বাংলাদেশ ০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :

সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,, সাংবাদিক নিয়োগ চলছে,,০১৯৯৯-৯৫৩৯৭০, ০১৭১২-৪৪৬৩০৬,০১৭১১-০০৬২১৪ সম্পাদক

     
ব্রেকিং নিউজ ::
মিরপুরে মোটরসাইকেলের তেলের ট্যাংকের ভেতর ফেনসিডিল সহ আটক-০১ শাশুড়িকে বাঁচাতে গিয়ে অন্তঃসত্ত্বা পুত্রবধূ ভেসে গেলেন হাওরের জলে। শিবপুরে স্মার্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ফেডারেশনের সম্মেলন অনুষ্ঠিত কুষ্টিয়ায় দুই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১, আহত-৩ বোয়ালখালীতে পুকুরে ডুবে যুবকের মৃত্যু এম.আই. টেলিভিশন’ এর ৩য় বর্ষপূর্তি উদযাপন একদফা দাবি নিয়ে আবারো রেললাইন অবরোধে রাবি শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করলো কুবির অর্থনীতি বিভাগ বিসিএস প্রশ্ন ফাঁস করে কোটি টাকার জমি কিনেছেন শাহাদাত আপন মামা কর্তৃক কিশোরী ভাগনীকে ধর্ষণ মামলার পলাতক প্রধান আসামী জগন্নাথ বিশ্বাসকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ধনবাড়ীতে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ ৩ মাদক কারবারি আটক বিপুল পরিমাণে গাঁজাভর্তি ট্রাকসহ ০২শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। বাবুগঞ্জে রাস্তার ভোগান্তিতে পথ চলা বন্ধ শিক্ষার্থীরা চরম দুর্ভোগে। রাজশাহীর বাগমারায় অনলাইন জুয়ার কালো থাবায় নিঃস্ব হচ্ছে তরুণ-যুব সমাজ ফেনী ইউনিভার্সিটিতে গবেষণা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত 

সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী উম্মে কুলসুম ধর্ষণ মামলার আসামী রনিকে গ্রেফতার।

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১০:৩৪:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪
  • ১৫৯২ বার পড়া হয়েছে

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদক 

বহুল আলোচিত সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী উম্মে কুলসুম ধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় ও পলাতক একমাত্র আসামী রনি দীর্ঘ ০৫(পাঁচ) বছর পর নীলফামারী জেলার সদর থানাধীন নীলফামারী রেল স্টেশন সংলগ্ন এলাকা হতে র‌্যাব-১৩ এর জালে আটক।

সুনির্দিষ্ট তথ্য ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-১৩, সিপিসি-২, নীলফামারী ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল কর্তৃক অদ্য ১৯ জুন ২০২৪ আনুমানিক ১৮.৪৫ ঘটিকায় নীলফামারী জেলার সদর থানার মামলা নং-১৮৮, তারিখ ১৮/০৭/২০১৯, ধারা- ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-২০০৩) এর ৯(১) মামলার পলাতক আসামীকে নীলফামারী জেলার সদর থানাধীন পৌরসভার অন্তর্গত নীলফামারী রেলওয়ে ষ্টেশনের মেইন গেইটের সামনে অভিযান পরিচালনা করে আসামী মোঃ রনি ইসলাম (৩৪) পিতা-মোঃ আব্দুল লতিফ, সাং-চড়চড়াবাড়ী (রামনগর), থানা-নীলফামারী সদর, জেলা-নীলফামারী কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

উল্লেখ্য যে, নীলফামারী সদরের চড়চড়াবাড়ি দক্ষিণপাড়ার আব্দুল লতিফের ছেলে রনি ইসলাম এর সাথে প্রেমে জড়িয়ে সপ্তম শ্রেণীতে পড়াকালীন সময়ে মেধাবী শিক্ষার্থী উম্মে কুলসুম হয়ে পড়ে অন্তঃসত্বা। অষ্টম শ্রেণীতে হয়েছেন মা। কোল আলোকিত করে এসেছে ফুটফুটে শিশু রোজামণি আক্তার রুনা। বর্তমানে শিশুটির বয়স ০৬(ছয়) বছর। স্বামীর পরিচয় ছাড়া সমাজে প্রতিনিয়ত লাঞ্চিত হতে হচ্ছে কুলসুমকে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, দশ বছর আগে মাকে হারানো ভুক্তভোগী কুলসুম এর বাবা দেলোয়ার হোসেন একজন শারীরিক প্রতিবন্ধি। সাত বছর আগে সপ্তম শ্রেণীতে পড়াকালীন সময়ে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কুলসুমের সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে রনি। ঘটনার দিন কুলসুমের বাবা বাড়িতে না থাকায় রনি এসে জোরপূর্বক তার সাথে শারিরীক সম্পর্ক করে। এমনকি হুমকি দেয় কাউকে বললে মেরে ফেলবে। শিশুটি গর্ভে আসায় গ্রাম্য সালিশে ভূল স্বীকার করে গর্ভপাতের জন্য ১০ হাজারসহ আরও টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে অনত্র বিয়ে করে নিরুদ্দেশ হয় রনি। কিন্তু অল্প বয়সে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় গর্ভপাতের ঝুঁকি নিতে চায়নি চিকিৎসক। এর ফলে পাঁচ বছর আগে পিতৃপরিচয় পাওয়ার আশায় ২০১৯ সালে ভুক্তভোগীর বড় বোন নীলফামারী সদর থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। রনিকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে থানা পুলিশ বারংবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন।

