি নেতাকে ধরে নিয়ে গেলো পুলিশ কোটা আন্দোলনের পক্ষে সংহতি জানিয়ে ফেনী ইউনিভার্সিটির বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের বিবৃতি চলমান পরিস্থিতিতে রাবি ক্যাম্পাসে ছাত্র রাজনীতি আপাতত স্থগিত: উপাচার্য বিদেশের পাঠানো টাকা চাইতে গিয়ে বিপাকে প্রবাসী স্বামী রাজশাহীতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত চট্রগ্রামের কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের জানাজায় মানুষের ঢল পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া পৌরসভার রাস্তায় সমবায় সমিতি ভবনের ট্যাংকির ময়লা: জনদুর্ভোগ মুন্সীগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের উপর হামলা, আহত ৫ হরিপুরে, প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড এর পক্ষ থেকে কর্মী মিটিং ও গ্রাহক সমাবেশ অনুষ্ঠিত। গৌরীপুরে উদীচী কার্য়ালয়ে হামলা ও ভাংচুর স্ত্রীর যৌতুক মামলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কারাগারে

শ্রীমঙ্গলে নাবালিকা ধর্ষণের পলাতক ধর্ষক চন্দন ধর গ্রেফতার

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০১:৫৫:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২২
  • ১৭০২ বার পড়া হয়েছে

শ্রীমঙ্গলে নাবালিকা ধর্ষণের পলাতক ধর্ষক চন্দন ধর গ্রেফতার

শাহাদাত হোসেন অপু, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার::
মৌলভীবাজার জেলার জগৎসি সূত্রধর বাড়ী থেকে শ্রীমঙ্গল ও সদর থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে চাঞ্চল্যকর নাবালিকা ধর্ষণ মামলার আসামি চন্দন ধর (৪৫) কে গ্রেফতার করা হয়েছে।
শনিবার(১৬ই এপ্রিল) দিবাগত রাত ৩ ঘটিকায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ ব্যাপারে সন্ধ্যারপর থেকেই অভিযানে র‌্যাবও মাঠে কাজ করেছিল বলে সূত্র জানায়। কিন্তু পুলিশ তার আগেই আসামি চন্দন কে আটক করতে সক্ষম হয়।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযানে থাকা শ্রীমঙ্গল থানার এসআই আসাদুর রহমান জানান, সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টার কারনেই চাঞ্চল্যকর নাবালিকা ধর্ষণ মামলার আসামি চন্দন ধর কে দ্রুততম সময়ের মধ্যে আটক করতে সফল হয়েছি।  আশাকরি আপনাদের সকলের সহযোগিতা পেলে শ্রীমঙ্গলে কেউ যতোবড়ই ক্রাইম করুক না কেন পুলিশের হাতথেকে পালানোর কোন সূযোগ পাবে না।
পুলিশ সূত্রে আরো জানা যায়, শনিবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে শ্রীমঙ্গল শহরের স্টেশন রোডস্থ হিরন্ময় প্লাজার তিন তলার একটি বাসা থেকে শহরের শাহীবাগ এলাকার বাসিন্দা ঐ নাবালিকা মেয়েকে হাত-পা বাধা অবস্থায় উদ্ধার করেছে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ। এসময় শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ বাসার গৃহিণী ও চন্দন ধর এর মা সাধনা ধর (৬০) এবং চন্দন ধর এর স্ত্রী পূর্ণা ধর (৩০) নামে দুই নারীকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই স্থান থেকে ধর্ষক পালিয়ে যায়।
উল্লেখযোগ্য যে, গতকাল শনিবার শ্রীমঙ্গল থানায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হলে, মেয়েটি সাংবাদিকদের কাছে তার উপর দীর্ঘ দেড় বছর যাবত লোমহর্ষক নির্যাতনের বর্ণনা দেয়। মেয়েটি জানায়, গত দেড় বছর আগে শহরের ষ্টেশন রোড়ের হিরম্ময় প্লাজার তিন তলার বাসিন্দা ও ‘অরেঞ্জ ফ্যাশন’র মালিক চন্দন ধর (৪৫) এর বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ নেয় । কাজে যোগ দেয়ার কয়েকদিনের মাথায় চন্দন ধর তার খারাপ দৃষ্টিতে পরে ওই গৃহকর্মী ওপর তখন তাকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে। পরে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে গত দেড় বছর ধরে তাকে ধর্ষণ করে আসছিল। এসব জানার পরও বাসার লোকজন চন্দনের ভয়ে বাধা দেয়নি বলে  মেয়েটি জানায়।
মেয়েটি অভিযোগ করে, শনিবার সকালে চন্দন ধর তাকে আবারও ধর্ষণের চেষ্টা করলে সে বাধা দেয়। এতে চন্দন শারীরিক নির্যাতন করে তার হাত-পা বেঁধে একটি ঘরে ফেলে রাখে। স্থানীয়রা জানায়, শনিবার মেয়েটির আত্ম-চিৎকার শুনে তারা পুলিশকে খবর দেয় । এ খবর পেয়ে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (তদন্ত) হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে পুলিশ ফোর্স ঘটনাস্থল থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এসময় প্রাথমিকভাবে মেয়েটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে নির্যাতনের চিহ্ন দেখা গেছে। মেয়েটির ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মেয়েটি নিজেই বাদী হয়ে চন্দন ধরসহ ৩ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছে।
আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