এমতাবস্থায়, নীলফামারীর সংবাদ মাধ্যম কর্মীরা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে এই বিষয়টি প্রচার করলে র‍্যাব-১৩, সিপিসি-২, নীলফামারী ক্যাম্পের দৃষ্টিগোচর হয়। পরবর্তীতে, আসামী রনিকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে গোয়েন্দা তৎপরতা আরম্ভ করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য ১৯ জুন ২০২৪ আনুমানিক ১৮.৪৫ ঘটিকায় আসামী রনিকে উল্লেখিত স্থান হতে গ্রেফতার করা হয়।

Reference:

নীলফামারী জেলার সদর থানার মামলা নং-১৮৮, তারিখ-১৯/০৭/২০২৪ ধারা- ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-২০০৩) এর ৯(১)।

 

 

 

আপলোডকারীর তথ্য

Banglar Alo News

hello
জনপ্রিয় সংবাদ

মিরপুরে মোটরসাইকেলের তেলের ট্যাংকের ভেতর ফেনসিডিল সহ আটক-০১

সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী উম্মে কুলসুম ধর্ষণ মামলার আসামী রনিকে গ্রেফতার।

আপডেট সময় ১০:৩৪:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদক 

বহুল আলোচিত সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী উম্মে কুলসুম ধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় ও পলাতক একমাত্র আসামী রনি দীর্ঘ ০৫(পাঁচ) বছর পর নীলফামারী জেলার সদর থানাধীন নীলফামারী রেল স্টেশন সংলগ্ন এলাকা হতে র‌্যাব-১৩ এর জালে আটক।

সুনির্দিষ্ট তথ্য ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-১৩, সিপিসি-২, নীলফামারী ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল কর্তৃক অদ্য ১৯ জুন ২০২৪ আনুমানিক ১৮.৪৫ ঘটিকায় নীলফামারী জেলার সদর থানার মামলা নং-১৮৮, তারিখ ১৮/০৭/২০১৯, ধারা- ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-২০০৩) এর ৯(১) মামলার পলাতক আসামীকে নীলফামারী জেলার সদর থানাধীন পৌরসভার অন্তর্গত নীলফামারী রেলওয়ে ষ্টেশনের মেইন গেইটের সামনে অভিযান পরিচালনা করে আসামী মোঃ রনি ইসলাম (৩৪) পিতা-মোঃ আব্দুল লতিফ, সাং-চড়চড়াবাড়ী (রামনগর), থানা-নীলফামারী সদর, জেলা-নীলফামারী কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

উল্লেখ্য যে, নীলফামারী সদরের চড়চড়াবাড়ি দক্ষিণপাড়ার আব্দুল লতিফের ছেলে রনি ইসলাম এর সাথে প্রেমে জড়িয়ে সপ্তম শ্রেণীতে পড়াকালীন সময়ে মেধাবী শিক্ষার্থী উম্মে কুলসুম হয়ে পড়ে অন্তঃসত্বা। অষ্টম শ্রেণীতে হয়েছেন মা। কোল আলোকিত করে এসেছে ফুটফুটে শিশু রোজামণি আক্তার রুনা। বর্তমানে শিশুটির বয়স ০৬(ছয়) বছর। স্বামীর পরিচয় ছাড়া সমাজে প্রতিনিয়ত লাঞ্চিত হতে হচ্ছে কুলসুমকে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, দশ বছর আগে মাকে হারানো ভুক্তভোগী কুলসুম এর বাবা দেলোয়ার হোসেন একজন শারীরিক প্রতিবন্ধি। সাত বছর আগে সপ্তম শ্রেণীতে পড়াকালীন সময়ে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কুলসুমের সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে রনি। ঘটনার দিন কুলসুমের বাবা বাড়িতে না থাকায় রনি এসে জোরপূর্বক তার সাথে শারিরীক সম্পর্ক করে। এমনকি হুমকি দেয় কাউকে বললে মেরে ফেলবে। শিশুটি গর্ভে আসায় গ্রাম্য সালিশে ভূল স্বীকার করে গর্ভপাতের জন্য ১০ হাজারসহ আরও টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে অনত্র বিয়ে করে নিরুদ্দেশ হয় রনি। কিন্তু অল্প বয়সে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় গর্ভপাতের ঝুঁকি নিতে চায়নি চিকিৎসক। এর ফলে পাঁচ বছর আগে পিতৃপরিচয় পাওয়ার আশায় ২০১৯ সালে ভুক্তভোগীর বড় বোন নীলফামারী সদর থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। রনিকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে থানা পুলিশ বারংবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন।

এমতাবস্থায়, নীলফামারীর সংবাদ মাধ্যম কর্মীরা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে এই বিষয়টি প্রচার করলে র‍্যাব-১৩, সিপিসি-২, নীলফামারী ক্যাম্পের দৃষ্টিগোচর হয়। পরবর্তীতে, আসামী রনিকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে গোয়েন্দা তৎপরতা আরম্ভ করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য ১৯ জুন ২০২৪ আনুমানিক ১৮.৪৫ ঘটিকায় আসামী রনিকে উল্লেখিত স্থান হতে গ্রেফতার করা হয়।

Reference:

নীলফামারী জেলার সদর থানার মামলা নং-১৮৮, তারিখ-১৯/০৭/২০২৪ ধারা- ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-২০০৩) এর ৯(১)।