মুন্সীগঞ্জ সদর ইউএনওর চরডুমুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন

শ্রীমঙ্গলে নাবালিকা ধর্ষণের পলাতক ধর্ষক চন্দন ধর গ্রেফতার

আপডেট সময় ০১:৫৫:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২২
শাহাদাত হোসেন অপু, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার::
মৌলভীবাজার জেলার জগৎসি সূত্রধর বাড়ী থেকে শ্রীমঙ্গল ও সদর থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে চাঞ্চল্যকর নাবালিকা ধর্ষণ মামলার আসামি চন্দন ধর (৪৫) কে গ্রেফতার করা হয়েছে।
শনিবার(১৬ই এপ্রিল) দিবাগত রাত ৩ ঘটিকায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ ব্যাপারে সন্ধ্যারপর থেকেই অভিযানে র‌্যাবও মাঠে কাজ করেছিল বলে সূত্র জানায়। কিন্তু পুলিশ তার আগেই আসামি চন্দন কে আটক করতে সক্ষম হয়।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযানে থাকা শ্রীমঙ্গল থানার এসআই আসাদুর রহমান জানান, সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টার কারনেই চাঞ্চল্যকর নাবালিকা ধর্ষণ মামলার আসামি চন্দন ধর কে দ্রুততম সময়ের মধ্যে আটক করতে সফল হয়েছি।  আশাকরি আপনাদের সকলের সহযোগিতা পেলে শ্রীমঙ্গলে কেউ যতোবড়ই ক্রাইম করুক না কেন পুলিশের হাতথেকে পালানোর কোন সূযোগ পাবে না।
পুলিশ সূত্রে আরো জানা যায়, শনিবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে শ্রীমঙ্গল শহরের স্টেশন রোডস্থ হিরন্ময় প্লাজার তিন তলার একটি বাসা থেকে শহরের শাহীবাগ এলাকার বাসিন্দা ঐ নাবালিকা মেয়েকে হাত-পা বাধা অবস্থায় উদ্ধার করেছে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ। এসময় শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ বাসার গৃহিণী ও চন্দন ধর এর মা সাধনা ধর (৬০) এবং চন্দন ধর এর স্ত্রী পূর্ণা ধর (৩০) নামে দুই নারীকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই স্থান থেকে ধর্ষক পালিয়ে যায়।
উল্লেখযোগ্য যে, গতকাল শনিবার শ্রীমঙ্গল থানায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হলে, মেয়েটি সাংবাদিকদের কাছে তার উপর দীর্ঘ দেড় বছর যাবত লোমহর্ষক নির্যাতনের বর্ণনা দেয়। মেয়েটি জানায়, গত দেড় বছর আগে শহরের ষ্টেশন রোড়ের হিরম্ময় প্লাজার তিন তলার বাসিন্দা ও ‘অরেঞ্জ ফ্যাশন’র মালিক চন্দন ধর (৪৫) এর বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ নেয় । কাজে যোগ দেয়ার কয়েকদিনের মাথায় চন্দন ধর তার খারাপ দৃষ্টিতে পরে ওই গৃহকর্মী ওপর তখন তাকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে। পরে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে গত দেড় বছর ধরে তাকে ধর্ষণ করে আসছিল। এসব জানার পরও বাসার লোকজন চন্দনের ভয়ে বাধা দেয়নি বলে  মেয়েটি জানায়।
মেয়েটি অভিযোগ করে, শনিবার সকালে চন্দন ধর তাকে আবারও ধর্ষণের চেষ্টা করলে সে বাধা দেয়। এতে চন্দন শারীরিক নির্যাতন করে তার হাত-পা বেঁধে একটি ঘরে ফেলে রাখে। স্থানীয়রা জানায়, শনিবার মেয়েটির আত্ম-চিৎকার শুনে তারা পুলিশকে খবর দেয় । এ খবর পেয়ে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (তদন্ত) হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে পুলিশ ফোর্স ঘটনাস্থল থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এসময় প্রাথমিকভাবে মেয়েটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে নির্যাতনের চিহ্ন দেখা গেছে। মেয়েটির ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মেয়েটি নিজেই বাদী হয়ে চন্দন ধরসহ ৩ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছে।